সুন্দরবন নামে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবি শিক্ষার্থীদের


Published: 2021-03-20 17:18:50 BdST, Updated: 2021-05-08 03:34:34 BdST

আর এস মাহমুদ হাসান: সাতক্ষীরাতে একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, এই এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল। সেই স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণায়। সম্প্রতি সাতক্ষীরা জেলায় "বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়" স্থাপনের জন্য মন্ত্রী পরিষদে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দিয়েছেন।

গত ৭ মার্চ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন সংযোগ অধিশাখার উপসচিব শাফায়েত মাহবুব চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগকে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে জানানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত সাতক্ষীরা জেলা উন্নয়নের ক্ষেত্রে বিভিন্ন দিক দিয়ে পিছিয়ে রয়েছে।

জেলার যোগাযোগ ও অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি দীর্ঘমেয়াদি ও টেকসই উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণের মাধ্যমে এ জেলাকে উন্নয়নের মহাসড়কে সংযুক্ত করা আবশ্যক। বহুমুখী উন্নয়নের অংশ হিসেবে সুশিক্ষিত ও দক্ষ জনশক্তি তৈরি এবং শিক্ষার্থীদের উচ্চতর পড়াশোনা সহজতর করতে সাতক্ষীরা জেলায় একটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা প্রয়োজন।

এখন সেই বিশ্ববিদ্যালয়টি সাতক্ষীরা জেলার ঠিক কোথায় প্রতিষ্ঠিত হবে? কোথায় প্রতিষ্ঠিত হলে সুন্দরবনকে গবেষণাগার হিসেবে পাওয়ার সর্বোচ্চ সুবিধা থাকবে, এই এলাকা কেন্দ্রিক কি কি বিষয়াবলি এ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানো যেতে পারে, এছাড়া পর্যটন শিল্পের বিকাশেও এই বিদ্যাপীঠ কিভাবে ভূমিকা পালন করবে তা সাতক্ষীরা থেকে বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের থেকে জানার চেষ্টা করেছেন আমাদের ক্যাম্পাসলাইভ২৪ প্রতিনিধি আর এস মাহমুদ হাসান।

গাজী বোরহান

গাজী বোরহান, , আরবী বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

উপযুক্ত স্থান নির্বাচনই সাতক্ষীরায় আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে পারে: আমি মনে করি এই বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন সব বিষয়াবলি পড়ানো হবে যার গবেষণাগার হবে সুন্দরবন ও আশপাশের এলাকা। উদ্ভিদবিদ্যা, প্রাণিবিদ্যা, মৎস্য ও সমুদ্র সম্পদ বিজ্ঞান, দূর্যোগ ব্যবস্থপনা, পরিবেশ বিজ্ঞান, সমুদ্র বিজ্ঞান, নদী ব্যবস্থাপনা, বণ্যপ্রাণী বিজ্ঞান, ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা, ট্যুরিজম এ্যন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট, পানি সম্পদ ইঞ্জিনিয়ারিং, নৌস্থাপত্য ও সামুদ্রিক ইঞ্জিনিয়ারিং, জৈব চিকিৎসা প্রকৌশল, বনশিল্প ও কাষ্ঠ প্রযুক্তি, জৈব প্রযুক্তি ও জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং, মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিজ্ঞান, উপকূল অধ্যয়ন ও অভিযোজন বিদ্যা ইত্যাদি বিষয়গুলো এখানে পড়ানো যেতে পারে। যেখানে ব্যবহারিক জ্ঞান অর্জনের অবারিত সুযোগ থাকবে প্রাকৃতিক ল্যাবরেটরি সুন্দরবনে। পৃথিবীর বিস্ময় সুন্দরবনকে ল্যাবরেটরি হিসেবে পাওয়ার এই বিরল সুযোগের কারণে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে শিক্ষার্থীরা আসবে এখানে, আর বিশ্ববিদ্যালয়টি একটি অনন্যসাধারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিতি পাবে সর্বত্র!

