ছিনতাই নয়: জুনায়েদ গ্রুপ ও কায়েস গ্রুপফেসবুকের বান্ধবীকে নিয়ে কিশোর ছাত্রদের কোপাকুপি!


Published: 2021-06-04 17:50:09 BdST, Updated: 2021-06-18 07:48:10 BdST

শান্তনা চৌধুরী: এ কেমন দৃশ্য। সব কিছুই যেন বদলে গেছে। কিশোর বয়সেই জড়িয়ে পড়েছে প্রেমে। এখানেই শেষ নয়। ওই প্রেমকে ঘিরে দুই গ্রুপে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ পর্যন্ত গড়াল। ঘটনাটি ঘটেছে ধানমন্ডি লেকে। দুই কিশোর গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব প্রেমের কারণে। আর সেখান থেকেই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বেধেঁ যায়। যেখানে অপর পক্ষের ছুরিকাঘাতে ৩ জন আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে স্বজনরা জানিয়েছেন। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শিরা বলেছেন এদের দেখলে মনে হয় কেবল কিশোর বয়স পেরিয়ে যুব বয়সে পা রেখেছে ওরা।

এ ব্যাপারে পুলিশ জানায়, পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী বৃহস্পতিবার দুই কিশোর গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এরা অনেকটাই ভয়ঙ্কর প্রকৃতির। নানান অঘন এর আগেও তারা ঘটিয়েছে খোদ রাজধানীতে। থেকেছে বরাবরই ধরা ছোয়ার বাইরে। এরই মধ্যে এ ঘটনায় কয়েজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে ধানমন্ডি থানা পুলিশ। চলছে জিজ্ঞাসাবাদ। তবে তারা খুবই ধুর্ত প্রকৃতির। সহজেই মুখ খুলছে না।

দুই কিশোর গ্রুপ সংঘর্ষ

 

এদিকে দুই কিশোর গ্রুপের দ্বন্দ্বে রাত থেকেই ঢাকা মেডিকেল থেকে ধানমন্ডি থানা, দুই গ্রুপের স্বজনদের উপস্থিতি। কেউ মুখ খুলতে চান না কী হয়েছে, কেন এই ঘটনা ঘটলো। সকলেই যেন এড়িয়ে এড়িয়ে যায়? বিভিন্ন সূত্রে জানা যায় দুই গ্রুপের সবাই রাজধানীর ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুরসহ বিভিন্ন এলাকার অভিজাত পরিবারের সন্তান। এরা আদরের দুলাল। ধনীর দুলাল।

এদিকে ধানমন্ডি থানায় আটক থাকা এমন ৩ জনের অভিভাবক বলেন, আমরা কিছুই জানি না, ছেলেকে পুলিশ থানায় নিয়ে এসেছে। এ খবর পেয়েই আসলাম। সবাই ছাত্র। পড়াশোনা করে। বন্ধু আহত হওয়ার পর তারাই উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেছে। এর বাইরে কিছুই জানি না। মুখ খুলছে হিসাব-নিকাস করে।

পুলিশ জানায়, ফেসবুকে এক মেয়ের সঙ্গে পরিচয় হয় দুই গ্রুপের। যারা সবাই কলেজের ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী। একজন মেয়ে দুই গ্রুপের একাধিক ছেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে এমন অভিযোগ নিয়ে দ্বন্দ্ব ছিল আগে থেকেই। দুই গ্রুপের পরিকল্পনা অনুযায়ী ধানমন্ডির স্থানীয় জুনায়েদ এবং অপর পক্ষ কায়েস এবং মিরাজ গ্রুপ বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের বন্ধুদের নিয়ে আসে মামারারি করার জন্য।

পুলিশ আরো জানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ধানমন্ডি লেকে অবস্থান নিলে জুনায়েদ গ্রুপের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে প্রতিপক্ষের তিনজন আহত হন। যাদের মধ্যে সৌরভের অবস্থা আশঙ্কাজনক। প্রতক্ষ্যদর্শীরা বলছেন, দুই গ্রুপের প্রায় ২০ জনের বেশি সদস্য ধারালো অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষ জড়িয়ে পড়ে। আশে পাশের লোক অবাক হয়ে কেবলই তাকিয়ে ছিলো। কেউ মুখ খুলেনি।

প্রত্যক্ষদর্শি একজন ফুল বিক্রেতা বলেন, এইপাশ থেকে ১৫-২০ জনের একটা গ্রুপ বলছে ধর ধর। অন্য পাশ থেকে আরেকটা গ্রুপ বলছে ধর ধর পরে একজনের হাতে দেখলাম বড় রকমের জখম হয়েছে। আরেক জনের পেট এবং পিঠে গভীর ক্ষত হয়েছে। পুরো লেকে রক্তের দাগ লেগে আছে। যারা এখানে এসেছেন সবাই বয়সে তরুণ।

এদিকে আরেক জন শরবত বিক্রেতা জানান, দেখলাম একটা ছেলে পড়ে আছে। কয়েকজন মেয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে গেল। কোথায় নিয়ে গেল আমি বুঝতে পারিনি।

ধানমন্ডি থানার ওসি ইকরাম আলী মিয়া বলেন, এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত একাধিক যুবককে আটক করা হয়েছে। পুরো বিষয়টি তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরো জানান, ওই ছেলেরা সবাই ছাত্র। দেখলে মনে হয় এরা কিশোর বয়স শেষ করে যুব বয়সে কেবল ঢুকেছে।

ঢাকা, ৪ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।