কোথায় আজ সেই হুংকার, গর্জন...কাশিমপুরে ডা.সাবরিনা-পাপিয়ার হাউমাউ করে কান্না!


Published: 2020-08-02 01:39:54 BdST, Updated: 2020-09-24 00:59:57 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: এ যেন ভিন্ন রকম অনূভূতি। ভিন্ন এক আমেজ। যারা কখনও ভাবেনি তাদের এই হাল হবে। কারাগারের চোর-বাটপারদের সঙ্গে ভাগাভাগি করতে হবে ঈদ আনন্দ। কিন্তু নিয়তির এটাই চরম বাস্তবতা। অন্যায় আর জুলুম করে বেশীদিন তার ক্ষমতা ধরে রাখেতে পারে না। অবশেষে মান-সম্মান নিয়ে সেই অপরাধীকে মেনে নিতে হয় কারাগারের ভিন্ন রকম ঈদ। এর জলন্ত প্রমাণ ডা. সাবরিনা আর মক্কিরাণী পাপিয়িা।

মহামারি করোনাভাইরাস পরীক্ষার ভুয়া প্রতিবেদন দেওয়ার ঘটনায় আলোচিত জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক এবং জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা শারমিন হুসাইন জীবনে এই প্রথমবার ঈদ কাটাচ্ছেন কারাগারে। দিনটি কেটেছে হাউ মাউ করে কেঁদে।

সমাজের উচু শ্রেণীর আরেক নজির পাপিয়া। তার বিরুদ্ধে রয়েছে সমাজকে ক্ষতিগ্রস্ত করার নানান হাতিয়ার। নানা অভিযোগে গ্রেপ্তার যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়াকেও কাশিমপুর মহিলা কারাগারে পরিবার-পরিজন ছেড়ে কারাবন্দিদের সঙ্গে ঈদ করতে হচ্ছে।

কাশিমপুর মহিলা কারাগারের জেলার মো. আনোয়ার হোসেন জানান, পাপিয়াকে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় মহিলা কারাগারে বিশেষ সেলে এবং সাবরিনাকে আলাদা কক্ষে রাখা হয়েছে। এছাড়া কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১-এ রয়েছেন আলোচিত ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলার ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সাবেক উইং কমান্ডার শাহাবুদ্দিন আহমেদ, যুদ্ধাপরাধের দায়ে আমৃত্যু দণ্ডিত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী, এটিএম আজহারুল ইসলাম, ফার্মার্স ব্যাংকের সাবেক কর্মকর্তা মাহবুবুল হক চিশতী ওরফে বাবুল চিশতী, ডেসটিনি-২০০০ লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন।

কাশিমপুর কারাগারের জেলার উম্মে সালমা জানান, এই কারাগারে একহাজার ৩৩৫ জন বন্দি রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৮৭ জন ফাঁসির ও ১৭৪ জন যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত। কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এর জেলার বাহারুল ইসলাম জানান, এ কারাগারে সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুস সালাম পিন্টুসহ ২ হাজার ৮৫৬ বন্দি রয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৩১ জন ফাঁসির এবং ৫৬৮ জন যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত।

কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানান, তাদের কারাগারে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা এটিএম আজহারুল ইসলাম, আলোচিত সন্ত্রাসী সুইডেন আসলাম, ক্যাসিনোকোণ্ডে গ্রেপ্তার সেলিম খানসহ তিন হাজারের বেশি বন্দি আছেন। কারাগারটিতে ৮ শতাধিক মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ও তিন শতাধিক যাবজ্জীবন দন্ডিত আসামি রয়েছেন।

এদিকে কারা কর্মকর্তারা জানান, কারাবন্দীদের জন্য ঈদের দিন সকালে পায়েস ও মুড়ি, দুপুরে সাদা ভাত, ডিম ও আলুর দম ও রাতে পোলাও মাংস, ডিম, মিস্টি, দই, সালাদ, কোল্ড ড্রিংকস ও পান সুপারিসহ বিশেষ খাবারের আয়োজন রয়েছে।

করোনাভাইরাসের কারণে এবার কারাবন্দিরা যার যার ওয়ার্ডে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ। এদিকে কারা সূত্র জানায়, ডা. সাবরিনা সকাল থেকেই ছিলেন চুপচাপ। তিনি কারো সাথে কথা বলেন নি। তবে কয়েকবার হাউমাউ করে কেঁদেছেন। আর বলেছেন আমি কি করলাম। কেন এখানে আসতে হলো। তবে তিনি পোষা পরিচ্ছদের বিষয়ে খুবই মনোযোগী। ড্রেসআপ ঠিকঠাক করেই চলেছেন।

অন্যদিকে সেই আলোচিত মাদক নেত্রীও ঈদ আনন্দ উল্লাশ ছাড়া। অনেকটাই মন মরা ভাব ছিলো তার। তিনিও কয়েক দফা কেঁদেছেন।

ঢাকা, ০১ আগষ্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।