বিভিন্ন সময়ে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়াসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়সমূহে গবেষণারত দেশি-বিদেশি অনেক গবেষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দকে সুন্দরবন এলাকায় তাদের গবেষণার বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের জন্য আসতে দেখেছি।

আমাদের দেশের বিশিষ্ট জলবিজ্ঞানী আইনুন নিশাত স্যারও তার গবেষণা ও উপাত্ত সংগ্রহের কাজেও এই এলাকায় দীর্ঘদিন অবস্থান করেছেন। এসব কারন বিবেচনা করে বিশ্ববিদ্যালয়টি সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকায় প্রতিষ্ঠা করা হলে সেটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে যেমন শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করবে একই সাথে পর্যটন শিল্পের বিকাশেও অনন্য ভূমিকা পালন করবে।

উজ্জ্বল মন্ডল

 

উজ্জ্বল মন্ডল, আইন বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জ


স্বপ্ন দেখি ইতিহাস-ঐতিহ্যের ধারক বাহক সাতক্ষীরাতে সুন্দরবন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা হবে:
বাংলাদেশের ফুসফুস সুন্দরবনকে নিয়ে গবেষণা করার এখনই সময় আমাদের। বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরার সিংহভাগ এলাকাজুড়ে সুন্দরবন। সুতরাং সাতক্ষীরা জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে সুন্দরবনকে গবেষণাগার হিসেবে গড়ে তোলা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, প্রশংসনীয় উদ্যোগ হবে বলে বিশ্বাস করি। কারণ পৃথিবীর বৃহত্তম ম্যানগ্ৰোভ ফরেস্ট সুন্দরবনের নামে সুন্দরবন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা অত্যন্ত সময়োপযোগী ও যুগান্তকারী পদক্ষেপ হবে।

সুন্দরবন এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হলে বাংলাদেশ পৃথিবীর মানচিত্রে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে কারণ পৃথিবীর কোন দেশ আজও প্রাণ-প্রকৃতিকে ভালোবেসে কোন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেনি, গড়ে তুলিনি কোন উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আশা করি আমাদের নীতিনির্ধারক পর্যায়ের কর্তাব্যক্তিরা বিষয়টি আমলে নিয়ে কার্যকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

সমীরন মন্ডল

 

সমীরন মন্ডল, জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

জেলাবাসী আধুনিকতার মানদন্ডে গড়িত সুন্দর ও পরিবেশবান্ধব বিদ্যাপীঠ পাবে: বর্তমান বিশ্বায়নের যুগে শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম।সাতক্ষীরা জেলাধীন ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসেবে ইতোমধ্যে সুন্দরবনকে আওতায় আনা হয়েছে। সুন্দরবনকে বর্তমান বাংলাদেশের ফুসফুস বলা হয়।

তারই যোগ্য স্বীকৃতিস্বরূপ সুন্দরবন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা এখন সময়ের দাবি। এর মাধ্যমে সাতক্ষীরা জেলাবাসী বর্তমান বিশ্বের শিক্ষাব্যবস্থায় আধুনিকতার মানদন্ডে গড়িত সুন্দর ও পরিবেশবান্ধব বিদ্যাপীঠ পাবে। এটা সাতক্ষীরাবাসীর জন্য অনেক গর্বের ও আকাশছোঁয়া স্বপ্ন পূরনের মতোই।

আহসানুর রহমান আসিফ

 

আহসানুর রহমান আসিফ, আল-ফিকহ্ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়

ঐতিহ্য রক্ষায় সুন্দরবন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা সময়ের দাবি: খুলনা বিভাগের শিক্ষাখাতে অবহেলিত একটি জেলা সাতক্ষীরা। যেখানে উচ্চশিক্ষার জন্য মানসম্মত কোন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ছিলনা। জেলার বাসিন্দাদের বহুদিনের প্রত্যাশা ছিল উচ্চশিক্ষার জন্য একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা। সাতক্ষীরা জেলাটি রাজধানী শহর থেকে অনেক দূরে থাকায় এই জেলার শিক্ষার্থীরা উচ্চশিক্ষার সুযোগ থেকে পিছিয়ে আছে, যার ফলে জেলায় শিক্ষার হার ও সচেতনতা কম। তাই এই জেলায় একটি মানসম্মত সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা সময়ের দাবী হয়ে উঠেছিল।

দেরীতে হলেও জেলাতে একটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সময়োপযোগী সিদ্ধান্তের জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। তবে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি সুন্দরবনকে গবেষণার জন্য সুন্দরবনের অদূরে প্রতিষ্ঠিত হলে একই সাথে পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় হবে অপর দিকে সুন্দরবনকে সারা পৃথিবীর মানুষের জানার সুযোগ করে দিবে। যেটা জেলার শিক্ষাখাতে আমূল পরিবর্তন ও মানসম্মত উচ্চশিক্ষার চাহিদা পুরণের জন্য সহায়ক হবে বলে আশা রাখি।

