ওয়েবসাইট বিড়ম্বনায় ইবির ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা


Published: 2020-01-15 16:04:44 BdST, Updated: 2020-02-21 18:01:42 BdST

ইবি লাইভঃ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথমবষে ভর্তির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট। কাছের বা দূরের সব ভর্তিচ্ছুর তথ্যের ভান্ডার বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট।

তবে ভর্তি সংক্রান্ত সকল তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ওয়েবসাইট (www.iu.ac.bd/admission) বাদেও একাধিক ওয়েবসাইটের কারণে ভর্তিচ্ছুরা বিভ্রান্তিতে পড়ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও ভর্তি সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবাসাইটে না দিয়ে ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে জানানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে (www.iu.ac.bd/admission) এবং (http://iu.bigmsoft.com) ওয়েবসাইট অনুসরণ করার কথা বলা হয়। তবে পরে এ ওয়েবসাইটের বাইরে (http://admission.iu.ac.bd/) মাধ্যমে ভর্তির আবেদন ও বিভাগ পছন্দসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রায় সকল ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার কথা বলা হচ্ছে।

এছাড়াও এ ওয়েবসাইটে বিভিন্ন গুরত্বপূর্ণ নোটিশ প্রকাশ করা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়ায় এই তিন ওয়েবসাইট ব্যবহারে বিভ্রান্তিতে পড়তে হচ্ছে ভর্তিচ্ছুদের। সঠিক তথ্য না পেয়ে নানা ঝামেলায় পড়তে হচ্ছে তাদের। এছাড়াও কিছু তথ্য ওয়েবসাইটে না দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন গ্রুপে প্রকাশিত বিভিন্ন তথ্যে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ছে।

খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত সকল নোটিশ (www.iu.ac.bd/admission) এই ওয়েবসাইটে প্রথমে প্রকাশ করা হলেও পরে সকল কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয় (http://admission.iu.ac.bd/) ওয়েবসাইট থেকে।

পরে মেধা তালিকায় ভর্তির পরবর্র্তী নোটিশগুলো প্রকাশ করা হচ্ছে (www.iu.ac.bd/admission) এই ওয়েবসাইটে। সরেজমিনে দেখা যায়, এই দুই ওয়েবসাইটে নোটিশ প্রকাশ করা হলেও কোন ওয়েবসাইটেই ভর্তি সংক্রান্ত সব নোটিশ নেই। বিভিন্ন সময় ভিন্ন ভিন্ন ওয়েবসাইটে আলাদা-আলাদা নোটিশ প্রকাশ করা হয়েছে।

আবার এ ওয়েবসাইটের বাইরে বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপে ভর্তি সংক্রান্ত সর্বশেষ বিভিন্ন তথ্য প্রদান করা হচ্ছে। যা ওয়েবসাইটে পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে এসব গ্রুপে সংযুক্ত না থাকায় সব তথ্য পাচ্ছেনা বলে জানিয়েছে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা।

অপেক্ষামান তালিকায় ভাইভা দিতে আসা এক শিক্ষার্থী জানান, ‘সর্বশেষ গত ১৮ ডিসেম্বর (www.iu.ac.bd) ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারি ‘বি’ ইউনিটের অপেক্ষামান শিক্ষার্থীদের ভাইভা ১৪ জানুয়ারী এবং একই দিনে ভর্তি সম্পন্ন করতে হবে।

কিন্তু ভাইভা শেষে জানানো হয়, আগামী ১৯ তারিখের মধ্যে ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। আমরা ভর্তি সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ সকল তথ্যগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ওয়েবসাইটে পাচ্ছি না, কিন্তু ফেসবুক গ্রুপে এটা জানানো হচ্ছে।’

যশোর থেকে ‘সি’ ইউনিটের অপেক্ষামান তালিকা থেকে ভাইভা দিতে আসা এক শিক্ষার্থী জানান, কোন শিফটে কত আসন ফাঁকা আছে সেটা ওয়েবসাইটে জানানো হয়নি। ফলে আসন সংখ্যা নিয়ে আমরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছি।

রাজশাহী থেকে আসা হাসিবুর রহমান নামের আরেক ভর্তিচ্ছু অভিযোগ করেন, ‘আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে অপেক্ষামান তালিকার ভাইভার ডেট জানতে পারিনি। পরে ফেসবুক গ্রুপে জেনে ভাইভাতে উপস্থিত হই।’

সার্বিক বিষয়ে ভর্তি পরীক্ষার টেকনিক্যাল উপ-কমিটির সদস্য সচিব প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন বলেন, ‘শেষমুহুর্তে তাড়াহুড়ার কারণে সব তথ্যগুলো ওয়েবসাইটে সময়মতো দেওয়া সম্ভব হয়নি। এখন থেকে স্ব-স্ব ইউনিট কর্তৃক পাঠানো সব নোটিশগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে দেয়া হচ্ছে।’

ঢাকা, ১৫ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।