''এ রায় ভদ্রবেশি অপরাধীদের জন্য সতর্কবার্তা''


Published: 2020-09-28 16:58:23 BdST, Updated: 2020-10-21 04:28:35 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ অস্ত্র মামলায় রিজেন্ট কেলেঙ্কারির মূলহোতা সাহেদকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সাহেদের বিরুদ্ধে দায়ের করা একাধিক মামলার এটিই হলো প্রথম রায়। আদালত তার পর্যবেক্ষণে বলেন, এ রায় ভদ্রবেশি অপরাধীদের জন্য সতর্কবার্তা।

সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলার রায় পড়ার শুরুতেই আদালত এসব মন্তব্য করেন।

বিচারক কে এম ইমরুল কায়েস বলেন, সাহেদ একজন ভদ্রবেশী ধুরন্ধর প্রতারক। তাকে ক্ষমা করা যায় না। তাই সাহেদের বিরুদ্ধে আদালতে দেয়া ১১ সাক্ষীর সাক্ষ্য আমলে নিয়ে তাকে দোষী সাবাস্ত্য করলাম।

বিচারক কে এম ইমরুল কায়েস বলেন, আসামি সাহেদের আচরণ আমাকে অবাক করেছে। নিজের গাড়ি থেকে অস্ত্র উদ্ধার হলেও আদালতে বার বার সাহেদ গাড়িটি নিজের নয় বলে দাবি করেছিল। পরে গাড়ির মালিকানা সংক্রান্ত রেজিস্ট্রেশনের নথি সামনে আসতেই সে স্বীকার করলে। সাহেদ একজন চতুর অপরাধী।

তিনি আরও বলেন, সাহেদ একজন ভদ্রবেশী ধুরন্ধর প্রতারক। তাকে ক্ষমা করা যায় না। তাই সাহেদের বিরুদ্ধে আদালতে দেয়া ১১ সাক্ষীর সাক্ষ্য আমলে নিয়ে তাকে দোষী সাবাস্ত্য করলাম।

যদিও প্রিজন ভ্যানে কারাগারে যাবার সময় সাহেদ নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আপিল করার কথা জানান।

গত ১৫ জুলাই সাতক্ষীরা সীমান্ত এলাকা থেকে গ্রেপ্তারের পর সাহেদকে সাথে নিয়ে রাজধানীর উত্তরায় অভিযান চালানো হয়। সেসময় উদ্ধার করা হয় অস্ত্র ও বিদেশি মদ। পরে অস্ত্র আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয় উত্তরা পশ্চিম থানায়। ২৭ আগস্ট এই মামলায় অভিযোগ গঠন করা হয় সাহেদের বিরুদ্ধে।

গত ২০ সেপ্টেম্বর শেষ হয় রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন। এতে রাষ্ট্রপক্ষ সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন আশা করলেও আসামিপক্ষের আইনজীবীর প্রত্যাশা খালাস পাবেন মোহাম্মদ সাহেদ।

ঢাকা, ২৮ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।