বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার চেহারাই পাল্টে যাবে, যদি!


Published: 2018-05-22 13:37:36 BdST, Updated: 2018-08-19 03:55:31 BdST

সুব্রত মল্লিক : বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার চেহারাটাই বদলে যাবে। যদি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত সকল শিক্ষকের জন্য সমান ও সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা যায়। এছাড়া যেসব ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে :

১. শিক্ষকদের ক্ষেত্রে শুদ্ধি অভিযান চালাতে হবে। ক্ষেত্রবিশেষ নতুন করে শিক্ষকের মেধা-দক্ষতা-সৃজনশীলতা যাচাই করতে হবে। যারা ওই প্রক্রিয়াতে টিকে থাকতে পারবেন তারাই শিক্ষা ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দেবেন। যারা টিকতে পারবেন না তাদেরকে অবসর কালীন সুযোগ সুবিধা দিয়ে গোল্ডেন হ্যান্ডশেক দিতে হবে।

২. প্রাথমিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত শিক্ষক নিয়োগে নিরপেক্ষতা আনতে হবে।

৩. শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে রেজাল্টের পাশাপাশি শিক্ষক কতটুকু রুচিশীল-সৃজনশীল-মননশীল-বাগ্মী-অনুপ্রাণিত করার মত ক্ষমতার অধিকারী এই বিষয়গুলোতে জোর দিতে হবে।

৪. শিক্ষকদের বিদেশে ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। বিদেশে মাস্টার্স, পিএইচডির সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। সেক্ষেত্র নির্দিষ্ট সংখ্যক সিট থাকবে, পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষকদের নির্বাচন করতে হবে।

৫. সকল সরকারি কর্মচারীর ছেলে-মেয়ের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়া বাধ্যতামূলক করতে হবে।

৬. প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠ্য বইয়ের সংখ্যা তিন-চারটির মধ্যে সীমাবদ্ধ রেখে শিক্ষার্থীদের বিতর্ক, গান, কবিতা আবৃত্তি, ছবি আঁকা, গল্প-কবিতা লেখা, দলীয় কাজ, জীবন দক্ষতা শেখানো, নৈতিক শিক্ষা এগুলোর ওপর জোর দিতে হবে।

৭. শিক্ষকদের জন্য বাৎসরিক বই কেনার ভাতা দিতে হবে। এবং বছরে কমপক্ষে ১২ টি মননশীল বই পড়া বাধ্যতামূলক করতে হবে।

একটি জীর্ণ ভবন থাকলে সেটি ভেঙে যেমন নতুন করে ভবন নির্মাণ করা হয়, বাংলাদেশের শিক্ষা ক্ষেত্রে একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ঠিক সেরকমভাবে পুরাতন জীর্ণতাকে বিদায় করে নতুন করে শুরু করতে হবে। তাহলেই বদলে যাবে এই দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা, বদলে যাবে এই দেশ।

লেখক : সুব্রত মল্লিক
লেকচারার, যশোর সরকারি সিটি কলেজ

ঢাকা, ২২ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।