অটল মন্ডল

 

অটল মন্ডল, কেমিকৌশল বিভাগ, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

সুন্দরবন কেন্দ্রিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা হোক: নিঃসন্দেহে বিশ্ববিদ্যালয় যেকোনো জাতির পরিচয় ও ঐতিহ্য বহন করে। আর আমাদের সাতক্ষীরা জেলার মতো অবহেলিত অঞ্চলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা একটা মহত্ত্ব উদ্যোগ হবে।

সুন্দরবন বাংলাদেশের জন্য একটা বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী পর্যটন কেন্দ্র ও প্রাকৃতিক সম্পদ, তাই এই এলাকায় সুন্দরবন কেন্দ্রিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে পরিচিত বহন করতে আরো একধাপ এগিয়ে দিবে। পরিশেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে সবিনয় অনুরোধ করছি, সাতক্ষীরা জেলায় অতিসত্বর সুন্দরবন বান্ধব বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার জন্য।

মোঃ সুমন হাসান

 

মোঃ সুমন হাসান, মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

জ্ঞান চর্চার নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে: বিশ্বের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন হওয়া সত্ত্বেও সুন্দরবনের এন্ডেমিক ফ্লোরা- ফনা এবং এই বনের অর্থনৈতিক প্রভাব নিয়ে বাংলাদেশে পর্যাপ্ত গবেষণা হয়নি। এখানে একটি বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হলে সেখানে পরিবেশ, জীব, ভূ, সমুদ্রবিজ্ঞান কিংবা জলবায়ু বিষয়ে গবেষণার দ্বার উন্মোচিত হবে।যেটা বাংলাদেশের জন্য বিরল দৃষ্টান্ত হবে কারণ এর আগে দেশে কোন বিশেষ এলাকাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের নজির নেই।

ফলে সুন্দরবন বিশ্ববিদ্যালয় অন্য সব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্বতন্ত্র হবে পাশাপাশি দেশের দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলের বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীর উচ্চশিক্ষার চাহিদা মেটাতে ভূমিকা রাখবে।

দীপন মন্ডল

 

দীপন মন্ডল, বাংলা বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

বিশ্ববিদ্যালয়টি উন্নত বিদ্যাপীঠ ও গবেষনা কেন্দ্র হয়ে উঠবে: সুন্দরবন হল বাংলাদেশের ফুসফুস, সুন্দরবন দিনদিন নাজুক অবস্থায় পতিত হচ্ছে একে রক্ষা করা প্রয়োজন। রক্ষার জন্য প্রয়োজন সুন্দরবন সম্পর্কে জানা এবং সকলকে এর গুরুত্ব সম্পর্কে মানুষকে জানানো।

এর জন্য প্রয়োজন উন্নত একটা বিদ্যাপীঠ ও গবেষনা কেন্দ্র। এছাড়াও সাতক্ষীরা জেলায় সুশিক্ষার জন্য কোন উন্নত প্রতিষ্ঠান নেই, সেজন্য সাতক্ষীরা জেলাতে সুন্দরবন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জোর দাবি জানাচ্ছি।

নাসিম বিল্লাহ

 

নাসিম বিল্লাহ, আইন ও বিচার ডিসিপ্লিন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়

গবেষণার দ্বার খুলবে দক্ষিণবঙ্গে: বাংলাদেশের দক্ষিণে অবস্থিত উপকূল অঞ্চল এই সাতক্ষীরা জেলা। এখানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা ছিল সময়ের দাবি। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ উন্নয়নে এই জেলা এগিয়ে রয়েছে। এখানে পাওয়া যায় হোয়াইট গোল্ড বা সাদা চিংড়ি যেটা বাংলাদেশের বৈদেশিক বাণিজ্য ও কর্মসংস্থানে অপরিসীম ভূমিকা পালন করে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হলে এখানে অসংখ্য গবেষণার দ্বার খুলে যাবে। লবণাক্ততা, মাছ চাষ, বিশেষ করে সুন্দরবন নিয়ে গবেষণা হবে যেটা আমাদের দেশের জন্য সবচেয়ে কল্যাণকর বিষয় হবে।

ঢাকা, ২০ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।