শিক্ষকের লালসার শিকার ছাত্রী অন্তঃস্বত্তা, আটক জহিরুল


Published: 2019-08-17 18:06:57 BdST, Updated: 2019-09-16 02:49:48 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক জহিরুল ইসলামকে (৩৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বরগুনার আমতলী উপজেলার কাঠালিয়া তাজেম আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ওই শিক্ষককে আটক করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আমতলী থানার এস আই ফয়সাল জানান, শনিবার সকাল ১০টায় পটুয়াখালী চৌরাস্তা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।ba

জানা গেছে, তাজেম আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শরীরচর্চা শিক্ষক মোঃ জহিরুল ইসলাম গাজী বিদ্যালয়ের বেশ কয়েক জন ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করে আসছিল। এ বিষয়ে কয়েক বার প্রধান শিক্ষকের নিকট অভিযোগও করেন শিক্ষার্থীরা।

বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর এক ছাত্রীর অভিযোগ পরীক্ষায় ফেল করানোর ভয় দেখিয়ে গত ছয় মাস ধরে তাকে শিক্ষক জহিরুল ইসলাম গাজী একাধিকবার ধর্ষণ করেছে। এতে এ বছর ফেব্রুয়ারি মাসে ওই ছাত্রী অন্তঃস্বত্তা হয়ে পড়ে। অন্তঃস্বত্তার ঘটনা শিক্ষক জহিরুল ইসলাম জানতে পেরে গর্ভপাত করার চেষ্টা করে। কিন্তু ওই ছাত্রী তাতে রাজি হয়নি।

এ ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হয়ে গেলে শিক্ষক জহিরুল ইসলামের বড় ভাই কুকুয়া আদর্শ স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ ফারুক গাজী ছাত্রীর বাবাকে জীবননাশের হুমকি দিয়ে গর্ভপাত করতে চাপ দেয়। ওই ছাত্রীর বাবা এতে রাজি না হওয়াতে জোড় করে পটুয়াখালী নিয়ে গর্ভপাত করেছে বলে অভিযোগ ওই ছাত্রীর।

এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয় লোকজন ধর্ষক শিক্ষক জহিরুল ইসলামের বিচার দাবী করে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছিল। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর দাদা বাদী হয়ে ৩০ জুন রাতে আমতলী থানায় শিক্ষক জহিরুলকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন।

ঢাকা, ১৭ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।