অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলার আশা করছেন জকোভিচ


Published: 2020-10-24 17:36:08 BdST, Updated: 2020-11-25 03:27:29 BdST

স্পোর্টস লাইভ: রজার ফেদেরার ও রাফায়েল নাদালের সর্বকালের সর্বোচ্চ গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের রেকর্ড স্পর্শে এখন তাদের সবচেয়ে কাছে রয়েছে আরেক শীর্ষ তারকা নোভাক জকোভিচ। আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে জয়ের মাধ্যমে সেই লক্ষ্যের কিছুটা কাছাকাছি যেতে পারবেন বিশ্বের এক নম্বর এই সার্বিয়ান তারকা। বছরের প্রথম এই গ্র্যান্ড স্ল্যামে অংশ নেবার ঘোষনাও ইতোমধ্যেই দিয়েছেন জকোভিচ।

যদিও ৩৩ বছর বয়সী জকোভিচ এখনও নিশ্চিত নন কবে নাগাদ তিনি মেলবোর্নে পৌঁছাতে পারেন। কারণ কোভিড-১৯’এর কারণে অস্ট্রেলীয় সরকারের নির্দেশমতে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন আইন মানাটা বাধ্যতামূলক।

এ সম্পর্কে জকোভিচ বলেছেন, ‘আশা করছি ঐ সময় পর্যন্ত পরিস্থিতি কিছুটা হলেও ভাল হবে। আর সে কারনে তারা কোয়ারেন্টাইনের সময় কমিয়ে আনবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা না হলে আমি নিশ্চিত বেশীরভাগ টেনিস খেলোয়াড়রই একটু আগে ভাগেই অস্ট্রেলিয়া সফরে যাবে।’

গত ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থানটা ধরে রেখেছেন জকোভিচ। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নাদালের তুলনায় তার রেটিং পয়েন্ট প্রায় ২০০০ বেশী। চলতি মাসে রোলা গ্যাঁরোর ফাইনালে জকোভিচকে ৬-০, ৬-২, ৭-৫ গেমের সরাসরি সেটে পরাজিত করে ফেদেরারের সাথে রেকর্ড ২০তম স্ল্যাম জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছেন নাদাল। জকোভিচের ঝুলিতে রয়েছে ১৭টি শিরোপা।

সুইস সেনসেশন ফেদেরারের সবচেয়ে বেশী সময় ধরে এটিপি বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান ধরে রাখার রেকর্ড ভাঙ্গতে হলে জকোভিচকে অবশ্যই অস্ট্রেলিয়ান ওপেন থেকে যথাসম্ভব পয়েন্ট অর্জণ করতে হবে।

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই জকোভিচ কোর্টে নামবেন। বেলগ্রেডে অনুশীলন সেশনের পর তিনি গণমাধ্যমে বলেছেন, ‘আমার যে ভবিষ্যতে বড় লক্ষ্য আছে সেটা নিয়ে কারো কারো মধ্যে সমস্যা দেখা দিতে পারে। কিন্তু আমি আমার লক্ষ্যে স্পষ্ট ও সৎ থাকতে চাই।

আসলে আমার ব্যক্তিত্বটা এমনই। আমার লক্ষ্য হচ্ছে এক নম্বর স্থানটাতে ইতিহাস রচনা করা। সবচেয়ে বেশী সময় ধরে নিজেকে প্রথম অবস্থানে ধরে রাখা। সেই লক্ষ্যে আমি শেষ পর্যন্ত কাজ করে যেতে চাই।’

ঢাকা, ২৪ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।