teletalk.com.bd
thecitybank.com
livecampus24@gmail.com ঢাকা | সোমবার, ৩০শে জানুয়ারি ২০২৩, ১৭ই মাঘ ১৪২৯
teletalk.com.bd
thecitybank.com

ফারদিন হত্যা: তদন্তের দ্রুত অগ্রগতির দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ৬ ডিসেম্বার ২০২২, ১৬:১২

তদন্তের দ্রুত অগ্রগতির দাবিতে মানববন্ধন

বুয়েট লাইভ: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থী ফারদিন নুর পরশ হত্যাকাণ্ডের তদন্তের দ্রুত অগ্রগতির দাবি জানিয়েছেন তার সহপাঠীরা। এদিকে ফারদিন হত্যায় র‍্যাব এবং ডিবি ভিন্ন তথ্য দিয়েছে। এতে বিভ্রান্তিতে পড়েছেন পরিবার ও বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এমন পরিস্থিতিতে ছেলে হত্যার বিচার চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন ফারদিনের বাবা নুর উদ্দিন রানা।

মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) দুপুর ১টায় বুয়েটের শহীদ মিনারের সামনে ফারদিন হত্যাকাণ্ডের দ্রুত তদন্তের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন শেষে ফারদিন হত্যার বিচার চেয়ে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেন বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, গত ৪ নভেম্বর বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ফারদিন নিখোঁজ হন। পরে ৭ নভেম্বর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরের দিন ৮ নভেম্বর ফারদিনের ময়নাতদন্ত শেষে চিকিৎসক জানান, তার বুকে এবং মাথায় অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

তারা বলেন, প্রায় ১ মাস অতিবাহিত হতে যাচ্ছে ফারদিনের মরদেহ উদ্ধারের। কিন্তু এখন পর্যন্ত এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন হয়নি। এমনকি হত্যাকারীদেরও চিহ্নিত করা যায়নি। আমরা প্রথম থেকেই এই হত্যাকাণ্ডের দ্রুত তদন্তের জন্য দাবি জানিয়ে আসছি। তবে দুঃখজনকভাবে আজ ফারদিনের মরদেহ উদ্ধারের ২৯তম দিনে এসেও আমরা জানতে পারলাম না কী কারণে আমাদের বন্ধুকে হত্যা করা হলো। এদিকে তদন্তের সময় দীর্ঘায়িত হওয়ায় বুয়েট শিক্ষার্থীরা আশাহত হয়েছেন বলেও জানান বক্তারা।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, ইতোমধ্যে এই মামলার তদন্তকারী সংস্থা ডিবি এবং ছায়া তদন্তকারী সংস্থা র‍্যাবের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে আসা পরস্পরবিরোধী তথ্য দেখে আমরা বিভ্রান্ত। আমরা খুনীদের শনাক্ত করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে গ্রেফতার এবং তাদের বিচারের আওতায় আনার জোর দাবি জানাচ্ছি।

এসময় কান্নাজড়িত কণ্ঠে ফারদিনের বাবা নুর উদ্দিন বলেন, প্রায় এক মাস পেরিয়ে গেছে কিন্তু এখন পর্যন্ত আমার ছেলের হত্যা রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি তদন্তকারী সংস্থা। আমার মতো বুয়েটের শিক্ষকরাও ফারদিনের অভিভাবক। কিন্তু এ বিষয়ে তাদের কোন ভূমিকা দেখছি না। এখন পর্যন্ত তারা তদন্তকারী সংস্থার কাছ থেকে কিছু জানতে চায়নি।

তিনি বলেন, আমার ছেলের মতো বুয়েটের আর কোনো শিক্ষার্থীকে যেন এভাবে হত্যাকাণ্ডের শিকার না হতে হয়। এসময় তিনি ছেলেকে হত্যার বিচার চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

ঢাকা, ০৬ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

সম্পর্কিত খবর


আজকের সর্বশেষ