Azhar Mahmud Azhar Mahmud
teletalk.com.bd
thecitybank.com
livecampus24@gmail.com ঢাকা | মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ ২০২৪, ২১শে ফাল্গুন ১৪৩০
teletalk.com.bd
thecitybank.com
প্রভোস্টের পদত্যাগ দাবিতে

গভীর রাতে সড়ক অবরোধ করল বাকৃবি ছাত্রীরা

প্রকাশিত: ১৫ অক্টোবার ২০২২, ০৪:২৮

বাকৃবি ছাত্রীদের সড়ক অবরোধ

বাকৃবি লাইভ: সড়ক অবরোধ করেছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়টির মেয়েদের আবাসিক বেগম রোকেয়া হলের প্রভোস্টের পদত্যাগের দাবিতে সড়কে নেমেছেন তারা। এতে ময়মনসিংহের ব্রিজ মোড় থেকে সুতিয়াখালী অভিমুখী যান চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টায় হলের প্রধান ফটকের সামনের রাস্তা অবরোধ করেন ওই হলের কিছু শিক্ষার্থী।

তাদের দাবি, শিক্ষার্থীরা বিনাশর্তে বেগম রোকেয়া হলের প্রভোস্ট মো. রফিকুল ইসলামসহ হল প্রশাসনের পদত্যাগ এবং এখতিয়ারবহির্ভূতভাবে একজন সাধারণ শিক্ষার্থীকে সবার সামনে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের হুমকি দেওয়ায় প্রভোস্টের যথাযোগ্য শাস্তির দাবি করেন।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, এর আগেও সিটের সমস্যা নিয়ে আন্দোলন করা হয়েছিল। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়েছিল লেভেল-৩ শিক্ষার্থীদের আগে সিট দেওয়া হবে; এর পর লেভেল-২ শিক্ষার্থীদের দেওয়া হবে। কিন্তু এখন আমাদের লেভেল-৩ শিক্ষার্থীদের বাদ দিয়ে অবৈধভাবে লেভেল ২-এর ২০ জনকে সিট দেওয়া হয়েছে।

প্রকাশে অনিচ্ছুক মৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের চতুর্থ বর্ষের নাম এক শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, পূজার বন্ধের আগে প্রভোস্ট স্যার আমাকে পুরাতন বিল্ডিংয়ের 'গ' ব্লকের ৩০৪ নম্বর রুমে সিট বরাদ্দ দেয়। ছুটি শেষে ৮ অক্টোবর আমি রুমে উঠি। কিন্তু আজকে হঠাৎ করে আমার রুমে প্রভোস্ট স্যারের নির্দেশে তালা দিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে আমি প্রভোস্ট স্যারের সঙ্গে কথা বলতে গেলে প্রভোস্ট স্যার সিট দেওয়ার ব্যাপারটা অস্বীকার করেন এবং আমার ওপর অভিযোগ করেন যে, আমি তালা ভেঙে রুমে উঠেছি।

মৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের চতুর্থ বর্ষের আরেকজন শিক্ষার্থী অভিযোগ করে জানান, আন্দোলন চলাকালীন এখতিয়ারবহির্ভূতভাবে হল প্রভোস্ট তাকে সবার সামনে সরাসরি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের হুমকি দেন।

জানতে চাইলে ওই হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে আমার কোনো কিছু বলার নেই।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মহির উদ্দীন, সহযোগী ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. মো. আজহারুল ইসলাম, সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক ড. আফরিনা মুস্তারি এবং ড. শফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থলে এসে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করে সমাধানের চেষ্টা করেন। পরে রোববার ১২টার মধ্যে প্রভোস্ট পদত্যাগ করবে শর্তে শুক্রবার রাত ১টার দিকে শিক্ষার্থীরা রাস্তা অবরোধ প্রত্যাহার করে হলে ফিরে যায়।

এ বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মহির উদ্দীন বলেন, আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে শিক্ষার্থীদের হলে ফিরিয়েছি। তাদের অভিযোগ শুনেছি। সার্বিকভাবে সব বিষয় পর্যালোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঢাকা, ১৪ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমএ


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

সম্পর্কিত খবর


আজকের সর্বশেষ