রাবি ভর্তি পরীক্ষায় থাকছে চারস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা!


Published: 2021-09-28 09:56:25 BdST, Updated: 2021-10-23 16:58:40 BdST

রাবি লাইভ: আগামী ৪-৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক/স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষায় সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চারস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা কার্যকর করবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর রোববার বিকেলে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে ভিসি প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর ড. আজিজুর রহমান জানান, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতিসহ মানসম্মত খাদ্য ও পানি সরবরাহ, স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণ, টয়লেট ব্যবস্থা, অতিথিদের বসার জায়গা, ট্রাফিক ব্যবস্থা ইত্যাদি বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পরীক্ষা সংক্রান্ত যেকোন অপরাধ কঠোর হস্তে দমন করা হবে এবং সার্বক্ষণিক মোবাইল কোর্ট চালু থাকবে।

তিনি আরো জানান, শহরের দিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয় অভিমুখে আগত সকল গাড়ি কাজলা গেট দিয়ে, কাটাখালী থেকে বিশ্ববিদ্যালয় অভিমুখে আগত সকল গাড়ি বিনোদপুর গেট দিয়ে প্রবেশ করবে এবং মেইন গেট দিয়ে বের হবে। চারুকলা গেট দিয়ে সকল প্রকার যানবাহনের প্রবেশ বন্ধ থাকবে। স্টেশন বাজার গেট দিয়ে গাড়ি প্রবেশ করে চারুকলা গেট দিয়ে বের হয়ে যেতে পারবে।

এছাড়াও খাবার স্টল, ইনফরমেশন বুথসহ সকল স্বেচ্ছাসেবক স্টল দেয়ার ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের এস্টেট দপ্তরে আবেদন সাপেক্ষে নির্ধারিত স্থানে স্টল দিতে হবে এবং সকল স্বেচ্ছাসেবক ও স্টল পরিচালকদের পরিচয়পত্র বহন করতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করার জন্য প্রত্যেক ভবনের গেটে ডিজিটাল থার্মোমিটার দিয়ে শরীরের তাপমাত্রা মাপা হবে এবং সকলের মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করা হবে। পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকদের বসার জন্য ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে পর্যাপ্ত চেয়ারের ব্যবস্থা থাকবে। জরুরি চিকিৎসা সেবা দেয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টার এবং রাজশাহী মেডিকেল কলেজের এ্যাম্বুলেন্স সেবা চালু থাকবে। খাদ্যের মান যাতে নিশ্চিত হয় এবং অতিরিক্ত মূল্য যাতে কেউ গ্রহণ করতে না পারে সে ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সজাগ থাকবে।

উল্লেখ্য, এ বছর ভর্তি পরীক্ষায় মোট ৪ হাজার ১৯১টি আসনে তিনটি ইউনিটে পরীক্ষা হবে। ‘এ’ (কলা, আইন, সামাজিক বিজ্ঞান ও চারুকলা অনুষদ এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট) ইউনিটে আসন ২ হাজার ১৯টি, ‘বি’ (ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ ও ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট) ইউনিটে ৫৬০টি এবং ‘সি’ (কৃষি ও বিজ্ঞান অনুষদ) ইউনিটে ১ হাজার ৬১২ আসন রয়েছে।

এ শিক্ষাবর্ষে বাছাই করে চূড়ান্ত পরীক্ষায় প্রতি ইউনিটে ৪৫ হাজার করে তিনটি ইউনিটে মোট ১ লাখ ৩৫ হাজার শিক্ষার্থী পরীক্ষা দেওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত ‘এ’ ইউনিটে ৪৩ হাজার ৫৫৮, ‘বি’ ইউনিটে ৩৯ হাজার ৮৯৫ এবং ‘সি’ ইউনিটে ৪৪ হাজার ১৯৪টি চূড়ান্ত আবেদন জমা পড়েছে। এতে সব মিলিয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার ক্ষেত্রে ৭ হাজার ৩৫৩ আসন ফাঁকাই থাকছে।

ঢাকা, ২৮ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//ওএফ//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।