ভর্তিচ্ছুদের পাশে ইবি ছাত্রলীগ


Published: 2018-11-04 18:24:24 BdST, Updated: 2018-11-18 01:52:44 BdST

ইবি লাইভ: বিভিন্ন সহায়তা ও সেবা নিয়ে ভর্তিচ্ছুদের পাশে দাড়িয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগ। ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক ১ম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ক্যাম্পাসে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

সম্প্রতি একটি ঘটনায় ইবি শাখা ছাত্রলীগের সকল প্রকার সাংগঠনিক কাজ স্থগিত রাখার নির্দেশ দেয় কেন্দ্রীয় কমিটি। এতে ভর্তি পরীক্ষার মত একটি মহাযজ্ঞে কাজ করতে না পারায় নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক হতাশা আর ক্ষোভ দেখা দেয়। পরে কেন্দ্রীয় কমিটির এক মৌখিক অনুমতিতে তিন দিনের জন্য ভর্তি পরীক্ষায় কাজ করতে পেরে নেতাকর্মীদের মধ্যে উচ্ছ্বাস ও উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার অনুমোদন পাওয়ার পর থেকেই ফেসবুক সহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভর্তিচ্ছুদের সহযোগীতায় স্টাটাস দিতে দেখা যায়। এতে থেমে নেই তাদের অফলাইনে মাঠের কাজও। নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে জনা গেছে তাদের কর্মসূচির কথা।

ছাত্রলীগ সূত্র জানায়, এবারের ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে শিক্ষার্থী ও অভিভাবদের জন্য বিভিন্ন সহায়তার আয়োজন করেছে সংগঠনটি। ক্যাম্পাস গেটে প্রায় শতাধিক আসন সম্বলিত অভিভাবক কর্ণার, তথ্য সেবা কেন্দ্র, ব্যাগ, মোবাইল সহ যাবতীয় আসবাবপত্র রাখার ব্যবস্থাকরণ, শিক্ষার্থীদের ফুল ও কলম দিয়ে বরণ, ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের আবাসন ব্যবস্থায় হলে হলে হেল্পডেস্ক, মাদুর মশার কয়েল সরবরাহ, শেখ রাসেল স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র থেকে চিকিৎসা সেবা প্রদান, শিক্ষা উপকরণ বিতরণ, বর্তমান সরকারের উন্নয়ণ-অগ্রজাত্রাকে সবার মাঝে তুলে ধরতে লিফলেট বিতরণ, নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্যাম্পাসের সর্বত্র দলীয় ব্যানার টানানো সহ নানা কর্মকান্ডে ব্যস্ত আছে ছাত্রলীগ।

দিনাজপুর জেলা থেকে আগত এক শিক্ষার্থী বলেন, অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়েও ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছি কিন্তু ইবির মতো পায়নি। বিশেষ করে ছাত্রলীগের ভাইদের সার্বিক সেবার কথা স্বরণ রাখার মতো।

ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত বলেন, ‘ভর্তিচ্ছুদের যাতে কোন ধরনের অসুবিধা না হয় সেই ব্যাপারে আমরা সর্বাত্মক কাজ করে যাচ্ছি। র‌্যাগিং এবং ভর্তি জালিয়াতির বিরুদ্ধে আমরা শক্ত অবস্থান নিয়েছি। আমরা চাই গতবারের তুলনায় এবার যেন আরো ভালো সেবা দিতে পারি।’

শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান শাহিন বলেন, ‘আমরা ভর্তিচ্ছুসহ তাদের অভিভাবকদের আবাসন সমস্যাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। প্রতিটি হলে হেল্পডেস্ক স্থাপন করে তাদের আবাসন ব্যবস্থার জন্য মাদুর মশার কয়েল সরবরাহ করেছি। মেয়েদের হলেও আমরা একই ব্যবস্থা করেছি।

এছাড়া র‌্যাগিং এবং জালিয়াতির বিরুদ্ধে আমরা শক্ত অবস্থানে রয়েছি। মহাজোট সরকারের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রাকে তুলে ধরতে শিক্ষার্থী-অভিভাববকদের মাঝে লিফলেট বিতরণ করেছি।’

 

 

ঢাকা, ৪ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।