এলএসডি ও আইস সেবনের কথা শিকার করেছেন পরীমনি


Published: 2021-08-05 12:30:28 BdST, Updated: 2021-09-27 15:07:37 BdST

শোবিজ লাইভ: ঢাকাই সিনেমার আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনির বাসা থেকে ভয়ংকর নতুন মাদক লাইসার্জিক অ্যাসিড ডাইইথ্যালামাইড (এলএসডি), আইস ও বিপুল পরিমাণ মদের বোতল উদ্ধার করেছে র‌্যাব। এদিকে ভয়ংকর এই মাদকে আসক্তির কথা শিকার করেছেন। বেশ কিছুদিন ধরে তিনি নিয়মিত এসব মাদক সেবন করতেন।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পরীমনি র‍্যাব সদস্যদের কাছে এলএসডি ও আইস সেবনের কথা শিকার করেন। বুধবার (৪ আগস্ট) রাতে র‍্যাবের অভিযানে পরিমনির বনানীর বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মদসহ ভয়ঙ্কর এই মাদক উদ্ধার হয়।

মদের বোতল

 

অভিযানে থাকা র‍্যাবের একাধিক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, আমরা যখন পরীমনির বাড়ির প্রতিটা কক্ষে তল্লাশি চালাই তখন থরে থরে সাজানো দেশি বিদেশি হরেক রকমের মদের বোতল চোখে পড়ে। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় আপনি আর কী ধরনের মাদক সেবন করেন? তখন পরীমনি জানান, তিনি মাঝে মধ্যে 'এলএসডি' সেবন করেন। বাসায় আছে কি না জানতে চাইলে তিনি এগুলো (এলএসডি) বের করে দেন।'

র‌্যাব আরও জানায়, অভিযানে বাহিনীর সদস্যরা পরীমনির বাসা থেকে মদ ও এলএসডির পাশাপাশি আইস মাদকও জব্দ করেছে। যেগুলো তিনি সেবন করতেন। এসব মাদকে আসক্তির কারণে তিনি এগুলো কিনে রাখতেন। দুদিন আগেও তিনি এলএসডি সেবন করেছিলেন।

মদের বোতল

 

এর আগে বুধবার বিকাল ৪টার দিকে পরীমণির বাসায় অভিযানে যান র‌্যাব সদস্যরা। এসময় তাৎক্ষণিক ফেসবুক লাইভে এসে পরীমনি বিষয়টি সবাইকে জানায়। তিনি বলেন, অজ্ঞাতপরিচয় বিভিন্ন পোশাকের কয়েকজন ব্যক্তি বাসার বাইরে থেকে কলিং বেল দিয়ে দরজা খুলতে বলছে। আমি ভয় পাচ্ছি।

তিনি থানা-পুলিশ, ডিবির কর্মকর্তা ও তার পরিচিতজনদের কাছে ফোন করে তাকে বাঁচানোর আহ্বান জানান। বাইরে থেকে বারবার র‍্যাব তাদের পরিচয় দিলে ভেতর থেকে দরজা খুলছিলেন না তিনি। পরে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম এবং আইনশৃঙ্ক্ষলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের বাসার বারান্দা দিয়ে দেখে বিকাল ৪ টা ৩৫ মিনিটে ভেতর থেকে দরজা খুলে দেওয়া হয়। এরপর র‍্যাব সদস্যরা ভেতরে ঢোকেন এবং শুরু করে তল্লাশি।

ঢাকা, ০৫ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।