মৃত্যুর পরেও এমপি হলেন যেভাবে...


Published: 2021-10-15 18:42:47 BdST, Updated: 2021-12-02 21:56:07 BdST

লাইভ ডেস্ক: করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেড় মাস আগে মারা যান ইরাকের পার্লামেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী এক প্রার্থী। তবে গত সপ্তাহে অনুষ্ঠিত ওই নির্বাচনে বাগদাদের একটি সংসদীয় আসন থেকে ওই প্রার্থীকে জয়ী ঘোষণা করা হয়েছে। ওই প্রার্থীর নাম আনসাম ম্যানুয়েল ইস্কান্দার।

অনুষ্ঠিত হওয়া ওই নির্বাচনে তিনি পান ২ হাজার ৩৯৭টি ভোট। দেশটির খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের জন্য বরাদ্দকৃত ৫টি আসনের মধ্যে একটিতে তার এ জয় আসে।

দুই মাস আগে মারা গেলেও নির্বাচনে তাকে প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে রাখা এবং জয়ে অনেক সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারী তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ইস্কান্দারের ফেসবুক পেজে তার পরিবারের পোস্ট করা একটি স্ট্যাটাসে নিশ্চিত করা হয় যে, তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ আগস্ট মারা গেছেন।

ওই স্ট্যাটাসে মানুষের ক্ষোভের বিষয়েও আলোচনা করা হয়। জানানো হয়, ইস্কান্দারকে ‘অমর’ করে রাখতেই তাকে নির্বাচনে রাখা হয়েছে এবং তাদের বিশ্বাস, তারা যদি তাকে ভোটে না রাখত, তবে তাদের ভোটগুলো বৃথা যেত।

পরিবার একথাও জোর দিয়ে বলে যে, যদিও কেউ কেউ তার মৃত্যুর কথা জানত না, তবে সে নির্বাচিত হয়েছে কারণ নির্বাচনী মাঠে সে প্রভাব ফেলতে পেরেছিল। মানবতা ও তরুণদের পক্ষে অবস্থানের কারণেই তার এমন ফলাফল এসেছে।

রেকর্ড কম ভোটার উপস্থিতিতে গত রোববার ইরাকে পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে ভোট পড়েছে মাত্র ৪১ শতাংশ। এ নির্বাচনে শিয়া ধর্মীয় নেতা মোকতাদা আল-সদরের দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পার্লামেন্ট স্পিকার মোহাম্মদ আল-হালবোসির তাকাদ্দুম ব্লক এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী নুরি আল-মালিকিরর স্ট্যাট অফ ল ব্লক হয়েছে তৃতীয়। সূত্র: মিডলইস্ট মনিটর

ঢাকা, ১৫ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।