যেভাবে তিনশো মানুষের প্রাণ বাঁচালেন কলেজছাত্র শাহান!


Published: 2019-06-24 13:25:48 BdST, Updated: 2019-12-12 11:49:46 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার বরমচাল স্টেশনের পাশে সিলেট থেকে ঢাকাগামী উপবন এক্সপ্রেসের বগি ছিটকে পড়ে অন্তত ৬ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে শতাধিক। তবে এই হতাহতের সংখ্যা আরো অনেক বাড়তে পারতো। যদি না মধ্যরাতে ন্যাশনাল ইমারজেন্সি সার্ভিস ৯৯৯ নম্বরে ফোনের কাজটি না করতেন কলেজ ছাত্র শাহান মিয়া। কুলাউড়ার আকিলপুর গ্রামের ওই ছাত্রের বুদ্ধিমত্তায় অন্তত ৩ শ মানুষের প্রাণ বেচেঁছে। তিনি কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী। শাহান মিয়ার ফোন পেয়েই ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা হয় পুলিশ।

ট্রেন দুর্ঘটনার বর্ণনা দিয়ে শাহান মিয়া বলেন, আমি বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলাম। বরমচাল সেতুর অনেকটা দূরে আমি তখন। হঠাৎ বিকট শব্দ কানে আসে। সেই সঙ্গে ভেসে আসে মানুষের কান্না, চিৎকার। দূর থেকে তাকিয়ে দেখি, বরমচাল সেতু ভেঙে ট্রেনের বগি নিচে। কাছে যেতেই মানুষের কান্নার আওয়াজ আরও জোরে শোনা যায়। ঘটনার ২-৩ মিনিটের মধ্যেই আমি ৯৯৯ নম্বরে ফোন দেই। সঙ্গে সঙ্গে রিসিভ হয় ফোন। তখন পুলিশকে পুরো ঘটনা খুলে বলি। যদি সময়মতো পুলিশ না আসতো, তবে আরও অনেক মানুষের প্রাণহানি ঘটতো। তিনি আরও বলেন, বরমচাল স্টেশন সংলগ্ন সেতুতে হঠাৎ ট্রেনের ছয়টি বগি লাইনচ্যুত হয়ে খালে পড়ে যায় এবং একটি বগি উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই কয়েকজনের মৃত্যু হয়। এছাড়া লাইনচ্যুত বগির যাত্রী ছাড়াও মারাত্মক ঝাকুনিতে দুই শতাধিক যাত্রী আহত হয়। ঘটনাস্থলে এসে আহতদের উদ্ধার করেছে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস।

কুলাউড়া থানার ওসি ইয়ারদুস হাসান বলেন, রাত ১২টার কিছুক্ষণ আগে এক ব্যক্তি ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে ট্রেন দুর্ঘটনার খবর জানান। এত রাতে বড় ধরনের ট্রেন দুর্ঘটনার খবর শুনে অবাক হই আমরা। তখনই ঘটনাস্থলের উদ্দেশে রওনা দেই। সেখান থেকে ৬ জনের লাশ এবং দুই শতাধিক মানুষকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। ওসি আরও বলেন, ইতোমধ্যে উদ্ধারকাজ শেষ হয়েছে। আহতরা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঢাকা, ২৪ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।