[email protected] ঢাকা | বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
teletalk.com.bd
thecitybank.com

রঙে ভরা বৈশাখ উদযাপন করলো রাবি

রাবি লাইভ | প্রকাশিত: ১৪ এপ্রিল ২০২২ ২০:৩৪

প্রকাশিত: ১৪ এপ্রিল ২০২২ ২০:৩৪

রাবিতে বৈশাখ উদযাপন

'খেরো খাতায় আঁকবো রে আজ, শিল্পী মনের কথা। রং ছড়িয়ে রাঙাবো আজ, আমাদের হালখাতা' এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রাখে এবারের পহেলা বৈশাখ উদযাপন করছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ। করোনা মহামারী কাটিয়ে দুবছর পর আবারো রঙে রঙিন হয়ে উঠেছে চারুকলা প্রাঙ্গণ। শিক্ষক- শিক্ষার্থীরা মেতেছে বৈশাখের আমেজে।

অন্যান্য বছরের ন্যায় এবারো পহেলা বৈশাখের আয়োজন করা হয়েছে তবে এবছর মাহে রমজান উপলক্ষে কর্মসূচীতে এসেছে নানা পরিবর্তন।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, পবিত্র রমজান মাসের ধর্মীয় নিয়ম-কানুন প্রতিপালনের স্বার্থে বিকেল ৫টার মধ্যে বাংলা নববর্ষের যাবতীয় অনুষ্ঠানাদি সম্পন্ন করাসহ বহিরাগতদের বিকেল ৫টার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ত্যাগ করার জন্য সকলকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, পহেলা বৈশাখকে ঘিরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ সেজেছে নতুন আমেজে। চারুকলা শিক্ষার্থীদের রংতুলি ছোঁয়ায় আঁকা বিভিন্ন চিত্রকর্ম ও দেয়ালিকার মাধ্যমে বাঙালি ঐতিহ্যকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। চারুকলা প্রাঙ্গণে শিক্ষার্থী ও দর্শনার্থীদের রকমারি রঙের শাড়ি-পাঞ্জাবিতে রঙিন হয়ে উঠেছে। এমনকি রঙিন বেলুন-ফেস্টুন ও চারুকলা শিক্ষার্থীদের হৈ-হুল্লোড়ে উৎসব বিরাজ করছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। এবারের পহেলা বৈশাখে রঙিন কোন কর্মসূচীর আয়োজন দেখা মেলেনি। হয়নি মঙ্গল শোভাযাত্রাও। দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবারের বৈশাখের আয়োজন।

পহেলা বৈশাখ উদযাপন কমিটির আয়োজনে প্রথম পর্বে বেলা সাড়ে ১১টায় চারুকলা অনুষদ প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা আয়োজন করা হয়। চারুকলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো ভিসি প্রফেসর ড চৌধুরী মোহাম্মদ জাকারিয়া, প্রো ভিসি প্রফেসর সুলতান উল ইসলাম, চিত্রকলা, প্রাচ্যকলা ও ছাপচিত্র বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. হীরা সোবাহান।

আলোচনা সভা শেষে এবারের বৈশাখের চমক 'খেরো খাতা' উদ্বোধন করেন প্রো ভিসি প্রফেসর ড চৌধুরী মোহাম্মদ জাকারিয়া ও প্রফেসর ড. সুলতান উল ইসলাম।

উল্লেখ্য, পহেলা বৈশাখ আয়োজন দুটি পর্বে ভাগ করা হয়েছে। প্রথমদিন বৈশাখের প্রাচীন ঐতিহ্য 'হালখাতা' উদ্বোধন করা হয়। যার মাধ্যমে বৈশাখে ব্যতিক্রম ভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। হালখাতা মূলত একাডেমিক কার্যক্রমের হালনাগাদ হবে। বর্তমানে যে সেশনজট সমস্যা আছে সেটা দূর করে হালনাগাদ হতেই এ প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়েছে। প্রতিবছরের পাঠ্যবই প্রতিবছর শেষ করা, সময়মত পরীক্ষা নেয়া এবং ফলাফল প্রকাশ করা এ বিষয়গুলোকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। নববর্ষ উদযাপন শেষ কর্মসূচী হিসেবে থাকছে বৈশাখের শেষ দিনে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হবে সেই সাথে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

ঢাকা, ১৪ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//ওএফ//এমজেড




আপনার মূল্যবান মতামত দিন: