ভয়ংকর কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় কোরআনের হাফেজ খুন


Published: 2020-05-09 16:45:58 BdST, Updated: 2020-09-20 01:20:21 BdST

নোয়াখালী লাইভ : কোম্পানীগঞ্জে কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় কোরআনের হাফেজ শেখ জাহিদ নিহত হয়েছেন। তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। শুক্রবার রাতে রামপুর ইউনিয়নে তাকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় কিশোর গ্যাংয়ের ৬ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত শেখ জাহিদ রামপুর ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের মুহরীরটেক এলাকার জয়নাল আবেদীন সারেং বাড়ির মো. রফিক উল্যার ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় কয়েকজন বলেন, কয়েক দিন আগে ফুটবল খেলা নিয়ে রামপুর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার স্থানীয় একটি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা এলাকার অন্য কিশোর-তরুণদের সঙ্গে বিরোধে জড়িয়ে পড়ে। দু-তিন দিন ধরে এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে ওই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা শেখ জাহিদ ও ওমর ফারুককে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করে। পরে গুরুতর আহত জাহিদকে রাত ১০টার দিকে নোয়াখালী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আহত ওই ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ও ছাত্রলীগ কর্মী রাহেদকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে রাহেদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। 

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মো. আরিফুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে জাহিদ হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে কিশোর গ্যাংয়ের ৬ জন সদস্যকে আটক করেছে।  এরা হলো রামপুর ওয়াকি ভূঁইয়া বাড়ির মাহবুল হকের ছেলে আব্দুল আলিম (২২), মুছাপুর ৩ নম্বর ওয়ার্ডের শেখ ফরিদের ছেলে শেখ মো. হাসান (১৫), একই এলাকার মাহবুবুল হকের ছেলে আমির হোসেন (১৮), রামপুর ২ নম্বর ওয়ার্ডের ছইমুদ্দিন বেপারী বাড়ির অজি উল্যার ছেলে আব্দুস সাত্তার প্রকাশ শিপন (২৪), আব্দুল ওহাব প্রকাশ রিপন (৩০) ও আব্দুল আলিম (৩৫)।

নিহত জাহেদের মামা চর কাঁকড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক সোহাগ অভিযোগ করে বলেন, হৃদয় এলাকার চিহ্নিত বখাটে সন্ত্রাসী। সে একটি কিশোর গ্যাংয়ের লিডার। গত দেড় মাস আগে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে জাহেদের সঙ্গে হৃদয়ের বিরোধ সৃষ্টি হয়। ওই ঘটনার জেরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হৃদয় ও তার সহযোগীরা জাহেদের উপর অতর্কিতে হামলা চালায়।

এ ব্যাপারে নোয়াখালী সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজী মো. আব্দুর রহিম বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকা সন্দেহে আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্ত করে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। হৃদয়কে আটকের জন্য অভিযান শুরু হয়েছে।

ঢাকা, ০৯ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।