ফুল-কলম দিতে এসে ছাত্রদল-ছাত্রলীগের হাতাহাতি, আহত ২


Published: 2021-10-17 18:59:44 BdST, Updated: 2021-11-28 06:06:40 BdST

জবি লাইভ: গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে আসা ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষার্থীদের ফুল ও কলম দিয়ে স্বাগত জানানোর সময় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ পরিস্থিতিতে শাখা ছাত্রদলের দুই নেতা গুরুতর আহত হন।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার প্রথম দিনে বিজ্ঞান বিভাগের (এ ইউনিট) পরীক্ষা শুরু পূর্বে স্ব স্ব আধিপত্য ধরে রাখাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ নম্বর গেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এসময় ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা পরীক্ষার্থীদের অনেকেই ভয় পেয়ে গেইট ত্যাগ করেন।

ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ নং গেটে শিক্ষার্থীদের ফুল ও কলম দিচ্ছিলো ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলো ছাত্রদলের হিমেল , তাজ ,রাতুল ,নাহিদ, নাসিম, জামাল, শাহরিয়ার, মাহাবুব, আজিজ মোহাম্মদ, আলামিন,সরন ,ইমরান আরও ৪-৫ জন ছিলো। একপর্যায়ে শাখা ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী মফিজুর রহমান হামি মতে নেতৃত্বে শেখ রাসেল, নাজমুল হাসান মুন্না, মেহেদী হাসান, নওশের বিন আলম ডেভিডসহ বেশ কয়েকজন তাদেরকে ধাওয়া দিতে আসে। এসময় তাদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়।এতে আহত হয় ছাত্রদলের নেতা মেহেদী হাসান হিমেল ও শাহরিয়ার হোসেন।

হামলার বিষয়ে ছাত্রদলের আহ্বায়ক প্রার্থী তাজ ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, আমরা ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ফুল ও কলম বিতরণ করছিলাম। এসময় ছাত্রলীগ আমাদের উপর অতর্কিত হামলা করে। আমার দুই সহকর্মী হিমেল ও শাহারিয়ার গুরুত্বর আহত হয়। পরে আমরা ন্যাশনাল মেডিকেলে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করি।

এবিষয়ে ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী মফিজুর রহমান হামিম ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, '৩নং গেটে কিছু অছাত্র বিশৃঙ্খলা করছিলো, ভর্তিচ্ছুদের চলাচল ব্যহত করছিলো। আমরা ছাত্রলীগের ছেলেরা তাদের সড়িয়ে দিয়েছি।'

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ক্যাম্পাসের ভিতরে এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। আর কেউ এমন কোনো অভিযোগ করেনি।

ঢাকা, ১৭ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআইএস//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।