খুলছে স্কুল-কলেজ, আনন্দে শিক্ষার্থীরা


Published: 2021-09-07 13:45:40 BdST, Updated: 2021-10-23 16:19:51 BdST

উমর ফারুক: পূর্ব গগণে সূর্যি মামা উঁকি দিয়ে জানান দিচ্ছে এইতো সকাল হলো এবার ঘুম থেকে উঠো। ব্রাশ করো, খেয়ে স্কুলে যেতে হবে। ঠিক প্রতিদিন ঠিক এভাবেই মায়ের ডেকে দেয়া। আর ঘুম থেকে উঠেই দৌঁড়ে ফ্রেশ হয়েই হালকা নাস্তা করেই ব্যাগ কাঁধে নিয়ে দৌঁড়ে স্কুলে যাওয়া। বন্ধুদের সাথে ক্লাস করা, খেলাধুলা, আড্ডা দেয়া। সারাদিন কত হৈ- চৈ। সারাদিন ক্লাস করে আবার আবার বাসায় এসে পড়তে বসা। মায়ের বকুনি খাওয়া!

হ্যা, বলছিলাম স্কুলে কোমলমতি শিশুদের স্কুলে কাটানোর সেই দৈনন্দিন সময়ের কথা। কিন্তু! বৈশ্বিক মহামারীর করোনা ভাইরাসের আগ্রাসনের কারণে গত বছরের ১৮ মার্চ থেকে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। এরপর পরিস্থিতি খারাপের দিকে ধাবিত হওয়াতে ছুটিও বেড়েছে ধাপে-ধাপে। সেইসাথে বেড়েছে শিক্ষার্থীদের অপেক্ষা প্রহরও। ঘরবন্দী হয়ে পরেছিলো দেশের লাখো- লাখো শিক্ষার্থী। নিয়মিত এভাবে যাওয়া হয়নি প্রিয় আঙ্গিনায়। মানসিক বিপর্যয়, অস্বস্তি, আসক্তি নানা চাপে চেপে বসেছিলো দেশের স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের।

অবশেষে অপেক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে। এসেছে খুশির বার্তা। প্রায় ১৭ মাস বন্ধ থাকার পর ১২ সেপ্টেম্বর হতে কীভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা হবে তার বিস্তারিত ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিকসহ সকল ধরণের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শ্রেণীকক্ষে পাঠদান শুরু করবে। তবে শুরুতে সব শ্রেণির ক্লাস প্রতিদিন হবে না। শুধু পঞ্চম, দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির ক্লাস প্রতিদিন হবে। প্রথম থেকে চতুর্থ শ্রেণি এবং ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণিতে সপ্তাহে একদিন করে ক্লাস হবে। এক্ষেত্রে মানতে হবে সর্বোচ্চ সতকর্তায় মানতে হবে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি।

প্রায় দেড় বছর পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার খবরে আনন্দে ভাসছে ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়িয়ার উপজেলার স্কুল, কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা। অন্যরকম আমেজ বিরাজ করছে তাদের। এতোদিন পরে সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে পারবে এমন খবরে স্বস্তি ফিরেছে ফুলবাড়িয়া উপজেলা স্কুল, কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের অভিবাবকদের।

ফুলবাড়িয়া উপজেলা সরকারী ও বেসরকারি কয়েকটি স্কুল ও কলেজ ঘুরে দেখা অনেক দিন বন্ধ থাকায় মাঠ ঘাসে ভরে গেছে। দেয়াল ছেয়ে গেছে মাকড়ার জালে। টেবিল-চেয়ারে জমেছে ধূলো-ময়লার আস্তরণ। তবে খোলার নির্দেশনায় নতুন করে ঢেলে সাজানো হচ্ছে ক্লাসরুম গুলো। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে পুরো স্কুল ও কলেজ আঙ্গিনা।

করোনায় সরাসরি ক্লাস না হওয়ার সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী অনলাইনে ক্লাস নিয়ে আসছে
ফুলবাড়িয়ার ঐতিহ্যবাহী পলাশীহাটা স্কুল ও কলেজ কর্তৃপক্ষ। আগামী ১২ সেপ্টেম্বর স্কুলের শ্রেনি কার্যক্রম চালু হবে তাই ছাত্রছাত্রীদের ইউনির্ফম প্রস্তুত করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেছে তারা।

উপজেলার হোরবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও থানাপাড়, শিবরামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে একই অবস্থা দেখা যায়। খেলার মাঠগুলো ঘাসে ডেকে গেছে। বিদ্যালয়ের দেয়াল, দরজা এমনকি জানালাগুলো ভেঙ্গে গেছে।

এদিকে, ঘরবন্দি দেড় বছর পর স্কুলে ফিরতে পারবে এমন স্বস্তি প্রকাশ করেছে উপজেলার শিবরামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী ফরহাদ হোসেন। অনেকদিন ধরে পড়াশোনা বাহিরে থাকায় জীবনে অনেক বড় প্রভাব ফেলছে সেইসাথে স্কুলে ফিরে সেই ক্ষতি কাটিয়ে উঠার পরিকল্পনা তার।

দীর্ঘ দিন পর বিদ্যালয় খোলার খবরে ফরহাদের অভিভাবক বলছেন, সরকার অনেক ভালো করেছেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার চিন্তা করে। ছেলে-মেয়েগুলো বাড়ীতে থেকে একঘুয়েমির মাঝে আছে। ওদের মানসিক অস্থিরতাও কেটে যাবে।

ময়মনসিংহ ঐতিহ্যবাহী কাতলাসেন কামিল মাদ্রাসায় পড়াশোনা করেন আব্দুর রশীদ। দেড় বছর যাবৎ কলেজ বন্ধ থাকায় দিয়েছেন মুদির দোকান। তার মতে, এতোদিন শুধু শুধু বসে থালার মানেই হয়না। অন্তত কিছু করে সময় কেঁটে যায়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার খবরে আনন্দিত হয়েছে।

শিবরামপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী ফারহানা আক্তার। স্কুল বন্ধ থাকায় বাড়ীতে বসেই পড়াশোনা করতে হচ্ছে তার। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী এসএসসি পরীক্ষার জন্য প্রতিদিন এ্যাসাইনমেন্ট করছে সে। তবে স্কুল খোলায় এবার তার মানসিকভাবে স্বস্তি ফিরে পেয়েছে। একসাথে বন্ধুদের সাথে ক্লাসে যাবে,পরীক্ষা দিবে সেইসাথে নিচের বিদ্যালয়ে ফেরার আকুলতা বিরাজ করছে।

এদিকে উপজেলার কেশরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজে এক বছর পূর্বে একাদশ শ্রেণীতে ১ম বর্ষে ভর্তি হয়েছিলেন নাজমা আক্তার। এতোদিন ধরে কলেজে ক্লাস না করতে পারার আক্ষেপ তৈরি হয়েছিলো। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার খবরে তার মনে যেনও নেমে এসেছে প্রশান্তি ছোঁয়া।

দীর্ঘ দিন পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ন্যায় স্বস্তি ফিরে এসেছে শিক্ষকদের মাঝেও। একদিন পৃথিবী থেকে হয়ত কেটে যাবে মহামারী ফিরে আসবে সোনালী সকাল। মুক্ত ভাবে শিক্ষার্থীরা ফিরবে তাদের প্রিয় আঙ্গিনায়। সরূপে ফিরবে সকল কিছু, সচল হবে গোটা বিশ্ব, এমন প্রত্যাশা সকলের।

ঢাকা, ০৭ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।