শাবি শিক্ষকের যৌন নিপীড়নের শিকার সেই ছাত্রীর শাস্তি বাতিল!


Published: 2019-05-06 01:40:16 BdST, Updated: 2019-06-18 05:21:11 BdST

শাবি লাইভ : শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ করে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার সেই ছাত্রীর শাস্তি অবশেষে বাতিল করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের এসিস্ট্যান্ট প্রফেসর প্লাবন চন্দ্র সাহার বিরুদ্ধে ওই ছাত্রীর যৌন নিপীড়নের অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া গেছে। একারণে প্লাবন সাহাকে ইতিমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারও করা হয়েছে। একই সঙ্গে ছাত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করে সমালোচনার মুখে পড়ে প্রশাসন। এনিয়ে ক্যাম্পাসলাইভে নিউজ করা হলে তোলপাড় শুরু হয়। পরে যৌন হয়রানি নিয়ে গঠিত কমিটির সুপারিশক্রমে ওই ছাত্রীর শাস্তি বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়। শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ২১২তম সিন্ডিকেট সভায় অভিযোগকারী শিক্ষার্থীর শাস্তি বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর ড. মস্তাবুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। অভিযোগকারী ছাত্রী ভিকটিম হওয়ায় তার শাস্তি বাতিল করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

এর আগে ২১১তম সিন্ডিকেটের সভা থেকে অভিযোগকারী ভিকটিম শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের পর তার কারণ জানতে চাইলে তখন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ উদ্দিন আহমেদ কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। তিনি বলেছিলেন, আমরা অভিযোগকারী শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করিনি। এটা লিখিতভাবে চূড়ান্ত হয়নি।

তবে সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর ড. মস্তাবুর রহমান বলেছিলেন, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় শিক্ষক প্লাবন চন্দ্রকে চাকরীচ্যুত করা হয়েছে। আর ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টতা থাকায় অভিযোগকারী শিক্ষার্থীকেও দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। রোববার প্র্রফেসর ড. মস্তাবুর রহমান বলেন, ওই ছাত্রী অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই সিন্ডিকেট তার শাস্তি বাতিল করেছে।

এছাড়া পরীক্ষা নিতে গাফলতি করায় পেট্রোলিয়াম এন্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রফিকুল ইসলামকে আগামী পাঁচ বছরের জন্য পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে সিন্ডিকেটের সভা থেকে।

ঢাকা, ০৬ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

 

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।