ছাত্রলীগ নেতাদের নির্যাতনের শিকার তন্বী ২৬ দিনের বিচার পাননিছাত্রলীগ নেত্রী তন্বী: একই দলের ৫ নেতার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ যে কারণে


Published: 2021-01-16 10:07:19 BdST, Updated: 2021-03-05 04:33:04 BdST

ঢাবি লাইভ: ফাল্গুনী দাস তন্বী। সাহসী ও দাপুটে ছাত্রলীগ নেত্রী। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) রোকেয়া হল সংসদের এজিএস তিনি। একই সঙ্গে তিনি ওই হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সম্পাদকও বটে। লাঞ্ছনার শিকার হয়েও কোন বিচার পাননি। বলেছেন অনেক নেতার কাছে বিচার দিয়েছি। কিন্তু আমার বিচার কেউ করেননি। আমাকে পাত্তাও দেয়নি। তাই বাধ্য হয়ে আইনের দ্বারস্থ হয়েছি। এখন আমি স্ট্রংলি ফাইট করব। তিনি বলেন, সাংগঠনিকভাবে অভিযোগ করে কোনো বিচার না পেয়ে আইনের আশ্রয় নিয়েছি। দুর্বলের ওপর সবলের নির্যাতন বন্দে এখন থেকে সোচ্চার থাকবো।

ছাত্রলীগ নেত্রী ফাল্গুনী দাস তন্বীকে মারধর ও লাঞ্ছিত করার ঘটনায় ছাত্রলীগের ৫ নেতার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে । শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) রাতে সাড়ে ১০টার পরে রাজধানীর শাহবাগ থানায় এ অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। ভুক্তভোগী ছাত্রলীগ নেত্রী ১৪৪/৩৮৬/৩০৭/৬০৬(২)/৩৪ ধারায় থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। এটি এখন তদন্তাধীন আছে।

এ ব্যাপারে শাহবাগ থানার ওসি (তদন্ত) আরিফুর রহমান সরদার অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়েছেন। থানার এসআই রইচ উদ্দীনকে অভিযোগ তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলেও তিনি জানান। তদন্তে প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেলে এটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হবে বলে জানা গেছে।

ফাল্গুনী দাস তন্বী

 

ওই লিখিত অভিযোগে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বেনজির হোসেন নিশি, শামসুন্নাহার হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জেসমিন শান্তা, ছাত্রলীগ নেতা শাহজালাল, তানসেন ও এনামুলের ব্যাপারে মারধরের ও লাঞ্ছিত করার অভিযোগ আনা হয়েছে। বলা হয়েছে এরা সকলেই ফাল্গুনী দাস তন্বীকে মারধর করেছেন।

এদিকে অভিযোগের ব্যাপারে শাহবাগ থানার ওসি (তদন্ত) আরিফুর রহমান সরদার বলেন, ‘ফাল্গুনী দাস তন্বী নামের একজন ছাত্রলীগ নেত্রী একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগের সত্যতা যাচাই করার জন্য আমরা একজন এসআইকে দায়িত্ব দিয়েছি। প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেলে অভিযোগটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হবে।’ এর পরে যা হওয়ার তাই হবে। এ ক্ষেত্রে আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে।

মারধর ও অভিযোগের ব্যাপারে ছাত্রলীগ নেত্রী ফাল্গুনী দাস তন্বী বলেন, ‘আমি সাংগঠনিকভাবে অভিযোগ করে কোনো বিচার পাইনি। বাধ্য হয়ে আইনের আশ্রয় নিয়েছি। আমি জানি এর জন্যে আমাকে অনেক পথ যেতে হবে। আমি তাই করবো। আমি তো নির্যাতনের শিকার।

এদিকে অভিযোগকারী ও অভিযুক্ত সকলেই ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের অনুসারী। জানা গেছে এরা সকলেই একসাথে চলাফেরা করতো। ওই অভিযোগের পর থেকে এ ব্যাপারে মিট-মিমাংসার জন্যে দৌড়ঝাপ শুরু হয়েছে বলে বেশ কয়েকটি সূত্রে জানাগেছে।

প্রসঙ্গত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) রোকেয়া হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ফাল্গুনী দাস তন্বীকে বেয়াদবি করার অভিযোগে বেদম পিটিয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বেনজির হোসেন নিশি ও শামসুন নাহার হল শাখার সাধারণ সম্পাদক জেসমিন শান্তা।

সোমবার (২১ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু টাওয়ারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ছাত্রলীগ নেত্রী তন্বী বলেন, ‘ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বেনজির হোসেন নিশি ও শামসুন নাহার হল শাখার সাধারণ সম্পাদক জেসমিন শান্তা রাত ১২টার দিকে আমাকে ফোন দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদে যেতে বলেন। পরে আমি সেখানে গেলে তারা আমাকে বিভিন্নভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। একপর্যায়ে তারা আমাকে মারতে উদ্ধত হলে আমি সেখান থেকে দৌড়ে চলে আসি। তখন তারা আমাকে ধাওয়া করে বঙ্গবন্ধু টাওয়ারের সামনে ধরে ফেলে উপর্যুপরি মারতে থাকে।

ফাল্গুনী দাস তন্বীর আকুতি

 

তিনি বলেন, ‘আমি যেন না পালাতে পারি সেজন্য তাদের সঙ্গে থাকা দুটি ছেলে আমাকে ঘিরে রাখে। একপর্যায়ে আমি মাটিতে পড়ে গেলে শান্তা আমার পায়ে জোরে চাপ দিয়ে ধরে রাখে। আর নিশি আমাকে এক পা দিয়ে চেপে ধরে এলোপাতাড়ি লাথি মারতে থাকে। আমার গলায় পা দিয়ে চাপ দেয়ায় আমার গলা দিয়ে রক্ত বেরিয়ে আসে।’

তিনি আরও বলেন, ‘তারা আমার মুখেও খামছে দেয়। রাস্তায় পড়ে গিয়ে আমার হাত-পা ও মাথায় আঘাত লাগে। তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিম ও দায়িত্বরত পুলিশ আমাকে উদ্ধার করতে আসলে তারা আমাকে ছেড়ে দেয়। পরবর্তীতে এক বড় ভাইয়ের সহযোগিতায় হাসপাতালে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা নিই। এরপর থেকে এখন পর্যন্ত আমি শক্ত কোনো কিছু খেতে পারছি না।’

তিনি আরও বলেন, ‘তারা আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারধর করেন। আমি ঊর্ধ্বতন নেতাদেরকে বিষয়টি জানিয়েছি। তারা যদি ব্যবস্থা না নেয় তাহলে আমি আইনি ব্যবস্থা নেব।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বেনজির হোসেন নিশি বলেন, ‘মেয়েটা বেয়াদবি করেছিল তাই আমরা শাসন করেছি। একটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। পরে আমরা সমাধান করে নিয়েছি।’

ঢাকা, ১৬ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।