সুপার ট্যালেন্ট আনাস : বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল সবখানেই সেরা!


Published: 2018-12-04 12:57:18 BdST, Updated: 2018-12-11 02:26:33 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : বাবা মো. আব্দুল আহাদ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কীটতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক। তিনি ডারউইন মতবাদের ভুল প্রমাণকারী একজন গবেষক। এমন গবেষকের ঘরেই জন্ম নিয়েছেন এএসএম আনাস ফেরদৌস নামের অসাধারণ প্রতিভা। শুধু নাম দিয়ে তার পরিচয়টা শেষ করা যাবে না। এই ছাত্রটির ট্যালেন্টের পরিচয়টা না দিলেই। সফলতার স্বপ্নতরী যেন তার পায়ে লুটোপুটি খায়। যেখানেই হাত দিয়েছেন সেরা হয়েছেন। পড়াশোনার পাশাপাশি বিজ্ঞান, ক্যামেস্ট্রি, বায়োলজি, ফিজিক্সসহ নানা অলিম্পিয়াডে সেরাদের সেরা হয়েছেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষাতেও তিনি সেরাদের সেরা হয়েছেন। যেই বিশ্ববিদ্যালয়েই পরীক্ষা দিয়েছেন সেরাদের তালিকায় তার নাম এসেছে।

দিনাজপুর জেলা স্কুল থেকে এসএসসি ও দিনাজপুর সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেছেন গোল্ডেন জিপিএ-৫ নিয়ে। শুধু তাই নয় এইচএসসি পাশের পর তিনি যেই বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা দিয়েছেন চান্স হয়েছে। চান্স পেয়েছেন মেডিকেলেও। তবে শেষতক তিনি ভর্তি হয়েছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট)। তার মেধার আরও একটু পরিচয় না দিলেই নয়। ৩য় শ্রেণি থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত স্কুলে প্রথ। ৫ম শ্রেণিতে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি ও দিনাজপুর বোর্ডে ৭ম। ৮ম শ্রেণিতে জেএসসি পরীক্ষায় ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি। দিনাজপুর সরকারী কলেজে ইন্টারমেডিয়েট অধ্যয়নকালে সকল পরীক্ষায় প্রথম। এইচ এস সি পরীক্ষায় ২০১৮ সালে দিনাজপুর বোর্ডে প্রথম ও রেকর্ড সংখ্যক ১২১১ নম্বর পেয়ে সারাদেশে মধ্যে ২য় স্থান অর্জনের কৃতিত্ব লাভ করেন তিনি।

এর বাইরে এক্সট্রা কারিকুলাম একটিভিটিসে সেরাদের সেরা তিনি। শিশু কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস ২০১৬ তে বিজ্ঞান কুইজ বিজয়ী। শিশু কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস-২০১৭ সাইন্টিফিক পেপার ক্যাটাগরিতেও বিজয়ী তিনি। শিশু কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস ২০১৮- চ্যাম্পিয়ন অব দ্যা চ্যাম্পিয়ন। a2i কর্তৃক আয়োজিত স্টুডেন্টস ইনোভেশন ক্যাম্প এ প্রথম স্থান। প্রথমআলো বিজ্ঞান জয়োৎসবে জাতীয় পর্যায়ে সারাদেশে চ্যাম্পিয়ন। আমেরিকায় আয়োজিত গুগল সাইন্স ফেয়ারে ২০১৬ সালে প্রজেক্ট প্রেরণ। জাতীয় প্রযুক্তি সপ্তাহে ২০১৬ আয়োজিত বিজ্ঞান মেলায় বিভাগীয় পর্যায়ে প্রথম। জাতীয় প্রযুক্তি সপ্তাহে ২০১৭ সালে জাতীয় পর্যায়ে ৪র্থ। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয় আয়োজিত শিশু মৌসুমি প্রতিযোগিতায় ২০১৬ জেলা পর্যায়ে ১ম ও বিভাগীয় পর্যায়ে ২য়।

তার সফলতার ফিরিস্তি এখনও শেষ হয়নি। সৃজনশীল মেধা অন্বেষন প্রতিযোগিতায় জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে বছরের সেরা মেধাবী হয়েছেন তিনি।

এছাড়া ২০১৫ সালে বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি আয়োজিত বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়ন ।

>>> ২০১৬ সালে বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি আয়োজিত বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়ন।

>>> ২০১৬ সালে বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি আয়োজিত বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়ন।

>>> ২০১৭ সালে বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি আয়োজিত বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়ন।

>>> বাংলাদেশ বায়োলজি অলিম্পিয়াডে ২০১৭ ও ২০১৮ এ আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়ন।

>>> বাংলাদেশ প্রাণিবিজ্ঞান অলিম্পিয়াড ২০১৮, রংপুর বিভাগীয় অঞ্চলে ১ম।

>>> বাংলাদেশ কেমিস্ট্রি অলিম্পিয়াড ২০১৮ তে ৩য় স্থান।

>>> সাইন্স একাডেমি আয়োজিত ফিজিক্স অলিম্পিয়াড ২০১৭ এ চ্যাম্পিয়ন।

>>> সাইন্স একাডেমি আয়োজিত ম্যাথ অলিম্পিয়াড ২০১৭ এ রানার্স আপ।

>>> ২০১৬ সালে ন্যাশনাল হাইস্কুল প্রোগ্রামিং কন্টেস্ট আঞ্চলিক আইসিটি কুইজ বিজয়ী।

>>> ২০১৭ সালে ন্যাশনাল হাইস্কুল প্রোগ্রামিং কন্টেস্ট আঞ্চলিক আইসিটি কুইজ বিজয়ী।

>>> English Olympiad এ আঞ্চলিক পর্যায়ে প্রথম।

>>> স্বাধীন আয়োজিত তারুণ্যে একুশ প্রতিযোগিতায় প্রথম।

>>> ফ্রান্স থেকে প্রকাশিত Martinia Journal (২০১৬) এ প্রবন্ধ প্রকাশ ৷

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষাতেও তিনি সফলতা দেখিয়েছেন। যেই বিশ্ববিদ্যালয়েই পরীক্ষা দিয়েছেন চান্স পেয়েছেন। বাদ যায়নি মেডিকেলও। ডেন্টালে ভর্তি পরীক্ষা-৩য় হয়েছেন তিনি। চান্স পেয়েছিলেন ঢাকা ডেন্টাল কলেজে। মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় ৩৩২তম হয়ে চান্স হয়েছিল স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে। আর্মি মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় ১৩ তম হয়ে চান্স পেয়েছিলেন চট্টগ্রাম ক্যান্টমেন্টে।

এছাড়া বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, আহসানুল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জন করেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ক ইউনিট ২৫তম, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০ম, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৩ তম, শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪৬তম, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) ৩১তম, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুয়েট) ৬২তম, ইসলামি ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলোজিতে (আইইউটি) ৪৫তম ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়(বুয়েট))এ ২৬৮তম হয়েছেন। এতো এতো বিশ্ববিদ্যালয় যাচাই বাচাই করে শেষতক তিনি বুয়েটকেই বেছে নিয়েছেন।

ঢাকা, ০৪ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।