Azhar Mahmud Azhar Mahmud
teletalk.com.bd
thecitybank.com
livecampus24@gmail.com ঢাকা | রবিবার, ১৯শে মে ২০২৪, ৫ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
teletalk.com.bd
thecitybank.com

রমজানে বন্ধুহীন-নিরানন্দ হল, তবুও কাটছে জীবন

প্রকাশিত: ১৮ এপ্রিল ২০২৩, ১৮:২০

রমজানে বন্ধুহীন-নিরানন্দ হল, তবুও কাটছে জীবন

রমজান মাস ত্যাগ,সংযম আর সহশীলতার বার্তা নিয়ে বছরে ঘুরে নতুন বার্তা দিয়ে যায় ৷ অপর দিকে বন্ধুত্ব কেবল কোন সম্পর্কের নাম নয়, এর সাথে জড়িয়ে আছে আবেগ-অনুভূতি বেদনা ও ভালোবাসার সংমিশ্রণ৷ রমজানের এই শেষ দশকে আবেগ অনুভূতি ও ভ্রাতৃত্বের বন্ধন বন্ধুকে উপেক্ষা করে কেমন কাটছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক শিক্ষার্থীদের বন্ধুহীন নিরানন্দ হল জীবন জানার চেষ্টা করেছেন ক্যাম্পাসলাইভের ববি প্রতিনিধি মো. জাকির হোসেন

মো. মিলন সরদার

মৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগ

টিউশনির কারণে বঙ্গবন্ধু হলে অবস্থান করা মৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের মো. মিলন সরদার ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, বন্ধুত্ব কেবল কোন সম্পর্কে নাম নয়, এ এক আত্মার বন্ধন৷ এ সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া যেমন কঠিন, তেমনি ভুলে যাওয়া অসম্ভব। কিন্তু কিছু কিছু কারণে এগুলা একটা সময় হার মানে। যেমন আজ যদি টিউশন না থাকতো পারতাম বন্ধুদের সাথে বাসায় যেতে পারতাম আগে ভাগে বাড়ি যেতে পারতাম৷ আব্বু- আম্মুর আদর-ভালোবাসা পেতাম। টিউশন শেষ করে যখন হলে আসি তখনই বন্ধুদের খুব মনে পড়ে। মন তো অনেক কিছু চায়, কিন্তু কি আর করার সব কিছুই মেনে নিতে হয় ভাগ্যের কাছে!

 

রানা মৃধা

আবাসিক শিক্ষার্থী ,শেরে বাংলা হল

শেরে বাংলা হলের আবাসিক শিক্ষার্থী রানা মৃধার সাথে কথা হলে তিনি ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন ,ঈদকে সামনে রেখে সব বন্ধু বান্ধব হল ছেড়ে বাড়িতে চলে গেছে কিন্তু আমি এখনো হলে অবস্থান করছি সেমিস্টার ফাইনাল ও টিওশনি থাকার কারণে ৷ হল যেন এখন অন্ধকারের মত কোথাও কোনো সাড়াশব্দ নেই৷ হল যেন পরিণত হয়েছে নিরানন্দ হলে, যে রুমে সব সময় কোলাহলে পরিপূর্ণ থাকত, সাত আটজন থাকতো সেই রুমে এখন আমি একা৷ সবাই বাড়ি গিয়ে পরিবারের সাথে সময় কাটাচ্ছে,আমার ও মন চায় দৌড়ে বাড়ি চলে যেতে৷ কিন্তু তা আর পারছি কোথায়..!!

সুমাইয়া ইসলাম সিমু

আবাসিক শিক্ষার্থী শেখ হাসিনা হল

শেখ হাসিনা হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, শিক্ষার্থী হিসেবে প্রথম ও প্রধান উদ্দেশ্য পড়াশুনাকে কেন্দ্র করে হলে অবস্থান করছি। কিন্তু নিজের পড়াশুনার সাথে জড়িত টিউশন নামক দায়িত্বটিও হয়ে উঠেছে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কাজ। এজন্য বিশ্ববিদ্যালয় ছুটি হওয়ার পরেও হল ত্যাগ করতে পারি নি। হলে, ক্যাম্পাসে কোথাও বন্ধুরা নেই, আনন্দ-উল্লাস নেই। কখনো কখনো সন্ধ্যায় মনে হয় ক্যাম্পাসের ধুলো-বালি জড়ানো মাঠে গিয়ে কিছুক্ষণ বসে থাকি। ঠিক তখনই মনে পড়ে "একা গিয়ে কি করবো!!আড্ডার সঙ্গীরা তো বাসায় চলে গিয়েছে।" বান্ধবীরা সবাই একসাথে বাহির থেকে হলে আসা এবং বের হওয়ার সময়কার হৈচৈ অনেক বেশি মনে পড়ছে যখনই একা প্রকৃতির পানে চেয়ে হাঁটতে হচ্ছে। কতদিন পরে বাসায় যেতে পারবো সেই দিন গণনা করতে করতে এভাবে আনন্দহীন সময়গুলো পার করেও সবশেষে জীবনের অস্তিত্ব খুঁজেই তৃপ্ত হই।

