অন্যরকম অনুভূতি নিয়ে অপেক্ষায় চট্টগ্রামের শিক্ষার্থীরা


Published: 2021-09-09 18:56:11 BdST, Updated: 2021-09-18 08:18:36 BdST

করোনা মহামারীর ছোবলে বন্ধ হয়ে যাওয়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তালা খুলছে দীর্ঘ ১৮ মাস পর। এ সংবাদে শিক্ষার্থীদের মধ্যে নানারকম প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। অনেক শিক্ষার্থী স্কুল, কলেজ, মাদরাসা খোলার সংবাদে উচ্ছ্বসিত হলেও কেউ কেউ এই সংবাদের প্রতি আস্থা রাখতে পারছেন না। শিক্ষার্থীদের মনের গভীরে লুকিয়ে থাকা সব অনুভূতি বের করে আনার জন্য আমরা হাজির হয়েছিলাম দক্ষিণ চট্টগ্রামের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মাঝে। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে কি ভাবছেন তারা? শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মনের কথাগুলো তুলে ধরেছেন ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এর চট্টগ্রাম প্রতিনিধি মোহাম্মদ যায়েদ।

ওয়াসিফাতুন নাহার, আল হেলাল আদর্শ কলেজ, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম: টিভি চ্যানেল খুললেই চোখে পড়ে একটি সংবাদ, স্কুল কলেজ খুলছে ১২ সেপ্টেম্বর। সাথে আরো শোনা যাচ্ছে ক্লাস হবে সপ্তাহে একদিন, যদিওবা এটি সুসংবাদের তালিকায় পড়ে না। আমাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনেক দিন বন্ধ থাকার ফলে যে ক্ষতিটা আমাদের হয়েছে সেটা আমরা কিভাবে পুষিয়ে নিবো? সপ্তাহে একদিন ক্লাস এটা আসলে খুব একটা কাজে আসবে বলে আমার মনে হয় না।

আল হেলাল আদর্শ কলেজ

 

আরেকটি বিষয় দেখলাম বিশ্ববিদ্যালয় না খোলে আগে স্কুল, কলেজ ও মাদরাসা খুলছে, আসলে এটিও কতটা কার্যকর সিদ্ধান্ত আমি বুঝতে পারছি না। যেখানে আমাদের চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা তুলনামূলক বেশি সচেতন সেখানে আমাদেরই আগে খুলে দেয়া হচ্ছে, আমি বুঝতেছি না এটা কতোটা সুফল বয়ে আনবে। পরিশেষে বলতে পারি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সংবাদে মনে আনন্দের হাওয়া বইছে।

ফয়সাল উদ্দিন, আল হেলাল আদর্শ কলেজ: অনেক দিন পর যেহেতু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে এটা আমাদের জন্য অবশ্যই খুশির সংবাদ, অনেক দিন আবারও পর কলেজে যাবো, বন্ধু-বান্ধবদের সাথে দেখা হবে, সবমিলিয়ে অন্যরকম একটা অনুভূতি কাজ করছে। আর এতোদিন ধরে আমাদের যে ক্ষতিগুলো হয়েছে সেগুলো পুষিয়ে দেওয়ার বিনীত অনুরোধ শিক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রতি।

রিফাতুল জান্নাত বিথী, আল হেলাল আদর্শ কলেজ: আমি এখনো বিশ্বাস করতে পারছিনা ১২ই সেপ্টেম্বর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে,কারণ এর আগেও অনেকবার বলা হয়ছিল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে অমুক তারিখ,,যখন প্রতিষ্ঠান খুলবে বলে শিক্ষার্থীরা আগ্রহ করে থাকে ঠিক তখনই তারিখ পরিবর্তন করে ফেলে।

তবে সর্বোপরি যেটা বলতে চাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে সেটা ভালো কথা তবে এতদিন যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল তার জন্য শিক্ষার্থীদের অনেক ক্ষতি হয়ে গেছে,পড়ালেখার প্রতি আগ্রহ কমে গেছে,যদিও শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় মন দিতে একটু সময় লাগবে, আর যদি সবকিছু আগের মত হয়ে যায় তাহলে শিক্ষার্থীদের লেখা পড়ার আর কোন ঘাটতি থাকবেনা।

সাকিবুর রহমান, পুকুরিয়া আনছারুল উলুম নাযিল মাদরাসা, বাশঁখালী, চট্টগ্রাম: অনেকদিন পর আমাদের দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে যাচ্ছে। নিঃসন্দেহে এটি একটি সবার জন্য খুশির সংবাদ। আমাদের শিক্ষার্থীরা এতদিন গৃহবন্দী থাকার তাদের মন-মানসিকতা অনেকটা খিটখিটে হয়ে গেছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার মধ্য দিয়ে তারা সবাই স্বস্তি পাবে এবং পূর্বের সেই ধারাবাহিক পাঠদানে মনোনিবেশ করবে বলবে আমি মনে করি। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আমি ধন্যবাদ জানাই।

