''ভুল বোঝাবুঝির কারণে এটি স্থগিত রাখা হয়েছে''ঢাবির সান্ধ্যকালীন এমবিএ ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত


Published: 2020-11-20 15:22:53 BdST, Updated: 2020-11-30 19:24:32 BdST

ঢাবি লাইভ: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সান্ধ্যকালীন এমবিএ ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। নানান দিক বিবেচনায় এনে তার স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। জানা গেছে নীতিমালা তৈরি না হওয়া পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বিভিন্ন বিভাগে চলমান সান্ধ্যকালীন কোর্স স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিতাদেশ তোয়াক্কা না করে সান্ধ্যকালীন এমবিএ-এর ৪৫তম ব্যাচের ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ। আর সেটিকে বিশ্ববিদ্যালয় আইনের লঙ্ঘন নয় বলে দাবি করেছেন ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আব্দুল মঈন। তিনি বেকে বসেন এ বিষয়টি নিয়ে।

সংশ্লিস্টরা আরো জানায়, আজ শুক্রবার বেলা ১১টায় আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে এই ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গণমাধ্যমে এ বিষয়টি প্রকাশ হলে ব্যাপক সমালোচনা সৃষ্টি হয়।

ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ

 

তার পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন পরীক্ষার মাত্র ৩০ মিনিট আগে শিক্ষার্থীদের বার্তা পাঠিয়ে পরীক্ষা স্থগিতের বিষয়টি জানিয়ে দেন। বিষয়টি নিয়ে সব মহলেই নানান আলোচনা ও সমালোচনা চলছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মত একটি প্রতিষ্ঠানে এধরনের ঘটনা কেউই মেনে নিয়ে পারছেন না। জানাগেছে একটি অতি উৎসাহী মহল বেশ কয়েকদিন ধরেই এনিয়ে নানান তৎপরতা চালিয়ে আসছিল। অবশেষে গুঞ্জন বেড়ে যাওয়ায় তারা পিছপা হলেন।

ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক ড. আব্দুল মঈন বলেন, পরীক্ষা নিয়ে কিছু মিসইন্টারপ্রিটিশন হয়েছে। মিসইন্টারপ্রিটিশনের আলোকে আজকের পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

ইনশাআল্লাহ সামনে পরীক্ষা নেব। বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের সাথে সাংঘর্ষিক নয় এমন বিষয়কে সামনে নিয়ে আমরা পরীক্ষা নিচ্ছিলাম। এখানে বিশ্ববিদ্যালয় আইনের কোনো লঙ্ঘন হয়নি। তিনি আরও বলেন, কোভিডের সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষার নিয়ম অনুসরণ করেই পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করেই পরীক্ষা নিচ্ছিলাম। কিছু ভুল বোঝাবুঝির কারণে এটি স্থগিত রাখা হয়েছে। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলে সান্ধ্যকালীন কোর্স নিয়ে নীতিমালা তৈরির জন্য তৎকালীন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদকে প্রধান করে ১৮ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে সান্ধ্যকালীন কোর্স বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এছাড়া কমিটিকে পাঁচ সপ্তাহ সময় দেয়া হলেও তারা এখন পর্যন্ত কোনো নীতিমালা জমা দেয়নি। ফলে যা হওয়ার তাই হলো। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে।

ঢাকা, ২০ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)/বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।