হাওরাঞ্চলের কৃষকদের কান্না


Published: 2021-04-05 15:55:13 BdST, Updated: 2021-04-15 15:09:51 BdST

নেত্রকোনা লাইভ: বৃষ্টিবিহীন কালবৈশাখী গরম বাতাসের ঝড়ে তছনছ হয়ে গেছে ফসলী জমি। শত শত হেক্টর ফসলী জমি ক্ষতি হওয়ায় হতাশায় আছেন এলাকার হাজার হাজার কৃষক। তাদের সবকিছুই যেন এলোমেলো হয়ে গেছে। কিন্তু গত রাতের কালবৈশাখী ঝড়ের গরম বাতাস যেন কৃষকদের সব স্বপ্ন বিলীন করে দিয়েছে। ধার- দেনা করে এক ফসলী জমির ফসল হারিয়ে পথে বসা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই কৃষকদের। বয়ে যাওয়া ঝড়ে নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলাসহ আশে পাশের বিভিন্ন হাওর এলাকার বোরো ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ফসল নিয়ে ব্যাপক দুশ্চিন্তায় কৃষকরা। তারা ভেবে পাচ্ছেন না কি হবে তাদের।

রোববার সন্ধ্যার দিকে কালবৈশাখী গরম বাতাসের ঝড় শুরু হয়, যা চলতে থাকে মধ্যরাত পর্যন্ত। হাজার হাজার চাষীদের তখন ঘুম হারাম হয়ে যায়।

কালবৈশাখী গরম বাতাসের ঝড়ে পুড়ে গেছে ধান

 

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি বোরো মৌসুমে পৌরসভাসহ উপজেলার ৮ ইউনিয়নে এবার ১৭ হাজার ৩৪০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদ হয়েছে। এছাড়াও ৫শ ১৫ হেক্টর জমিতে পাট ও করিফোয়ান ৩শ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে। এবার আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় বোরো ধান ও অন্যান্য ফসলের অবস্থা ভালোই ছিল। লক্ষ্য মাত্রার চেয়ে বেশি ধান উৎপাদন হবে বলে আশা ছিলো কৃষকদের। ব্রী-২৮ ধানের পাশা পাশি কাটা শুরু হয়েছে বিভিন্ন জাতের হাইব্রিড ধান।

মাঠ পরিদর্শনে মদন উপজেলা আ. লিগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস ও প্রশাসনের লোকজন

কষ্টে ফলানো সোনার ফসল ঘরে তুলতে অনেকেই ব্যস্ত সময় পার করছিলেন। গেল কয়েক বছরের চেয়ে এবার উপজেলায় রোরো ধানের বাম্পার ফলনের আশা ছিল। বেশ কিছু জমির ধানই পাকতে শুরু করেছিলো। ধান ঘরে তুলতে দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছিলেন কৃষক- কৃষাণীরা।

ঝড়ের কারণে পুড়ে সাদা হয়ে গেছে ধান

 

সরেজমিনে দেখা যায়, কালবৈশাখী ঝড়ে গরম বাতাসে ধান পাটসহ বিভিন্ন সবজি ক্ষেত সাদা হয়ে পড়েছে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে পুড়ে যাওয়ার মতো কালো হয়ে যাচ্ছে।

মদন পৌর সদরে কৃষক সবুজ ও ইমরান সহ অনেকেই ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, গতকাল সন্ধ্যার পর থেকে হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড়ের গরম বাতাস বয়ে যায়। সকালবেলা ক্ষেতে এসে দেখি সব ধানের জমি সাদা হয়ে গেছে। এবার জমিতে ভালো ফলন হয়েছিল এখনতো জমি কাটাই যাবে না।

কাজল নামের অপর আরেক কৃষক ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, অন্যের জমি লিজ নিয়ে ধার দেন করে আবাদ করেছিলাম। এখন দেনা কিভাবে পরিশোধ করব এবং সংসার নিয়ে কিভাবে চলব?

ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক

 

গোবিন্দশ্রী গ্রামের কৃষক আবুল মিয়া, নজরুল ইসলাম ও মজিবুর সহ অনেকেই বিলাপের সুরে ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, গতকালের গরম বাতাসে আমাদের সোনার ফসল ধান, পাট ও সবজির ক্ষেত সহ সব সাদা হয়ে গেছে। এখন আমরা আমাদের সংসার নিয়ে কিভাবে চলব ভাইবা পাই না।

পুড়ে সাদা হয়ে গেছে মাঠের ফসল

 

মাগান ইউনিয়নের ঘাটুয়া গ্রামের কৃষক সাবেক ইউপি মেম্বার মোঃ আনিছ মিয়া ও মাঘান ইউনিয়নের আ'লীগ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সহ অনেকেই ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, হাওরে ধান কাটার মতো অবস্থা নেই। সব জমি সাদা হয়ে গেছে ’এহন টিক পাইতাছি না কি করবাম। আমরার সংসার ক্যামনে চলবে বুঝতাছি না। আমর একটা ফসলের উপরে ভরসা কইরা চলি’।

মদন উপজেলার ভারপ্রাপ্ত কৃষি কর্মকর্তা রায়হানুল হক ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, গত রাতের কালবৈশাখী ঝড়ে কৃষদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এ ক্ষতি অপূরণীয়। আমাদের লোকজন মাঠে আছে। ক্ষয়ক্ষতির সঠিক তথ্য এখনো বলা যাচ্ছে না।

ঢাকা, ০৫ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//কেএইচএম//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।