হোয়াটসঅ্যাপে কল দিয়ে ম্যালওয়্যারে ফোন নিয়ন্ত্রণ!


Published: 2019-05-15 13:31:41 BdST, Updated: 2019-05-23 07:24:42 BdST

আইটি লাইভ: সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোর মধ্যে বহুল ব্যবহৃত হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজিংয়ে মিসড কল দিয়েই ফোনে ইন্সটল করা সম্ভব হচ্ছে একটি ক্ষতিকর ইসরাইলি সফটওয়্যার (ম্যালওয়্যার)। ওই ম্যালওয়্যার দিয়ে টার্গেটের ফোনটি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিচ্ছে হ্যাকার।

যুক্তরাজ্যের খ্যাতনামা পত্রিকা ফিন্যান্সিয়াল টাইমসয় এ বলা হয়েছে, হোয়াটসঅ্যাপে একটি নিরাপত্তা ত্রুটির কারণেই এমনটা সম্ভব হয়েছে। খোদ হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ ও নজরদারি চালানোর প্রযুক্তি বা স্পাইওয়্যার বিক্রিতে মধ্যস্থতা করেন এমন এক ডিলারের বরাতে এ খবর দিয়েছে পত্রিকাটি।

জানা গেছে, বিশ্বজুড়ে প্রায় ১৫০ কোটি মানুষ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন। এই মাসের শুরুর দিকে হোয়্যাটসঅ্যাপের নিরাপত্তা কর্মীরা আবিষ্কার করেন যে, কোনো ব্যাক্তির হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে কল দিয়েই তার আইফোন বা অ্যান্ড্রয়েড চালিত ফোনে একটি ক্ষতিকর ম্যালওয়্যার ইন্সটল করে সেটির সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিতে পেরেছে হ্যাকাররা। ওই ম্যালওয়্যারের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হলো ইসরাইলি কোম্পানি এনএসও গ্রুপ।

ওই স্পাইওয়্যার ডিলার জানান, টার্গেট যদি ওই ফোন না-ও ধরেন, তবুও সফটওয়্যারটি ইন্সটল হয়ে যায়। পরবর্তীতে ওই কলের অস্তিত্ব খোদ কল তালিকা থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুছে যায়।

ইসরাইলি প্রতিষ্ঠান এনএসও’র এই ক্ষতিকর সফটওয়্যার নিয়ে দীর্ঘদিন গবেষণা করছে টরোন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সিটিজেন ল্যাব এর বিশেষজ্ঞরা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, মানবাধিকার কর্মীর ফোন যেই নিরাপত্তা দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে হ্যাকাররা নিয়ন্ত্রণে নিয়েছিল, ঠিক সেটি নিয়েই তখন পর্যন্ত কাজ করছিল হোয়াটসঅ্যাপ।

এবিষয়ে অ্যামনেস্টি টেক-এর উপ পরিচালক ডানা ইংলেটন জানান, ‘এনএসও গ্রুপ এমন সব সরকারের কাছে তাদের পণ্য বিক্রি করছে যারা কিনা ভয়ঙ্কর সব মানবাধিকার লঙ্ঘণের দায়ে অভিযুক্ত। এই ভয়ঙ্কর সফটওয়্যার পেয়ে ওই সরকারগুলো মানবাধিকার কর্মী ও সমালোচকদের টার্গেট করছে।’


ঢাকা, ১৫ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।