কঠোর নজরদারিতে চলছে লকডাউন, হতাশায় ব্যবসায়ীরা


Published: 2021-04-17 21:13:56 BdST, Updated: 2021-05-10 23:58:14 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সারাদেশে গত ১৪ এপ্রিল থেকে সপ্তাহ ব্যাপী লকডাউনের চতুর্থ দিনে কেরানীগঞ্জের মডেল থানার আওতাধীন সকল স্থানে জন সাধারণকে ঘরে রাখতে চলছে কঠোর লকডাউন।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) সরেজমিনে কেরানীগঞ্জের কদমতুলি, নুর ইসলাম চত্বর সহ এর আশেপাশের এলাকায় কেরানীগঞ্জ উপজেলার মডেল থানার উর্ধতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে সকাল থেকে কঠোর অবস্থানে স্থানীয় প্রশাসন।

খলিলুর রহমান (৪৫) নামের এক সিট-কাপড় ব্যবসায়ী বলেন, রমজান মাসে লকডাউনে আমাদের বিরাট লোকসান গুনতে হচ্ছে। ঢাকার বাহিরের পার্টিরা আসতে পারছে না। দোকান পুরোপুরি বন্ধ রাখতে হচ্ছে। কর্মচারীদের বেতন বোনাস সবই দিতে হবে। এমতাবস্থায় আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে যাওয়ার মতো। খুব দুশ্চিন্তায় কালযাপন করছি। সকালে আসছিলাম দোকান খুলতে প্রশাসনের চাপের মুখে খুলতে পারি নাই।

জনি (২৯) নামের এক ফল ব্যবসায়ী ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, রমজানে ফলের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। লকডাউনের কারনে পর্যাপ্ত ফল আনতে পারছি না। সামনে ঈদ কিভাবে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবো তা বুঝে উঠছি না। গত কয়েকদিনের তুলনায় আজকে লকডাউন কড়াকড়ি মনে হচ্ছে। গাড়ি নিয়ে সিটির মধ্যে ঢুকতে পারছি না। সরকার কড়াকড়ি হলেও লোকজন ঘরে বসে নেই।

আশফাক (৫৫) নামের এক কাপড় ব্যবসায়ী ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, কেরানীগঞ্জের লাওন সপার্সমলে আমার একটা কাপড়ের দোকান আছে। দোকানে ঈদ উপলক্ষে অনেক টাকা ইনভেস্ট করেছি। দুজন কর্মচারী ও রয়েছে সামনে সারা বছর মোটামুটি বেচা কেনা করে আশায় থাকি ঈদের পূর্বে রমজান মাসে ভালো বেচা কেনা হবে যা দিয়ে ওদের বোনাস বকশিস দিবো। কিন্তু প্রথম রমজান থেকে দোকান বন্ধ। আদৌ কবে নাগাদ খুলতে পারবো তাও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

ঢাকা, ১৭ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।