রাবির গণরুমে রান্না করলেই সিট বাতিল!


Published: 2021-10-19 12:47:17 BdST, Updated: 2021-11-28 05:58:02 BdST

রাবি লাইভ: করোনায় সংক্রামনের কারণে দীর্ঘ দেড় বছরের অধিক সময় বন্ধ থাকার পর গত রোববার (১৭ অক্টোবর) খুলেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) আবাসিক হল। ইতিমধ্যে বেশীরভাগই শিক্ষার্থী হলে ফিরেছে। শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে অনেক আবাসিক হলেই খাবারের ডাইনিং ও ক্যান্টিন চালু করা হয়েছে।

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের তাপসী রাবেয়া আবাসিক ছাত্রী হলে গণরুমে অবস্থানকারী শিক্ষার্থীদের ডাইনিংয়ে খাওয়ার ব্যাপারে বাধ্যবাধকতা করেছে হল কর্তৃপক্ষ। রবিবার ১৭ অক্টোবর থেকে এই নিয়ম চালু হয়েছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গণরুমে অবস্থানকারী শিক্ষার্থীদের ডাইনিংয়ে খাওয়া বাধ্যতামূলক। নিজস্বভাবে রান্নার ব্যবস্থা করা যাবেনা। এ আদেশের অন্যথা হলে সিট বাতিল করা হবে।

এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে শিক্ষার্থীরা। ছাত্রীদের যাতে ভোগান্তি না হয় তাই এই নিয়ম করা হয়েছে বলে জানায় হল কর্তৃপক্ষ।

ক্ষোভ জানিয়ে হলের আবাসিক শিক্ষার্থী নওরিন আমিনা ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ‘মেয়েরা এতো কষ্ট করে গণরুমে গিঞ্জি পরিবেশে বেড শেয়ার করে থাকে কয়েকটা টাকা বাঁচানোর আশায়। এ কেমন সিদ্ধান্ত? ডাইনিংয়ে কেনাবেচা কম হলে হল প্রশাসনের কি সমস্যা?'

বিজ্ঞপ্তি

 

তাপসী রাবেয়া হলের প্রভোস্ট ড. ফেরদৌসি মাহালের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, 'দীর্ঘ দিন পর হল খোলা হয়েছে। গণরুমগুলোতে একরুমে অনেকজন ছাত্রীরা থাকে। ওদের রান্না করাটা অনেক ঝামেলা। তাছাড়া গণরুমে থাকা মেয়েরা ব্লকের রুমের সামনে গিয়ে রান্না করতে হয়, যারা ব্লকের রুমগুলোতে থাকে ওদেরও সমস্যা হয়। আবার রান্না করতে গিয়ে দুর্ঘটনা শিকার হতে পারে।'

তিনি আরো বলেন, 'আমি আমার হলের মেয়েদের আগে প্রায়োরিটি দিই। ওদের ডাইনিংয়ে খাবারের কোন সমস্যা হবে না এটুকু এনশিউর করেছি। ওরা যখন যেটা খেতে মন চায় আমাকে বললেই আমি ডাইনিংয়ে সেগুলো রান্না করার কথা বলে দিই। যদি ডাইনিংয়ে খাবারের মান ভালো হয় তাহলে ত রুমে রান্না করার প্রয়োজন হচ্ছে না। বাহিরে খাবারের দাম ও অনেক বেশী। সে কথা চিন্তা করেই আমরা এ শুধু গণরুমে থাকা মেয়েদের এসব শর্ত দিয়েছি এটা ওদের ভালোর জন্যই।'

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা তারেক নূর ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, 'আসলে গণরুমে একসাথে অনেকগুলো ছাত্রী একসাথে থাকে ওরা রুমে রান্না করলে তো সমস্যা হবে। অন্যদের ও সমস্যা হবে। তাই হয়ত এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগে রান্না করা হতো কিনা সে বিষয়টা খোঁজ নিয়ে তোমাকে জানাবো।'

অন্য হলের গণরুমগুলোতে এরকম সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে কি না এ বিষয়ে জানতে
প্রভোস্ট কাউন্সিলের আহ্বায়ক প্রফেসর ড.জুলকারনাইনকে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

ঢাকা, ১৯ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//ওএফ//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।