''কিসের করোনা, কিসের লকডাউন, গুলি করে মেরে ফেললে ভালো''


Published: 2021-04-11 19:22:28 BdST, Updated: 2021-05-08 03:47:07 BdST

মাদারীপুর লাইভ: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সারাদেশে চলছে লকডাউন। মাদারীপুরে শিবচরেও এর ব্যতিক্রম নয়। শিবচরের লকডাউন প্রশাসনের কড়াকড়ি নজর দাড়িতে জনগণ এক প্রকার ঘরবন্দী না হলেও মানুষের স্বাভাবিক জীবনে ব্যাপক প্রভাব ফেলছে।

রবিবার (১১ এপ্রিল) শিবচরে সদর রোড, একাত্তর চত্বরে, কলেজ মোড়, টিএনটি মোড়সহ প্রতিটি মোড়ে বাশ দিয়ে বেরি কেট দেওয়া হয়েছে যাতে কোনো প্রকার জনসমাগম না হতে পারে। বাজারের সপিং মলসহ নানা দোকান পাট খোলা থাকলেও ক্রেতা সাধারণের উপস্থিতি করা যায় নি।মানুষের মধ্যে করোনা নিয়ে খুব বেশি চিন্তা নেই, কিন্তু স্বাভাবিক জীবনে সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

বাজারে উপস্থিত আসিফ মাতুব্বর (২৭) নামের একজন ছাত্র প্রতিনিধি ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, আমাদের শিবচরে সরকারের সিদ্ধান্তনুযায়ী লকডাউনের সকল নিয়ম নীতি অনুসরণ করা হচ্ছে। আমাদের প্রিয় নেতা সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের চীফ হুইচ নূরই আলম চৌধুরী লিটন ভাইয়ের নির্দেশনায় আমরা সবসময় জনগণের পাশে থেকে কাজ করছি।সাধারণ জনগণের জন্য কাজ করতে এমপি মহোদয় উপজেলার সকল স্তরের জনগণকে উদ্ভুত করেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় সকল নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করেও যাচ্ছেন।

রাস্তা বন্ধ করে চলছে লকডাউন

 

রাজিব (২৪) নামের বরহ রামগঞ্জ কলেজের এক শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, তিনি পার টাইম হিসেবে একটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন। গত কয়েকদিন ধরে লকডাউন হওয়ায় একদম বেকার হয়ে বসে আছেন। সামনে রমজান মাস কিভাবে দিন কাটবে তা নিয়েও আছেন দুশ্চিন্তায়।

শহীদ (২৮) নামের একজন ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, বাজারে আসছি কিছু নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য নিতে আসছিলাম। পাশাপাশি কিছু পোষাক কিনতে চাই। কিন্তু দোকানে নতুন কোনো ড্রেস নেই এগুলো আগের বছরের তাই পছন্দ হলো না বলে কিনি নাই।

লকডাউনে ক্রেতাশূণ্য দোকানপাট

 

ঠান্ডু (৩০) নামের এক অটো চালক ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, গত কয়েকদিন হলো ঠিক মতো যাত্রী পাচ্ছি না। বাজারের ভিতরে কোনো গাড়ি প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। আজকে সারাদিন ২০০ টাকাও ইনকাম করতে পারি নাই। এছাড়াও প্রশাসনের কিছু স্বেচ্ছাসেবক লোকজন আমাদের গাড়ি পিঠায় একধরনের চাপে রাখে। এর থেকে আমাদের মতো গরীব মানুষকে লাইনে দাড় করিয়ে গুলি করে মেরে ফেললে ভালো হতো।

লকডাউনে বেকার হয়ে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষজন

 

উল্লেখ্য যে, গত কয়েকদিনের লকডাউনে যথাযথ নিয়মশৃঙ্খলা ভাবে চলছে শিবচর উপজেলার প্রতিটি স্থানে। শিবচর থানার একজন দায়িত্ব প্রাপ্ত একজন পুলিশ ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, আমরা গত বছর থেকে করোনা মোকাবিলায় মাঠে থেকে কাজ করে আসছি। সরকারি নির্দেশ ও উর্ধতন কর্মকর্তাদের আদেশ অনুযায়ী যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করে যাচ্ছি। আমাদের প্রধান লক্ষ্য জনগণকে করোনা সম্পর্কে অবহিত করা। মাস্ক পরিধান করা ও যথাযথ স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সকল প্রকার কাজ করতে সার্বিক সহযোগিতা করা। আইন নয় জনগণের স্বদিচ্ছা হলো সবচেয়ে বড় বিষয়।

ঢাকা, ১১ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।