ছাত্রীকে শ্লীলতাহানী, জরিমানার টাকায় স্কুলে উন্নয়ন!


Published: 2018-11-04 21:57:35 BdST, Updated: 2018-11-18 02:09:00 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে নানা সমালোচনা। জানা গেছে, এলাকার এক বখাটে ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। পরে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় শ্লীলতাহানীর শিকার হয় ওই ছাত্রী। শাহজাদপুর উপজেলার বেলতৈল ইউনিয়নের খাস সাতবাড়ীয়া নুরুন্নাহার সামাদ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী সে।

জানা গেছে, ওই ছাত্রী স্কুল শেষে বাড়ি ফেরার পথে সাতবাড়ীয়া গ্রামের দুলালের ছেলে বখাটে ও লম্পট হাফিজুর তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাবটি স্কুলছাত্রী প্রত্যাখান করলে বখাটে শ্লীলতাহানী ও পাঠ্যবই ছিঁড়ে ফেলে। বাড়ি ফিরে স্কুলছাত্রী ঘটনাটি তার বাবাকে জানান। ছাত্রীর পিতা এ ঘটনার সুবিচার দাবি করেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের নিকট।

ওই ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ, বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদ ও প্রধান শিক্ষক সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে পার্শ্ববর্তী দুইটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষ ও এলাকার প্রভাবশালীদের নিয়ে ১৭ জন বসান গ্রাম্য শালিশ। আর শালিশে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা ধার্য ও আদায় করেন তারা। আর স্কুল কর্তৃপক্ষের গ্রাম্য শালিশের ওই আয়োজন ও আদায়কৃত অর্থ স্কুলের উন্নয়নে খরচ করার ব্যাতিক্রমি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানার।

এ ঘটনায় ওই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে অধ্যায়ণরত প্রায় ৪’শ ছাত্রীর অভিভাবক এবং এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে। প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষ, বিভিন্ন স্তরের মানবাধিকার কর্মীসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট ন্যক্কারজনক এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবীও তারা জানিয়েছে।

 


ঢাকা, ৪ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।