আদালত অবমাননা: চবি ভিসিসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের রুল


Published: 2018-10-22 16:40:31 BdST, Updated: 2018-11-22 17:07:52 BdST

চবি লাইভ: আদালত অবমাননার দায়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ভিসিসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের রুল করা হয়েছে। শিক্ষা ও গবেষনা ইনস্টিটিউটের আঠারো শিক্ষকের কলেজে ফিরে যাওয়া নিয়ে হাইকোর্টের দেয়া স্থগিতাদেশ না মানায় আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা হয়।

সোমবার বাদীপক্ষের আইনজীবীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে মামনুল রহমান ও আশিস রঞ্জনের আদালতে তা আমলে নিয়ে কেন তাদেরকে শোকজ করা হবে না তা জনাতে চেয়ে রুল জারি
করেন। এতে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কে.এম.নূর আহমদ, কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. সেকান্দার চৌধুরী এবং শিক্ষা ও গবেষনা ইনস্টিটিউটের বর্তমান পরিচালক প্রফেসর বশির আহাম্মদের বিরুদ্ধে এই রুল জারি করা হয়।

বাদীপক্ষের আইনজীবী ফাহমিদ সারওয়ার ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ‘আদালতের স্থগিতাদেশ শর্তেও আইইআর’র আঠারো শিক্ষককে স্ব স্ব পদায়ন করা হয়নি। এতে আদালতের রায়কে আবমানা করা হয়েছে। এর প্রেক্ষিতে আজ উপাচার্যসহ চার জনের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আদালত অবমাননার অভিযোগ করা হয়েছে। আদালত কেন তাদেরকে শোকজ করা হবে না তা জানতে রুল জারি করেছেন।

দুই সপ্তাহের মধ্যে তাদেরকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে বলেও তিনি জানান ’
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিষ্ট্রার কে এম নুর আহমেদ ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, আমরা আইন অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নিব।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ জুলাই শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের আঠারো শিক্ষকের কলেজে ফিরে যাওয়ার বিষয়ে ছয় মাসের স্থগিতাদেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে আদেশটি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এই মর্মে রুল জারি করেন আদালত।
এরপর হাইকোর্টের এই স্থগিতাদেশের বিপক্ষে আপিল করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পরে
আপিলের শুনানি এক দফা পিছানোর পর গত ১৪ আগস্ট শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

শুনানি শেষে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের একটি বেঞ্চ হাইকোর্টের দেওয়া স্থগিতাদেশ বহাল রাখে। সেই সাথে হাইকোর্টের জারি করা রুল নিষ্পত্তির আদেশ দেন।


ঢাকা, ২২ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।