নোবিপ্রবি অর্থনীতি ও ফার্মেসী বিভাগে চেয়ারম্যান পদে রদবদল


Published: 2021-10-25 13:58:39 BdST, Updated: 2021-12-02 21:22:48 BdST

নোবিপ্রবি লাইভ: নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) ফার্মেসী বিভাগের চেয়ারম্যান হিসেবে ড.শফিকুল ইসলাম এবং অর্থনীতি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে এস এম ওয়াহিদকে নতুন নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

রবিবার(২৪ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার জসিম উদ্দীন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। আগামী ৩ বছরের জন্য চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বপালন করবেন ড. শফিকুল ইসলাম। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত হিসেবে এই নিয়োগ বিবেচিত হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি অনুযায়ী সুযোগ সুবিধা ও নির্ধারিত ভাতা পাবেন ড.শফিকুল ইসলাম।

এদিকে অর্থনীতি বিভাগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফরিদ দেওয়ানের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে তিনি উচ্চ শিক্ষার জন্য ছুটি নেওয়াতে পদ খালি হয়েছে। এই পদে ওই বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর এস এম ওয়াহিদ মুরাদ ২৪ অক্টোবর ২০২১ থেকে পরবর্তী নোটিশ না দেওয়া পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বের বিষয়ে ড. শফিকুল ইসলাম ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ‘যেহেতু আমি একজন গবেষক তাই আমার প্রথম কর্তব্য হলো বিভাগকে গবেষণায় এগিয়ে নেওয়া। গতবার যখন আমি বিভাগের চেয়ারম্যান ছিলাম, তখন প্রায় ৩ কোটি টাকার ইন্সট্রুমেন্ট উন্নয়ন প্রজেক্ট অনুমোদন করিয়ে ছিলাম যা গত চার বছরে বিভাগে যুক্ত হয়েছে। বিভাগে গবেষণা বান্ধব করার জন্য আমি সব কিছুই করার চেষ্টা করব। ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষার ফলাফল দ্রুত প্রদান পূর্বক সেশন জট কমিয়ে আনব।’

নিজের দায়িত্বের বিষয়ে এস এম ওয়াহিদ মুরাদ ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, ‘শিক্ষার্থীদের গবেষণার উন্নতির জন্য ল্যাব ক্লাসগুলো নিয়মিত করে ল্যাব সচল করার চেষ্টা করবো। আমাদের অনেকগুলো নতুন কম্পিউটার আসছে এবং নিজেদের সফটওয়্যার আছে যা শিক্ষার্থীদের গবেষণার কাজে সহযোগিতা করবে। পাশাপাশি আমার সময়ে জিপিএ বাধা দূর করার চেষ্টা করবো যা শিক্ষার্থীদের গবেষণার কাজে সহযোগী হবে।’

ঢাকা, ২৫ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআর//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।