শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলাসহ আট দফা দাবি ছাত্র ইউনিয়নের


Published: 2021-01-16 22:48:25 BdST, Updated: 2021-03-05 03:21:49 BdST

ঢাবি লাইভঃ বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার রোডম্যাপ তৈরী ঘােষণাসহ ৮ দফা দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন।

শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেতন ফি মওকুফ, দ্রুত এইচএসসির ফল প্রকাশ, পাঠ্যপুস্তকে সাম্প্রদায়িকীকরণ বন্ধ, আবাসিক হল খুলে দিয়ে পরীক্ষার আয়োজন, বানিজ্যিক কোর্স বন্ধসহ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে করোনা ভ্যাক্সিন দেয়ার দাবি জানায় সংগঠনটি।

৮ দফা দাবি উপস্থাপনের পর পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করে সংগঠনটি। পরবর্তী কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে– আগামী ১৮ জানুয়ারিতে ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিল, ২৫ জানুয়ারিতে সারাদেশে ছাত্র-শিক্ষক অভিভাবক মতবিনিময় সভা ও ২৭ জানুয়ারি থেকে সারাদেশে ৮ দফা দাবির সমর্থনে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি। গণস্বাক্ষর সংগ্রহ শেষে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বরাবর স্মারকলিপিও প্রদান করবে তারা।

সংবাদ সম্মেলনে ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি ফয়েজ উল্লাহ বলেন, দীর্ঘ বন্ধে অনেক শিক্ষার্থী শিক্ষার আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে ফলে তাদের আবারও শিক্ষা কার্যক্রমে ফেরত আনা সহজসাধ্য হবে না। অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ শিক্ষার্থীকে ছাড়াই পাঠ-কার্যক্রম পরিচালনার চেষ্টা করা হচ্ছে। পর্যাপ্ত অবকাঠামােগত সুবিধা না থাকা, ইন্টারনেটের মন্থরগতি, ডিভাইসের অভাবে অধিকাংশ দরিদ্র শিক্ষার্থীই অনলাইন ক্লাসের বাইরে। শতভাগ শিক্ষার্থীদের আগ্রহ নিশ্চিত না করেই চলেছে অনলাইন ক্লাস-পরীক্ষা।

সংবাদ সম্মেলন

 

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলাে টিউশন ফি আদায় করার ঘৃণ্যতম প্রচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। অ্যাসাইনমেন্টের নামে নেয়া হচ্ছে নামে-বেনামে ফি। অন্যদিকে বাতিল হওয়া ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট না দেয়ায় ধোঁয়াশায় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিচ্ছুরা। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থীরা পড়ছে সেশনজট সংকটে, যা সামাল দিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো একেবারেই প্রস্তুত নয়।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে চলমান রয়েছে বানিজ্যিক কোর্স, হলগুলো অছাত্রদের দখলদারিত্ব ও এই ভয়ংকর দুর্দশা দূর করে বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলাসহ ৮ দফা দাবি জানায় তারা।

দাবিগুলো হলো–
১. করােনাকালে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বেতন ফি মওকুফ করতে হবে৷ অ্যাসাইনমেন্টের নামে আদায়কৃত ফি ফেরত দিতে হবে।

২. নামে-বেনামে ফি আদায়কারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৩. বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার রোডম্যাপ ঘােষণা করতে হবে।

৪. সেশনজট রােধে দ্রুত এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করতে হবে। সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সেশনজট রােধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

৫. পাঠ্যপুস্তকে সাম্প্রদায়িকীকরণ বন্ধ করতে হবে।

৬. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলােতে আবাসিক হল খুলে দিয়ে, আবাসনের ব্যবস্থা করে পরীক্ষা নিতে হবে। অছাত্র-সন্ত্রাসীদের হল থেকে বিতাড়ন করতে হবে।

৭. সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে বাণিজ্যিক কোর্স বন্ধ করতে হবে।

৮. অগ্রাধিকারভিত্তিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ভ্যাক্সিন দিতে হবে।

ঢাকা, ১৬ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআর//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।