Azhar Mahmud Azhar Mahmud
teletalk.com.bd
thecitybank.com
livecampus24@gmail.com ঢাকা | সোমবার, ২০শে মে ২০২৪, ৫ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
teletalk.com.bd
thecitybank.com

বেরোবিতে ৪ দফা দাবিতে আদিবাসী শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

প্রকাশিত: ১৪ জুন ২০২২, ০৭:৩১

মানববন্ধন

বেরোবি লাইভ: চার দফা দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) অধ্যায়নরত আদিবাসী শিক্ষার্থীরা। সোমবার (১৩ জুন) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ রাসেল মিডিয়া চত্ত্বর থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। পরে মিছিলটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কৃষ্ণচূড়া সড়কে মানববন্ধনের মাধ্যমে শেষ হয়।

তাদের চারদফা দাবিগুলো হলো-

১. বেরোবি ভর্তিতে আদিবাসীদের জন্য ৩% কোটা বরাদ্দ দেয়া।

২. আবাসিক হলে আসন বরাদ্দ দেয়া।

৩. নৃ-গোষ্ঠী নয় আদিবাসী হিসেবে স্বীকৃতি দিতে হবে।

৪. সরকারী চাকরিতে কোটার ব্যবস্থা করা।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের আদিবাসী শিক্ষার্থী গীতা ফ্লোরেন্স বলেন, আমরা আদিবাসীরা পিছিয়ে পরা জনগোষ্ঠী হিসেবে পরিচিত। আমরা আর পিছিয়ে থাকতে চাই না। আমরাও লেখাপড়া করে সক্ষমতা অর্জন করতে চাই। তাই বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিতে কোটা ব্যবস্থা ১.৫% থেকে ৩% চাই। বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে আমাদের জন্য আসন বরাদ্দ চাই। আমরা ১ম ও ২য় শ্রেণীর চাকরিতেও কোটার ব্যবস্থা চাই। তাহলে হয়তো আমাদের চলার পথ সুগম হবে।

আদিবাসী শিক্ষার্থী রিনা মুরমু বলেন, আমরা আদিবাসীরা সারাদেশে নানা ভাবে নির্যাতিত ও হয়রানির স্বীকার হচ্ছি। আমাদের সমাজ এখনো উল্লেখজনক হারে শিক্ষিত নয়। আমরা যদি শিক্ষিত হতে পারি তাহলে সচেতন ও দেশ গড়ার কাজে অংশ নিতে পারবো। তাই বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিতে কোটা বৃদ্ধি ও সরকারি ১ম ও ২য় শেণীর চাকরিতে কোটা রাখা জরুরী।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী যুগেশ ত্রিপুরা বলেন, আপনারা পাহাড়ের সৌন্দর্য দেখতে যান কিন্তু পাহাড়ে বসবাসকারী আদিবাসীদের কথা ভাবেন না। আমরা এতোই বৈষম্যের স্বীকার যে আদিবাসী হিসেবেও স্বীকৃতি পাইনি। এখনো অধিকাংশ পাহাড়ীদের মাইলের পর মাইল হেটে ফলমূল বিক্রি করে জীবিকা অর্জন করতে হয়। আমাদের এলাকায় নেই ভালো শিক্ষার ব্যবস্থা। সরকারী প্রাইমারি স্কুল পর্যন্ত নেই। লেখাপড়া শিখতে ‍দুরের কোন মিশনারী স্কুলে যেয়ে পড়তে হয়ে। এতো অসমতা থাকা সত্তেও আমরা সরককারীভাবে তেমন সুবিধা পাই না।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন শিক্ষার্থী ছিল মাত্র ৩০০ তখন এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠী কোটা ছিল ১.৫% এখন শিক্ষার্থী ভর্তির সক্ষমতা বৃদ্ধি পেলেও কোটা বৃদ্ধি করা হয়নি। আমরা চাই শিক্ষার্থী ভর্তি কোটা ৩% করা হোক।

মানববন্ধটিতে সঞ্চালনায় ছিলেন ফণে বিকাশ ত্রিপুরা ও সভাপতিত্ব করেন সুরেশ । মানববন্ধনটিতে ক্যম্পাসের সকল আদিবাসী শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

ঢাকা, ১৩ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমএস//এমজেড


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

সম্পর্কিত খবর


আজকের সর্বশেষ