Azhar Mahmud Azhar Mahmud
teletalk.com.bd
thecitybank.com
livecampus24@gmail.com ঢাকা | রবিবার, ১৯শে মে ২০২৪, ৫ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
teletalk.com.bd
thecitybank.com
বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

দৃষ্টিনন্দন শৈল্পিক স্থাপনার নাম ‘প্রশান্তি’

প্রকাশিত: ২১ মে ২০২৩, ২২:১৩

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে দৃষ্টিনন্দন শৈল্পিক স্থাপনার নাম ‘প্রশান্তি’

বাকৃবি লাইভ: ময়মনসিংহের ব্রহ্মপুত্র নদের পাড় ঘেঁষে অবস্থিত চির সবুজে ঘেরা বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি)। ছয়টি অনুষদ রয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের। ভিন্ন ভিন্ন শৈল্পিক কাঠামো নিয়ে স্থাপিত রয়েছে প্রতিটি অনুষদে। সম্প্রতি কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান অনুষদে স্থাপিত হয়েছে নতুন এক শৈল্পিক ছাউনি। এর নাম রাখা হয়েছে ‘প্রশান্তি’। কমতি নেই যার সৌন্দর্যের।

জানা যায়, কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন অফিস সংলগ্ন স্থাপিত দৃষ্টি নান্দনিক ছাঁউনির নাম ‘প্রশান্তি’। এটি দেখতে মনে হবে যেন কাঠের তৈরি বেষ্টনির মাঝে বিশাল এক গাছের ছাঁউনি। তবে সম্পূর্ণটা করা হয়েছে কংক্রিট দিয়ে। এর ভিতরে রয়েছে বসার জায়গা ও টেবিলের মতো দেখতে স্থাপনা। ছাউনির মাঝে কাঠামোটি দেখতে যেন অবিকল গাছের মতো। সন্ধ্যায় সভাবর্ধনের জন্য লাগানো হয়েছে রঙিন যত আলোকসজ্জা। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের বসে আড্ডা কিংবা পড়াশোনা করার জন্য তৈরি করা হয়েছে বিশেষ ছাঁউনিটি। শিক্ষার্থী কাছে অন্যতম আকর্ষণ এটি।

দৃষ্টিনন্দন শৈল্পিক স্থাপনার নাম ‘প্রশান্তি’

কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. খন্দকার মো. মোস্তাফিজুর রহমান ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন,‘গত বছর ডিন হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই অনুষদে বেশ কিছু উন্নয়নমুলক কাজ করতে চেয়েছিলাম তার একটি অংশ হলো ‘প্রশান্তি’। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ক্লাসের আগে অনেক সময় ভবনের বাইওে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। এই সময়টা তাদের মনোরম পরিবেশে বসার পাশাপাশি পড়াশোনা করার জন্য তৈরী করা হয়েছে এই শৈল্পিক ছাঁউনি । কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজ বিজ্ঞান অনুষদে প্রথম বারের মতো তৈরী করা এমন একটি স্থাপনা যেখানে একসাথে প্রায় ৬০ জন শিক্ষার্থী বসে সময় কাটাতে পারবে। আশাপাশে মনোরম পরিবেশ ও ছাঁউনির শৈল্পিক কারুকার্য এক মনোরোম পরিবেশ তৈরি করে। এখানে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা বার্বি কিউ করাতে পারবে। তবে অনুমতি ছাড়া সন্ধ্যার পর এখানে থাকা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।’

তিনি আরও জানান, প্রশান্তি নামটি শিক্ষকদের সাথে একটি বৈঠকের মাধ্যমে ঠিক করা হয়েছে। স্থাপনাটি তৈরি করতে সময় লেগেছে দেড় মাস।

ঢাকা, ২১ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//আরএ//এমএফ


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

সম্পর্কিত খবর


আজকের সর্বশেষ