অবশেষে পদত্যাগ করলেন মাহাথির মোহাম্মদ!


Published: 2020-02-24 17:41:44 BdST, Updated: 2020-12-04 17:16:20 BdST

লাইভ ডেস্কঃ নতুন সরকার গঠন করা নিয়ে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর দফায় দফায় বৈঠক ও ক্ষমতাসীন জোটে ভাঙনের জোরালো গুঞ্জনকে ঘিরে তৈরি হওয়া রাজনৈতিক অস্থিতিশীল পরিস্থিতির মাঝে অবশেষে পদত্যাগই করলেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ।

সোমবার দেশটির রাজার কাছে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন বলে এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দুটি সূত্র বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে নিশ্চিত করেছে।

বিশ্বের সব থেকে বয়স্ক ৯৪ বছর বয়সী এই প্রধানমন্ত্রী ২০১৮ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে দেশটির প্রধানমন্ত্রীর গ্রহণ করেন। তবে তার পদত্যাগের ব্যপারে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একজন মুখপাত্র কোনো মন্তব্য করতে ইচ্ছা প্রকাশ করেননি। তিনি জানান, খুব দ্রুতই এই সম্পর্কে একটি বিবৃতি প্রকাশ করা হবে।

২০১৮ সালের নির্বাচনে জয়ের পরে পাকাতান হারাপান জোটের প্রধান হিসেবে ওই বছরের ১০ মে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন মাহাথির মোহাম্মদ। বারিসান ন্যাশনাল দলের নেতা হিসেবে টানা প্রায় ২২ বছর দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন শেষে ২০০৩ সালে ক্ষমতা থেকে সরে যান তিনি।

গত কিছুদিন যাবৎ মালয়েশিয়ার ক্ষমতাসীন পাকাতান হারাপান জোটের নেতারা দফায় দফায় বৈঠক করার কারণে জোট ভেঙে যাওয়ার শঙ্কা দেখা দেয়। পাকাতান হারাপান জোটে ভাঙনের আশঙ্কা জোরালো হওয়ার ফলে বিরোধী দল উমনো অ্যান্ড পার্টি ইসলাম সে-মালয়েশিয়ার (পিএএস) নেতৃত্বে দ্রুত সময়ের মধ্যে নতুন সরকার আসতে পারে বলে জানান দেশটির রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

এর পূর্বে, রবিবার ক্ষমতাসীন পাকাতান হারাপান জোটের শীর্ষস্থানীয় নেতারা কয়েক দফায় বৈঠক করলে নতুন সরকার গঠনের আলোচনায় নতুন মাত্রা যোগ হয়। স্ট্রেইট টাইমসের এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ নেতৃত্বাধীন রাজনৈতিক দল পার্টি প্রিবুমি বারসাতু মালয়েশিয়ার (পিপিবিএম) এমপি ও নেতারা রবিবার সকালে পেটালিং জায়ায় দলটির প্রধান কার্যালয়ে ৬ ঘণ্টার রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন। 

বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে, মাহাথির মোহাম্মদের দল ও আনোয়ার ইব্রাহিমের দলের মধ্যকার একটি অংশ ইউএমএনও’র কর্মকর্তা এবং ইসলামপন্থি পিএএস পার্টির কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন। তারা নতুন একটি জোট গঠনের জন্য এই আলোচনা করেন। এতে পূর্ণাঙ্গ ৫ বছর মেয়াদের জন্য প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের প্রতি সমর্থন দিতে তাদের সহায়তা চাওয়া হয়।

একটি সূত্র জানায়, নতুন এই গ্রুপে কমপক্ষে ১১২ জন সদস্য রয়েছেন। পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতার কারণে এই সংখ্যক সদস্যের সমর্থন প্রয়োজন হয়। তাই নতুন একটি জোট গঠনের জন্য তাদের কাছে যথেষ্ট সংখ্যক সদস্য আছে।

এক্ষেত্রে দুটি সূত্র জানিয়েছেন, এমন অবস্থার ফলে একেবারে নতুন একটি নির্বাচন হলো একটি উপায়। তবে এসব বিষয়ে মাহাথিরের দল, বিরোধী ইউএমএনও, ইসলামপন্থি পিএএস ও আনোয়ার ইব্রাহিমের দলের কোনো অংশ তাৎক্ষণিকভাবে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান।

মিডিয়ার সংবাদে উল্লেখ করা হয়েছে, মাহাথির মোহাম্মদের দল, ইউএমএনও এবং পিএএস রাজার সঙ্গে রবিবার সাক্ষাত করেছে। তবে কি বিষয়ে তারা আলোচনা করেছেন সে ব্যাপারে এখনও তাৎক্ষণিকভাবে পরিষ্কার কিছু জানা সম্ভব হয়নি। রাজা চাইলে প্রধানমন্ত্রীর সুপারিশে পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে পারেন।

একজন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ বা সিনিয়র কোনো কর্মকর্তাকে নিয়োগের ব্যাপারে তার সম্মতির প্রয়োজন হয়। আরেকদিকে সোমবার রাজার সঙ্গে সাক্ষাত করার কথা রয়েছে আনোয়ার ইব্রাহিমের। তবে কি নিয়ে কথা বলবেন সে ব্যাপারে জানা সম্ভব হয়নি।

ঢাকা, ২৪ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।