বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে বিয়ের ৩ বছরেই সব শেষ ফারজানার!


Published: 2019-11-13 11:02:51 BdST, Updated: 2019-12-14 16:22:15 BdST
চাঁদপুর লাইভ : বয়ফ্রেন্ডকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন ফারজানা আকতার। দশম শ্রেণিতে পড়াশোনা করার সময় তারা বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন। তবে বিয়ের ৩ বছর না যেতেই সব শেষ হয়ে গেছে। সুখের সংসার ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে তাদের। ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের ‏ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দভাগ রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন  ফারজানা। চাঁপুর সদর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের উত্তর বালিয়া গ্রামের প্রবাসী বিল্লাল বেপারীর ছোট মেয়ে ফারজানা। দুর্ঘটনা পর ফারজানার লাশ মঙলবার তার বাবার বাড়ি পার্ম্ববর্তী উওর বালিয়ার তালুকার বাড়িতে নিয়ে আসা হলে স্বজনদের মাঝে এক হদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। রাতে ফারজানার জানাযা শেষে বাবার বাড়িতে দাফন করা হয়।
ফারজানার ভাসুর খোরশেদ দেওয়ান জানান তিন বছর আগে তার ছোট ভাই মোহন দেওয়ানের  সাথে  ফারজানার বিয়ে হয়। তারা উভয়ে ভালোবেসে বিয়ে করেন। চাঁদপুর শহরের নাজিরপাড়াস্থ দেওয়ান বাড়িতেই ফারজানা স্বামীর সাথেই থাকতেন। বিয়ের সময় তিনি বাগাদী গণি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শেণির ছাত্রী ছিল । এ দম্পতির কোনো সন্তান ছিলনা । তার স্বামী মোহন দেওয়ান  নাজিরপাড়ায় ব্যাবসা করেন।
 
ফারজানার  চাচাত ভাই জাকির হোসেন দিদার ও মামাত ভাই শাহআলম  জানান, গত ৭ নভেম্বর খালাতো বোনের বিয়ের দাওয়াত খেতে নানী, মা, ভাই, মামীসহ পরিবারের ৮ জনের সাথে সিলেটে গিয়েছিল ফারজানা। সিলেটের শ্রীমঙ্গল স্টেশন থেকে উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনে ওঠেন পরিবারের সবাই। সেখান থেকে চাঁদপুর আসার পথে ওই ঘটনা ঘটে। এসময় নিহত ফারজানার পরিবারের আরো ৭ সদস্য আহত হয়েছেন। তারা হলেন ফারজানার মা বেবী বেগম (৪৫), ভাই হাসান বেপারী (২৮), নানী ফিরোজা বেগম (৭৫),  মামী শাহিদা বেগম (৪৫), মামাত বোন মিতু (২২), মিতুর মেয়ে ইলমা (৭) ও মামাতো ভাই জুবায়ের (৪)।
 
ঢাকা, ১৩ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।