পুকুরিয়া আনছারুল উলুম নাযিল মাদরাসা

 

আবু জাহেদ মিছবাহ, কাট্টলী জাকেরুল উলুম ফাযিল ডিগ্রি মাদরাসা: এক অর্থে সবই তো এখন খোলা। ট্রেন, বাস, লঞ্চ-স্টিমার বন্ধ ছিল। এখন সবই খুলে দেওয়া হয়েছে। আকাশ পথ আগেই খুলেছে। হাট বাজার, অফিস আদালত চলছে যার যার মতো। পার্ক, রেস্তোরাঁ, বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রে ভিড় কমেনি এতটুকুও। বিয়ে, জন্মদিন, সংবর্ধনা জনসভাসহ সামাজিক সব ধরনের অনুষ্ঠান চলছে স্বাভাবিক গতিতে। শুধু বন্ধ আছে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় বারবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানো হচ্ছে। যদিও আজ শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘১২ সেপ্টেম্বর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে পারবো’। ইনশাআল্লাহ আমরা আশা করি দীর্ঘ্য দেড় বছর বন্ধ হয়ে যাওয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো আমাদের ছাত্রদের শিক্ষা নিরসনে খুব নিবিড় মনোযোগী হবে। শিক্ষা ব্যাবস্থার যেই দুর্দশা নেমে এসেছিল সেখান থেকে কাটিয়ে উঠবে ইনশাআল্লাহ।

আইনানে তাজরিয়ান তারান্নুম, পুকুরিয়া আনছারুল উলুম ফাজিল ডিগ্রি মাদরাসা: দীর্ঘ ১৫ মাস শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ছাত্রছাত্রীদের চরম ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেন সকল শিক্ষার্থী। এতে শিক্ষার্থীরা মানসিকভাবেও খুব বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনেক শিক্ষার্থী মোবাইল বা অন্যান্য অসাধু কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়ে গেছে, শিক্ষার চিন্তা মাথা থেকে ফেলে দিছে অনেক শিক্ষার্থী। শিক্ষাব্যবস্থার নাজুক অবস্থা দেখে অনেক শিক্ষার্থী চাকরিতে যোগ দিয়েছে। এহেন পরিস্থিতিতে প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য আমি শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা - উপমন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে সাধুবাদ জানাই।

নাটমূড়া পুকুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়

 

শাহেদুল আনোয়ার আজাদ, নাটমূড়া পুকুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, বাঁশখালী: শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড, কিন্ত আমরা এখন এই প্রবাদে সম্পূর্ণ একমত হতে পারছি না, যদি জাতির মেরুদন্ড হয় তাহলে এতো মাস শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকতো না। এখন খুলবে বলছে সেখানেও শুনতেছি সপ্তাহে একদিন ক্লাস, তাহলে তো খোলা আর না খোলা সমান। এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

আশেকুল ইসলাম, ইউনাইটেড আইডিয়েল ইনস্টিটিউট: শিক্ষার্থীদের স্বার্থে, শিক্ষার স্বার্থে দীর্ঘদিন পর শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের বিবেক জাগ্রত হওয়ায় ধন্যবাদ জানাই। চাইলে গত বছরেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা যেতো, গতবছর এই সময়েও সংক্রমণ হার কম ছিলো। যাক, এখন যেহেতু খুলবে বলছে তাই খুশি লাগছে, যদিও বিশ্বাস হচ্ছে না, খুললে তো আলহামদুলিল্লাহ।

ইউনাইটেড আইডিয়েল ইনস্টিটিউট

 

মুশফিকা নাজমিন মিম, ইউনাইটেড আইডিয়াল ইন্সটিটিউট: আগামি ১২ সেপ্টেম্বর আমাদের স্কুল খুলতেছে। এ নিয়ে আমরা খুব খুশি হয়েছি, সবার সাথে দেখা হবে, সবাইকে দেখব তাই অন্যরকম একটা ভালো লাগা কাজ করছে। আশা করি আমরা আমাদের পূর্বের ন্যায়রধারাবাহিকভাবে পাঠদান করতে পারবো ঘরে আর বসে থাকতে হবে না। আমি মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীকে এজন্য ধন্যবাদ জানাই।

ঢাকা, ০৯ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।