১৩ ঘণ্টা পর যেভাবে জীবিত উদ্ধার!


Published: 2020-06-29 23:08:59 BdST, Updated: 2020-07-05 20:30:24 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: কি আশ্চার্য্য। অভিশ্বাস্য হলেও সত্য। এটাই হয়তো নিয়তির খেলা। কে কখন কি ভাবে মরবে তা কেউ জানে না। পুরান ঢাকার শ্যামবাজরে বুড়িগঙ্গা নদীতে লঞ্চ ডুবিতে ১৩ ঘণ্টা পর একজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার (২৯ জুন) রাতে তাকে জীবিত উদ্ধার করে ডুবুরিরা। দ্রুত তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বুড়িগঙ্গায় লঞ্চ ডুবির ঘটনার ১৩ ঘন্টা পর সুমন (৩২) নামে একজনকে রাত ১০টায় জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করেছে। মিটফোর্ড স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের ক্যাজুয়ালিটি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে তাকে।

প্রসঙ্গত, সকাল নয়টার দিকে মুন্সিগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা মর্নিং বার্ড লঞ্চটি সদরঘাট কাঠপট্টি ঘাটে ভেড়ানোর আগ মুহূর্তে চাঁদপুরগামী ময়ূর-২ লঞ্চটি ধাক্কা দেয়। এতে তুলনামূলক ছোট মর্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়। নিখোঁজ হয়ে যায় প্রায় সকল যাত্রী।

এই ঘটনায় উদ্ধার অভিযানে নামে ফায়ার সার্ভিস, কোস্টগার্ড, নৌবাহিনীর সদস্যরা। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত চলা টানা অভিযানে ৩২ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ডুবে যাওয়া মর্নিং বার্ড লঞ্চটি উদ্ধারের জন্যে জাহাজ প্রত্যয় উদ্ধারের জন্য আসার পথে পোস্তগোলা ব্রিজে আটকে যায়।

এতে ব্রিজটিরও ক্ষতির আশঙ্কা করছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। এ কারণে কারণে ব্রিজটিতে এক পাশের যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। এ ঘটনায় ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়।

এছাড়া, মৃত প্রত্যেকের পরিবারকে দেড় লাখ টাকা ও তাৎক্ষণিক ভাবে দাফন করা জন্য ১০ হাজার টাকা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী।

ঢাকা, ২৯ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।