যবিপ্রবিতে নানা আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালন


Published: 2021-03-07 19:53:17 BdST, Updated: 2021-04-12 04:02:41 BdST

যবিপ্রবি লাইভ: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম নিয়ে পুস্তক প্রদর্শনী, শিশু-কিশোরদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, চিত্রাঙ্কন ও ভাষণ প্রতিযোগিতাসহ নানা আয়োজনে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালন করা হয়েছে।

সূর্যোদয়ক্ষণে যবিপ্রবির প্রশাসনিক ভবনের সামনে জাতীয় ও বিশ্ববিদ্যালয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের কর্মসূচি শুরু হয়। সকাল পৌনে ৮টায় যশোর শহরের বকুলতলায় অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে নিয়ে যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

বঙ্গবন্ধুর ম্যুারালে পুষ্পস্তবক অর্পণ

 

এরপরে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা বঙ্গবন্ধুর ম্যুারালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। একইসঙ্গে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তা সমিতি ও কর্মচারী সমিতির নেতৃবৃন্দ জাতির পিতার ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। যবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতিসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনও বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। সকাল সাড়ে ৯টায় শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন। অনুরূপভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য সংগঠনসমূহও একইসময়ে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।

সকাল পৌনে ৯টায় যবিপ্রবির কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে অবস্থিত ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’-এ বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম নিয়ে পুস্তক প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়। সেখানে বঙ্গবন্ধুর লেখা ও তাঁকে নিয়ে লেখা বিভিন্ন বই প্রদর্শিত হচ্ছে। সকাল সোয়া ১০টায় যবিপ্রবির ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয় চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা।

পুস্তক প্রদর্শনীর উদ্বোধন

 

যবিপ্রবির কেন্দ্রীয় গ্যালারিতে দুপুর ১২টায় বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা ঘোষণাপত্রের উপর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এরপর শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ভাষণ প্রতিযোগিতা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে এসব অনুষ্ঠানে যবিপ্রবির বিভিন্ন বিভাগের ও যবিপ্রবি স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতার ফলাফল ঘোষণা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ ছিল বাঙালি জাতির প্রেরণার উৎস। স্বাধীনতা যুদ্ধের গতি-প্রকৃতি ও নির্দেশনা তিনি এই ভাষণের মাধ্যমে দিয়ে গেছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের দিয়ে গেছেন একটি স্বাধীন ভূখণ্ড। এ জন্য তাঁকে আমাদের সব সময় স্মরণ করতে হবে। অন্তরাত্মা দিয়ে ধারণ করতে হবে। তা না হলে আমরা অকৃতজ্ঞ জাতিতে পরিণত হবো।

চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা

 

তিনি বলেন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এ অঞ্চলের আলোকবর্তিকা হয়ে যেন বঙ্গবন্ধুর চিন্তা-চেতনা ও আদর্শ ছড়িয়ে দিতে পারে, এ জন্য আমাদের কাজ করে যেতে হবে। স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও মুজিব বর্ষের ভাবগাম্ভীর্য বজায় রেখে সকল কর্মসূচি পালন করতে হবে।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন যবিপ্রবির শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মোহাম্মদ তোফায়েল আহমেদ, জ্যেষ্ঠ শিক্ষক অধ্যাপক ড. মোঃ আনিছুর রহমান, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক ড. মোঃ আলম হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের সহকারী পরিচালক ফারহানা ইয়াসমিন ও পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ফরিদ আহমেদ।

পুরস্কার বিতরণী

 

এদিকে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে যবিপ্রবির কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে শিক্ষকদের দুই দলের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয় একটি প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ। সব মিলিয়ে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দিনব্যাপী মুখর ছিল যবিপ্রবি প্রাঙ্গণ। দিনব্যাপী এসব অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যবিপ্রবির ডিনবৃন্দ, চেয়ারম্যানবৃন্দ, দপ্তর প্রধানবৃন্দ, শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

ঢাকা, ০৭ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।