নেটে ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ, তারপর..


Published: 2021-07-17 20:09:34 BdST, Updated: 2021-07-30 06:51:27 BdST

নেত্রকোনা লাইভ: প্রেমের ফাঁদ পেতে ছিলেন এক যুবক। সেই ফাঁদে ফেলে এক তরুণীর সব কিছুই সে কেড়ে নিয়েছিলো। হুমকি ও ভয়ভীতিও দেখিয়েছিলো। কিন্তু শেষ রক্ষা তার হয়নি। অবশেষে সব কিছুই ভেস্তে গেছে। বিষয়টি আর থাকেনি গোপন। অবশেষে সব কিছুই যেন বাইরে চলে এসেছে। নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলায় প্রেমের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে একাধিকবার এক তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে।

অবশেষে এই ন্যাক্কারজনক ঘটনায় জাহাঙ্গীর হোসেন (২২) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা টুকে দিয়েছেন ওই তরুণীর মা। শুক্রবার (১৬ জুলাই) রাতে ভুক্তভোগীর মা মদন থানায় জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। জাহাঙ্গীর হোসেন উপজেলার কাইটাইল ইউনিয়নের কেশজানি গ্রামের মৃত সিদ্দিক মিয়ার ছেলে। এলাকায় রাজিতিক প্রভাব বিস্তারের চেষ।টাও করেছিল ওই যুবক।

ভুক্তভোগী তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শনিবার (১৭ জুলাই) নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগীর মা জানান, আমার মেয়েকে ওই ছেলেটি স্কুলে পড়া অবস্থায় বিভিন্ন সময় খারাপ আচরণ করত। পরে আমি মেয়েকে ২৪ জুন ২০১৯ সালে বিয়ে দিয়ে দেই।

কিন্তু ছেলেটি আমার মেয়েকে বিয়ে দেয়ার পরেও যোগাযোগ রেখেছে। পরেও জানতে পারি ওই ছেলেটি আমার মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে তাকে বিভিন্ন সময় একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। ধর্ষণের ভিডিও মোবাইলে ছেড়ে দেবে বলে অবশেষে আমার মেয়ে তার স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য হয়। ২০২০ সালের ৩ জুলাই আমার মেয়েকে বিয়ে করবে বলে আবারো ধর্ষণ করে।

এ নিয়ে গ্রামের বাড়িতে বিভিন্ন সময় গ্রাম বৈঠক বা সালিশ বসেছে। তারা খুবই প্রভাবশালী। আমরা গরিব মানুষ। মুখ খোলে বলতেও পারি না। এতদিন চুপ ছিলাম। গ্রামের লোকজনের কাছে সমাধান চেয়েছিলাম। কোনো সুরাহা হয়নি। তাই কী আর করব? বাধ্য হয়ে ধর্ষণের মামলাটি করেছি। আজ তাকে পুলিশ নেত্রকোনা সদর হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাচ্ছে। আমার মেয়ের যে সংসার ভেঙেছে, মেয়ের প্রতি যে অন্যায় করা হয়েছে আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

অভিযুক্ত জাহাঙ্গীরের বড় বোন শিল্পী আক্তার জানান, সত্যতা যাচাই করে মেডিকেল রিপোর্ট আসলে যা শাস্তি হয় তাই আমরা মেনে নেব। এ বিষয়ে মদন থানার ওসি তদন্ত উজ্জ্বল কান্তি সরকার বলেন, ভুক্তভোগীর মা শুক্রবার (১৮ জুলাই) রাতে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। ভুক্তভোগীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য আজ নেত্রকোনা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষককে দ্রুত গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে ওই যুবক রাজনৈতিক তদবীর শুরু করেছে। সে বিভিন্ন লোকের মাধ্যমে ওই তরুণীর পরিবারকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে বলেও জানা গেছে।

ঢাকা, ১৭ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এআইটি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।