ছাত্রীকে শিক্ষকতার প্রলোভন, আপত্তিকর বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার!


Published: 2018-09-12 12:48:34 BdST, Updated: 2018-11-17 11:03:32 BdST

বরিশাল লাইভ : বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের আপত্তিকর ভিডিও নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। রেজিস্ট্রারের এমন কাণ্ডে বিব্রত খোদ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনও। তার বিচার দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতিও। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার চাকরির জন্য আসেন এক ছাত্রী। কিন্তু তার চাকরি না হওয়ায় তিনি রেজিস্ট্রারের শরণাপন্ন হন। এসময় রেজিস্ট্রার তাকে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে সম্পর্ক গড়ে তুলেন। একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে আপত্তিকর প্রস্তাব দেন। রেজিস্ট্রারের সেই নগ্ন ভিডিও ফাঁস হয়ে গেলে এনিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। ডাকযোগে ওই ভিডিও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কয়েক কর্মকর্তার কাছেও পাঠানো হয়েছে। তবে ওই ভিডিওটি এডিট করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার মনিরুল ইসলাম।

সূত্র মতে, কামরুজ্জামান কবির নামে জনৈক এক ব্যক্তি ডাকযোগে সংবাদকর্মীদের কাছে ভিডিও সিডি ও একটি চিরকুট প্রেরণ করেন। ওই ভিডিও সিডিতে নগ্ন ভিডিওর বিষয়টি দেখা গেছে। বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্টরা জানান, ওই ভিডিওতে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার মনিরুল ইসলামকে দেখা গেছে নগ্ন অবস্থায়। এসময় তিনি ওই ভিডিওতে নানা অশ্লীল ইঙ্গিতও করেন। এদিকে ওই ভিডিও সিডির সঙ্গে দেয়া একটি চিরকুট পাঠিয়েছেন কামরুজ্জামান কবির নামের ওই ব্যক্তি। ওই চিরকুটে লেখা রয়েছে ইতিপূর্বে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে নারী সহকর্মীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছিল। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা অন্যায়, অনিয়ম, দুর্নীতি ও নিয়োগ বানিজ্যসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরেও তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ রয়েছে। এত অভিযোগ থাকা সত্বেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এঅবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরাও ভীতিকর পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে নিযাপন করছেন। ডাকযোগে পাঠানো চিরকুটটিতে রেজিষ্ট্রার মনিরুল ইসলামকে বহিষ্কারের দাবিও তোলা হয়।

রেজিষ্ট্রার মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘একটি মহল, যারা আমার কাছ থেকে সুবিধা নিতে পারেনা তারাই এই কাজটি করেছে আমাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য। এই ভিডিওটি সম্পূর্ণ এডিট করা। ভিডিওটি আমিও দেখেছি। এটা শুধু আমার ক্ষেত্রেই নয়, দেশের অনেক প্রথিতযশা লোককে নিয়ে এমন মিথ্যা ফেইক ভিডিও তৈরি করা হয়েছে।

এদিক নগ্ন ভিডিও ফাঁসের ঘটনায় রেজিস্ট্রারের বিচার দাবি করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। মঙ্গলবার বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো: ইব্রাহিম মোল্লা ও সাধারণ সম্পাক আবু জাফর মিয়া স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তারা আপত্তিকর ও অনৈতিক কর্মকাণ্ডের কারণে রেজিস্ট্রারের বিচার দাবি করেন।

বিবৃতিতে তারা জানান, বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার মো: মনিরুল ইসলামের নগ্ন ভিডিও ফাঁসের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি জরুরি সাধারণ সভার আয়োজন করে। সভায় ওই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মান ক্ষুন্ন হয়েছে বলে জানান সমিতির নেতারা। এছাড়া এমন চরিত্রহীন অনৈতিক রেজিস্ট্রারের সাথে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী এমনকি কোমলমতি ছাত্রীরাও নিরাপদ ও স্বাচ্ছ্যন্দবোধ করবেন না বলে জানান সমিতির নেতারা। রেজিস্ট্রার যা করেছেন তা বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০০৬ (২০১৩ সালে সংশোধিত) এর ৪৪(৬) নং ধারা অনুযায়ী নৈতিক স্খলন একটি অমার্জনীয় অপরাধ।
সভায় নেতৃবৃন্দ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়েরর সম্মান অক্ষুন্ন রাখার জন্য এহেন কর্মকান্ডের সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে দ্রুত বিচার নিশ্চিত করে এই ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক সমাধান স্থাপনের দাবি জানান।

ঢাকা, ১২ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।