শ্রমিক মৃত্যুর গুজবে গাজীপুরে বিক্ষোভ, ভাঙচুর


Published: 2018-11-01 16:55:39 BdST, Updated: 2018-11-18 00:08:41 BdST

গাজীপুর লাইভ: পোশাক কারখানার এক শ্রমিক মৃত্যুর গুজবে কর্মবিরতি করে বিক্ষোভ করেছে শ্রমিকরা। এসময় তারা গাজীপুরের কাশিমপুরে কারখানায় ভাঙচুর চালায়। তাদের আন্দোলনে অন্যান্য কয়েকটি কারখানার শ্রমিকরা অংশ নিয়ে এসব কারখানায়ও তারা ঢিল ছুড়ে ভাঙচুর করে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কাশিমপুর ও কোনাবাড়ি এলাকার অন্তত অর্ধশত কারখানা ছুটি ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।

কোনাবাড়ি থানার ওসি এমদাদ হোসেন জানান, মিতালি গার্মেন্টেসের ঘটনায় উত্তেজিত শ্রমিকরা কাশিমপুর থেকে কোনাবাড়ির দিকে বিক্ষোভ করে আসার সময় বিভিন্ন কারখানায় ঢিল ছুড়ে ভাঙচুর করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের নিয়ন্ত্রণ করে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কোনাবাড়ি ও কাশিপুরের অনেকগুলো কারখানা ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কাশিমপুর থানার হাতিমারা এলাকায় মিতালী ফ্যাশন লিমিটেড কারখানায় মেহেদি হাসান নামে এক শ্রমিককে বুধবার কারখানার গেঞ্জি চুরির দায়ে মারধর করে হত্যা করা হয়েছে কারখানার কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এমন গুজব উঠে।

পরে ওই কারখানায় শ্রমিকরা ওইদিন বিকেলে কারখানায় বিক্ষোভ করে। একপর্যায়ে ওই শ্রমিক হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তাকে কারখানায় হাজির করা হবে পুলিশ ও কারখানার কর্তৃপক্ষ বিক্ষোভরত শ্রমিকদের আশ্বস্ত করেন। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে ওই শ্রমিককে হাসপাতাল থেকে কারখানায় আনতে দেরি হওয়ায়, মারা যাওয়ার গুজব তুলে কারখানার শতশত শ্রমিক কর্মবিরতিতে নেমে বিক্ষোভ করতে থাকে।

এসময় তারা মিতালি ফ্যাশন লিমিটেডসহ আশপাশের ডেলটা স্পিনিং, মুনটেক্স, মাল্টি ফেব্রিক্স, ডেলটা কম্পোজিটসহ অন্তত ১৫টি কারখানায় ইটপাটকেল ছুড়ে ভাঙচুর করে এবং ওইসব কারখানার শ্রমিকদের ডেকে আনে। পরে শ্রমিকরা মিছিল নিয়ে কোনাবাড়িতে এসে সড়কে অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে তারা কোনাবাড়ী এলাকায় যমুনা গার্মেন্টস, তুসুকা ও কেয়া স্পিনিং কারখানার গেট ও জানালা ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

 


ঢাকা, ১ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।