বিসিএস ক্যাডারের গোপন বিয়ে, স্ত্রী হতে চায় আরও ৩ ছাত্রী!


Published: 2020-07-06 19:02:39 BdST, Updated: 2020-08-06 16:02:24 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : নাদির হোসেন শামীম ৩৬তম বিসিএসে প্রশাসন ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হন তিনি। বর্তমানে ভোলা জেলায় সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট হিসাবে কর্মরত আছেন। বিসিএস ক্যাডার হওয়ার পর থেকে পরিবারের কাছ থেকেও তিনি দূরে সরে গেছেন। বাবার দাবি তার সঙ্গে বিসিএস ক্যাডার ছেলের কোন সম্পর্ক নেই।

এদিতে রোববার গোপনে বিয়ে করেছেন শামীম। এনিয়ে বাধে বিপত্তি। তিনি আরেক জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে বিয়ে করছেন এমন খবর প্রকাশ পেলে তার গোপন সম্পর্ক প্রকাশ পেতে থাকে। তিনি নাকি এর আগেও বিয়ে করেছেন। স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবি জানিয়েছেন ৩ ছাত্রী। এদের মধ্যে একজন বিয়ের দাবিতে ওই বিসিএস ক্যাডারের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন। আরেক ছাত্রী রোববার ভোলা জেলা প্রশাসক বরাবরে অভিযোগ দেন এবং ওই বিসিএস ক্যাডারকে স্বামী হিসেবে দাবি করেন। আরেক ছাত্রী চান স্ত্রীর স্বীকৃতি। এক ম্যাজিস্ট্রেটকে ৩ ছাত্রীর স্ত্রীর স্বীকৃতি দাবি করায় এ নিয়ে ময়মনসিংহের গৌরীপুর শহরজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, ৩৬তম বিসিএস ক্যাডার নাদির হোসেন শামীম ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার ২নং গৌরীপুর ইউনিয়নের পশ্চিম শালীহর গ্রামের আব্দুল কদ্দুসের ছেলে।
নাদির হোসেন শামীমের সঙ্গে সাতক্ষীরার আরেক জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের বিয়ের সিদ্ধান্ত হয়। রোববার (৫ জুলাই/২০২০) ঢাকায় এ বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। এ খবর শোনে স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবিতে শনিবার সন্ধ্যায় এক ছাত্রী গৌরীপুর পৌর শহরের উত্তরবাজার মহল্লায় নাদির হোসেন শামীমের বাবার ভাড়া বাসায় অবস্থান নেন। খবর পেয়ে পুলিশ, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ও এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে যান।

এ সময় আব্দুল কদ্দুছ জানান, তার ছেলে সঙ্গে তাদের পারিবারিক সম্পর্ক নেই। এই নারীর সঙ্গে তাদের ছেলের কোন সম্পর্ক আছে কি না; তা তিনি জানেন না।

অপরদিকে এই ম্যাজিস্ট্রেটের বিয়ের খবরে চট্টগ্রামের আরেক নারীও শামীমের স্ত্রী দাবি করেন। ওই নারী জানান, তার সঙ্গে মুনশী দিয়ে ধর্মীয় শরীয়া মোতাবেক বিয়ে করে আড়াই বছর ঘরসংসারও করেছেন। তিনি এ অভিযোগটি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও থানা প্রশাসকেও অবহিত করেছেন। লিখিত অভিযোগে জানা যায়, নাদির হোসেন শামীমের সঙ্গে ২০০৭সালে তার সম্পর্ক হয়। সে সময় তিনি গৌরীপুর সরকারি কলেজ হোস্টেলে থেকে লেখাপড়া করতেন। মেয়েটি তখন ৮ম শ্রেণির ছাত্রী। সেই থেকে প্রেম ও ময়মনসিংহ শহরে নিয়ে একাধিক স্থানে এ মেয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক হয়।

এর আগে গত ২০ ফেব্রুয়ারি আরেক ছাত্রী বিয়ের দাবিতে নাদির হোসেন শামীমের বাবার রেলওয়ে স্টেশন এলাকার ভাড়া বাসায় অবস্থান নেন। সেসময় শামীমের বাবা উল্টো ওই ছাত্রীর বিরুদ্ধে গৌরীপুর থানায় সাধারণ ডায়রি করেন।

গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ বোরহান উদ্দিন জানান, গৌরীপুর উত্তর বাজার এলাকায় বিয়ের দাবিতে এক নারী অবস্থান নিয়েছে। খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। বিষয়টি উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষ ও ভোলার জেলা প্রশাসক স্যারকে অবহিত করা হয়েছে।

 

ঢাকা, ০৬ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।