রাসেল

শিক্ষার্থী,মার্কেটিং বিভাগ

নারায়ণগঞ্জে পরিবার সকলে অবস্থান করলেও পরীক্ষা ও টিউশনি থাকায় মার্কেটিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রাসেল অবস্থান করছে বঙ্গবন্ধু হলে তিনি ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ক্লাস,প্রেজেন্টেশন,পরীক্ষা এবং অনেকেই টিউ্শনের বেড়াজালে আটকে যায়। আমিও তার ব্যতিক্রম ছিলাম না। ক্লাস শেষ হলেও টিউশনি আর মান উন্নয়ন পরীক্ষার কারণে এখনো প্রিয় ক্যাম্পাসে অবস্থান করছি। তবে পরিবারের কথা খুব মনে পড়ছে। আম্মু ফোন দিলেই জিজ্ঞেস করে "কবে বাসায় আসবি বাবা?"বিরামহীন পরিশ্রম শেষে পরিবারের কাছে ফিরে যাবো। এই ব্যাপারটা ভাবতেই ভালো লাগছে। দীর্ঘ আড়াই মাস পর পরিবারের সবাই মিলে একসাথে কথা বলবো,হাসবো,আড্ডা দিবো এবং একসাথে ঈদ উদ্‌যাপন করবো।

মো. ইসরাইল ইভান

আবাসিক শিক্ষার্থী, শেরে বাংলা হল 

শেরে বাংলা হলের শিক্ষার্থী মো. ইসরাইল ইভান ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, পবিত্রতার বাণী নিয়ে আমাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছে পবিত্র মাহে রমজান৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের হল জীবনের বিগত রমজানের চেয়ে এ বছরের রমজানে রয়েছে ভিন্নতা। পূর্বের সময় গুলোতে বন্ধুরা সকলে একত্রে ছিলাম। একসাথে সেহরি ইফতার হত। সময়ের পরিক্রমায় অধিকাংশ স্নাতকোত্তর শেষ করে হল থেকে বিদায় নিয়েছে। এখন আমরা গুটি কয়েক আছি যাদের ও বিদায়ের সময় এসে গেছে। পরিবার প্রিয়জন ছেড়ে বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে বন্ধুরাই হয়ে উঠে আপনজন। এখন তারা যে যার মত ব্যস্ত জীবনে চলে যাচ্ছে।

নাসরুল্লাহ ইসলাম রাব্বি

 শিক্ষার্থী ,সমাজ বিজ্ঞান বিভাগ

ঈদে বাড়ি যাওয়া অনিশ্চিত সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নাসরুল্লাহ ইসলাম রাব্বির ৷ তিনি ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, পরিবারের সবার সঙ্গে আত্মীয়-স্বজনদের সাথে নিজের জন্ম ও বেড়ে ওঠার ভূমিতে ঈদ করার আনন্দই অন্যরকম। এই অনুভূতির ভাষা প্রকাশ করার জ্ঞান আমাদের নেই। যা ভাষায় বুঝানো সম্ভব না। কিন্তু উপলব্ধি করা যায় হৃদয়ের গভীর অন্তঃস্থল থেকে। একা একা লাগছে হলে। সবচেয়ে অসহায় মনে হচ্ছে এই মুহূর্তে। যাওয়ার ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও, টিউশনি, ঈদের ছুটির পরপরই সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা এবং আরও নানা প্রাসঙ্গিকতার জন্য সবার সাথে তালমিলিয়ে বাড়ি যেতে পারতেছি৷ এখন বাড়িতে যাওয়ার প্রসঙ্গটা মনে হয় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।


ঢাকা, ১৮ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমএফ

 

 


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

সম্পর্কিত খবর


আজকের সর্বশেষ