জীবন 'বড় ছেলে' নাটক নয়, কেয়ারিং প্রেমিকা এ যুগে নেই!


Published: 2018-08-10 16:05:25 BdST, Updated: 2018-10-24 11:43:59 BdST

আরাফাত আবদুল্লাহ : দিনরাত পড়াশোনা করেও যখন দেখবেন নন ক্যাডার পদের জন্যও আপনি সিলেক্ট হননি তখন বুঝবেন জীবন কী জিনিস। মাটির সাথে মিশে যেতে ইচ্ছে করলেও পারবেন না।

২৫/২৬ বছর বয়সী ইয়াং ট্যালেন্টেড ছেলেপেলে গুলোর পেছনে একটা ক্রাইসিস লেগে থাকে। মাসে তিনটা টিউশনি করিয়ে বাসায় ১০ হাজার টাকা পাঠালেও দেখবেন কারো মন ভরে না। বাঁকা কথা শুনতেই হবে। বাঁকা নজরটা মেনে নিতেই হবে।

প্রাইভেট জব করবেন?
কন্যার বাপ আগেই ভেটো দিয়ে বসবে, সরকারি চাকরি পেলে না? প্রাইভেট জব আজকে আছেতো কাল নাই। চল্লিশ হাজার টাকা বেতন পেয়েও তখন মনে হবে জীবনে কিছুই করতে পারলাম না।

জীবনটা 'বড় ছেলে' নাটকের মতো নয়। এতো কেয়ারিং প্রেমিকা এই যুগে পাবেন না, যে কিনা আপনাকে গাড়িতে বসে মুখে তুলে খাইয়ে দেবে।

সামাজিক মান মর্যাদার মাপকাঠি এমন পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছে যে লোকে আজকাল পায়ের জুতো দেখে বলে দিতে পারে এই ছেলে সেলসম্যান নাকি বিজনেসম্যান।

মেয়েরা মানিব্যাগের ব্র্যান্ড দেখেই বলে দিতে পারে এর পকেটের অবস্থা আসলে কী! শার্টটা পিউর কটনের নাকি নিউমার্কেটের বাতিল মাল সেটাও ধরে ফেলা যায় চোখের নজরেই।

পালাবি কোথায়?
চোখের সামনেই দেখবে তোমার খাতা কপি করে এক্সামে পাস করা বান্ধবীটা ঠিকই একটা বিজনেস ম্যাগনেটের গলায় ঝুলে গেছে। হাতে গোলাপ ফুল নিয়ে তুমিই শুধু রোড সাইড রোমিও হয়েছো।

পাশের বাসার ছেলেটিকে দেখে তোমার মা তোমার উপরে রাগ ঝাড়ে।
নিজের বন্ধুর মেয়ের উদাহরণ দিয়ে তোমার বাপে ফেলে দীর্ঘশ্বাস।

জীবন তোমাকে পেনাল্টি শটের মতো আছড়ে ফেলেছে গোল পোস্টে। তুমি অসহায়। কিচ্ছু বলার নাই।

একমাত্র ডিপ্রেশনের কবি হওয়া ছাড়া তোমার কাছে ভিন্ন কোন উপায় নাই। কি করবা এখন?

উপায় একটাই। দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে পেছানোর পথ বলে কিছু থাকে না। সামনেই এগিয়ে যেতে হয়।

জাস্ট ২/৩ টা বছরের জন্য আত্মসম্মানের পোশাকটা শরীর থেকে খুলে ফেলো। লজ্জা শরম বলে কিছু রেখো না। নিজের উপর কন্ট্রিবিউট করো। রিলেশন থাকলে ভালো। না থাকলে আরো ভালো। কিন্তু যে চলে যেতে চায় তাকে হাতে ধরে বিদায় করো। আটকে রেখো না।

মেয়ের বাপ সরকারি চাকরির ভেটো দিয়ে বসলে সেই পরিবারে গিয়ে নিজেকে বিক্রি না করাই উত্তম। পরিস্কার ভাষায় জানিয়ে দাও তুমি বিক্রির জন্য না।

জীবন তোমাকে অনেক কিছু দেয়ার জন্য অপেক্ষা করছে। প্রেমিকার হাতের রান্না খাওয়ার চাইতে নিজের রান্না নিজে করতে পারাই উত্তম।

জাস্ট একটু ধৈর্য
একটু পজিটিভ চিন্তা
সামান্য উইল পাওয়ার
আর নিজের প্রতি আসা অবহেলা গুলোকে এড়িয়ে যেতে পারার মনোভাবই তোমার ৩ বছর পরের জীবনটাকে সুন্দর করে দিতে পারে।

Arafat Abdullah (মধ্যরাতের অশ্বারোহী)
University Of Chittagong

ঢাকা, ১০ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।