সেই কোটিপতি ছাত্রলীগ নেতা ২ দিনের রিমান্ডে


Published: 2021-04-28 15:18:08 BdST, Updated: 2021-06-19 18:26:36 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: গাজীপুরে ইয়াবা কারবার করে কোটিপতি বনে যাওয়া আলোচিত ছাত্রলীগ নেতা মো. রেজাউল করিমকে দুদিনের রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) রাত সোয়া একটার দিকে হিমারদিঘী কেরানিরটেক বস্তি এলাকা থেকে মাদক ও চাঁদাবাজী মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারের পর বুধবার সকালে পুলিশ রেজাউলকে গাজীপুরের ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে হাজির করে। সেখানে ৭ দিনের রিমান্ড দাবি করা হয়। বিচারক তার দুদিনের রিমান্ড মন্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নিদের্শ দেন।

রেজাউল করিম (৩২) ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক ও ছাত্রলীগের টঙ্গী সরকারি কলেজ কমিটির সাধারণ সম্পাদক।

বুধবার গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মো. জাকির হাসান জানান, সম্প্রতি টঙ্গীর হিমারদীঘি এলাকার হামিদ হাওলাদারের ছেলে জাকির হোসেনকে (২৫) মাদকসহ গ্রেফতার করে পুলিশ হেফজাতে (রিমান্ডে) জিজ্ঞাসাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে জাকির পুলিশকে জানায়, তার বাসায় আরও ইয়াবা ট্যাবলেট রয়েছে।

পরে মঙ্গলবার রাতে পুলিশ জাকির হোসেনের বসত ঘরের আলমারী থেকে পাঁচশ’ পিস ইয়াবা টেবলেট উদ্ধার করে। এ ইয়াবার সরবরাহকারী হলেন রেজাউল করিম। এসব ইয়াবা টেবলেটের বিক্রির পর লভ্যাংশ তারা আনুপাতিকহারে ভাগ করে নিতেন বলেও জানিয়েছে মাদক ব্যবসায়ি জাকির। বুধবার দুপুরে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে রেজাউলকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

জাকির হোসেন তথ্য দেয়ার পর মঙ্গলবার রাতে টঙ্গীর নোয়াগাঁও সৈয়দ মুন্সী রোড এলাকায় এলাকায় অভিযান চালিয়ে ছাত্রলীগ নেতা রেজাউল করিমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। একই রাতে টঙ্গীর হিমারদীঘি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২৯৪ পুড়িয়া গেরোইনসহ জাকির হোসেনের ছোট ভাই মো. নবীন হোসেনকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

ছাত্রলীগের টঙ্গী সরকারি কলেজ কমিটির সভাপতি কাজী মঞ্জুর জানান, রেজাউল করিম হলেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক ও ছাত্রলীগের টঙ্গী সরকারি কলেজ কমিটির সাধারণ সম্পাদক। তার গ্রেফতার হওয়ার কথা শুনেছি। কিন্তু গ্রেফতারের বিষয়ে বিস্তারিত জানা নেই।

গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার মো. ইলতুৎ মিশ জানান, গ্রেপ্তার রেজাউল করিম সম্প্রতি স্থানীয় জুট ব্যবসায়ী সাজ্জাদুল ইসলাম মনির কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। পরে ব্যবসায়ীর স্ত্রী শিল্পী আক্তার বাদী হয়ে রেজাউল করিমের বিরুদ্ধে টঙ্গী পশ্চিম থানায় একটি চাঁদাবাজির মামলা করেন।

রেজাউল হলো মাদক ব্যবসার একজন পৃষ্ঠপোষক। তিনি কক্সবাজার থেকে মাদকের চালান এনে টঙ্গীসহ আশেপাশের মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ করতেন বলেও জানান মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার।

ঢাকা, ২৮ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।