এবার আবরারের পরিবারকে জামায়াত-শিবির বললেন এসপি!


Published: 2019-10-10 04:57:46 BdST, Updated: 2019-10-19 03:50:17 BdST


কুষ্টিয়া লাইভ : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদের পরিবারকে জামাত-শিবির আখ্যায়িত করেছেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার (এসপি) এসএম তানভীর আরাফাত। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে তোলপাড় শুরু হয়েছে। আবরারের ছোট ভাই ফায়াজকে পুলিশ মারধোর করেছে এমন প্রশ্নের জবাবে ক্ষুব্ধ ওসি ওই পরিবারের সদস্যদের জামায়াত-শিবির বলে আখ্যায়িত করেছেন। যদিও আবরারের পরিবারের সদস্যদে দাবি তারা আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফের বাসার পাশেই তাদের বাসা। হানিফের সঙ্গেও তাদের পরিবারের সম্পর্ক রয়েছে। তারা নৌকার সভা-সমাবেশেও অংশ নেন। জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে তাদের কোন সম্পর্ক নেই। আবরারও ওই সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিল না। তাকে হত্যার পর শিবির আখ্যা দেয়া হচ্ছে উদ্দেশ্যমূলকভাবে।

এদিকে এসপি বলেন ফায়াজকে মারধরের বিষয়টি মিথ্যা কথা। মিথ্যা প্রগাগান্ডা ছড়ানো হচ্ছে। ভিসিকে মারতে পারেনি বলে এসব ছড়ানো হচ্ছে।

বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী কী ভিসির ওপর আক্রমণের কোনো চেষ্টা করেছিল? এমন প্রশ্নের জবাবে এসপি বলেন, ‘এলাকাবাসী না, ওদের ফ্যামিলি (আবরার) জামাত শিবিরের লোকজন। জামাতের লোকজন আক্রমণের চেষ্টা করেছিল।’

এসপি আরও বলেন, কোনো সংঘর্ষের ঘটনাই ঘটেনি। চড়-থাপ্পড়দের ঘটনাও ঘটেনি। প্রপাগান্ডা ছড়ানো হচ্ছে।

উল্লেখ্য, বুধবার (৯ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর সাইফুল ইসলাম আবরারদের বাড়ি কুষ্টিয়ায় গেলে সেখানে পুলিশের সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষ হয়। এসময় আবরারের ছোট ভাই ফায়াজসহ আহত হন তিনজন।

জানা যায়, বুয়েট ভিসি শুধুমাত্র আবরারের কবর জিয়ারত করতে পেরেছেন। তিনি আবরারের বাড়িতে ঢুকতে পারেননি। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী তাকে বাধা দেন। এসময় পুলিশের সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষ হয়।

এর আগে গত রোববার রাতে বুয়েটের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে ডেকে নিয়ে হত্যা করে ছাত্রলীগের একদল নেতকর্মী।

ঢাকা, ১০ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.ম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।