মায়ের চিকিৎসা করেই দেশ ছাড়বেন মোসাদ্দেক


Published: 2019-11-12 16:21:54 BdST, Updated: 2019-12-07 22:57:42 BdST

স্পোর্টস লাইভঃ নাগপুরের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচের আগেই ভারতের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে অংশ নিতে দলের সাথে যুক্ত হয়েছেন আট টেস্ট পারফরমার অধিনায়ক মুমিনুল হক, ইমরুল কায়েস, সাইফ হাসান, মেহেদি হাসান মিরাজ, আবু জায়েদ রাহি এবং ইবাদত হোসেন।

সবাই ৮ নভেম্বর রাতেই নাগপুর পৌঁছে গেছেন এবং ৯ নভেম্বর থেকে নিয়মিত অনুশীলন করছেন। অপরদিকে ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষ করে দেশে ফিরেছেন ৭ টি-টোয়েন্টি স্পেশালিস্ট- সৌম্য সরকার, নাইম শেখ, আরাফাত সানি, শফিউল ইসলাম, আফিফ হোসেন ধ্রুব, আবু হায়দার রনি ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

টেস্ট দলে থাকা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও এই ৭ জনের সাথে গতকাল রাতে নাগপুর থেকে দেশে ফেরত এসেছেন। আগেই জানা, তার মা অসুস্থ। যার ফলে মায়ের চিকিৎসার জন্য টেস্ট না খেলেই দেশে ফেরত এসেছেন মোসাদ্দেক হোসেন।

মোসাদ্দেকের ফ্যান, ফলোয়ার, সমর্থকরা সবাই উদগ্রীব। তাদের সবারই মনে কৌতুহলি প্রশ্ন, কি হয়েছে মোসাদ্দেকের মা’র? আজ দুপুরে মোসাদ্দেক নিজেই তা বলেছেন। তিনি বলেন, ‘আম্মার লিভারে পাথর ধরা পড়েছে।’

গতকাল রাতে রাজধানীতে ফিরে আসা মোসাদ্দেক এখনো ঢাকাতেই অবস্থান করছেন। কাল তার মা’কে ঢাকায় নিয়ে আসা হবে। পরে ঢাকাতেই চিকিৎসা চলবে তার মা'য়ের। তার সবকিছু তত্ত্বাবধান করবেন মোসাদ্দেক নিজেই।

এখন বর্তমান অবস্থায় তার পক্ষে আর ভারতের বিপক্ষের প্রথম টেস্ট ম্যাচটি খেলা কোনভাবেই সম্ভব হচ্ছে না। আর মাত্র ৪৮ ঘণ্টা পর ইন্দোরে প্রথম টেস্ট শুরু, আগামী ১৪ নভেম্বর বৃহস্পতিবার থেকে। এমন অবস্থায় মোসাদ্দেক কি করবেন? কলকাতায় পরের টেস্টে কি দলের সাথে যোগ দিয়ে আবার খেলবেন?

এমন প্রশ্ন করা হলে তাৎক্ষণিকভাবে তেমন কিছু বলতে পারেননি জাতীয় দলের এই অলরাউন্ডার। তার কথা, আম্মার চিকিৎসাটাই আগে। আম্মার চিকিৎসা আগে হোক। আমি এখনো বুঝতেছি না কি হবে, বা কি করবো? আম্মা পুরোপুরি সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত আমি কোনদিকে ম্যুভ করছি না। পরেরটা পরেই বোঝা যাবে।’

এ থেকে এটাই পরিষ্কার করে দিয়েছেন মোসাদ্দেক যে, তার মা পুরোপুরি সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত তার আর দলের সাথে ভারতে যোগ দেয়ার কোনই সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

এ বিষয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলে রেখেছেন, ‘দলে তো এমনিই ১৬ জন ক্রিকেটার আছে। মোসাদ্দেক চলে যাবার পরও বাঁকি ১৫ জন আছে। তাই অসুবিধা হবে না। আর ইন্দোরের পর কলকাতায় যদি প্রয়োজন পড়ে, তাহলে শেষ মুহুর্তে কাউকে ডেকে নেওয়া সেই সুযোগ তো আছেই।

সবকিছু বিবেচনা করলে ধরেই নেওয়া যায় যে, মোসাদ্দেক ভারতের সাথে দুই টেস্টই হয়তো খেলছেন না।

ঢাকা, ১২ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।