হরেক রকম ইফতারি


Published: 2018-05-16 17:27:50 BdST, Updated: 2018-12-14 12:03:48 BdST
লাইভ প্রতিবেদক: ইফতারের আয়োজনে বুট, পেঁয়াজু, হালিম, বেগুনি, শরবত ইত্যাদি থাকেই। তবে ভাজাপোড়া খাবারের বাইরেও বানানো যায় নানা পদের ইফতারি। স্বাদেও ভিন্নতা আসবে। রেসিপি দিয়েছেন হোটেল লা মেরেডিয়ান ঢাকার শেফ রবার্ট জনি দেছা
 

ছবি: খালেদ সরকার

লেবু পুদিনার জুস

উপকরণ: পুদিনাপাতা ১৫টি, লেবুর রস ৩০ মিলি লিটার, লেবু (কিউব করে কাটা ৫-৬ টুকরা), চিনির শিরা ২৫ মিলি লিটার, আইস কিউব ৬-৮ টুকরা, স্প্রাইট ১৮০ মিলি লিটার, সাজানোর জন্য লেবু ১ টুকরা ও পুদিনাপাতা।

প্রণালি: পুদিনা পাতা, লেবুর রস, চিনির শিরা ও আইস কিউব ব্লেন্ড করে নিতে হবে। গ্লাসে লেবুর টুকরা ও এই মিশ্রণ নেওয়ার পর স্প্রাইট ঢেলে নিন। সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

 

 

ফিশ অ্যান্ড চিপস

উপকরণ: কালো কড বা হোয়াইটিং মাছের ফিলে ১৮০ গ্রাম (৬০ গ্রাম পরিমাণের ৩টি টুকরা), ময়দা ২০ গ্রাম, মল্ট ভিনেগার ৭৫ গ্রাম, লেবু অর্ধেক (গজ বা মসলিন কাপড়ে মোড়ানো), আলু ভাজা ২০০ গ্রাম, টারটার সস ৮০ গ্রাম, ব্যাটার ৬০ গ্রাম, তেল ১ কেজি (ভাজার জন্য)।

টারটার সসের জন্য: মেয়োনেজ ২০০ গ্রাম, কেইপার কুচি ৪০ গ্রাম, পিকেলড কুকুমবার কুচি ৪০ গ্রাম, কুচি করা পেঁয়াজকলি ১৫ গ্রাম, পার্সলি পাতা কুচি ১০ গ্রাম, টেরাগন কুচি ৫ গ্রাম, লেবু অর্ধেক (সস তৈরির সময় রস করে নিতে হবে), লবণ ও কালো গোলমরিচ গুঁড়া স্বাদমতো।

ব্যাটারের জন্য: ডায়মন্ড ময়দা ৫০০ গ্রাম, পটেটো স্টার্চ বা কর্নফ্লাওয়ার ৪০ গ্রাম, বেকিং পাউডার ৪০ গ্রাম, পানি ৮৫০ গ্রাম, তেল ১৫ গ্রাম, লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি: ব্যাটার তৈরির জন্য তেল বাদে বাকি সব উপকরণ মিশিয়ে মসৃণ মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এরপর তেল দিন এতে। ব্যাটার তৈরি হয়ে গেলে মাছের ফিলের ওপর হালকাভাবে ময়দা ছিটিয়ে দিন। বাড়তি ময়দা ঝেড়ে ফেলতে হবে। প্রতিটি ফিলে ব্যাটারে ডুবিয়ে নিন, যাতে হালকাভাবে ব্যাটারে আবৃত থাকে। এরপর ডিপ ফ্রায়ারের উচ্চতার মাঝ বরাবর ১ মিনিট রাখতে হবে। এবার ১৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় উত্তপ্ত তেলে পুরোপুরি ছেড়ে দিন। সোনালি রং আসা পর্যন্ত ডিপফ্রাই করুন। দ্রুত নামিয়ে তেল ঝরিয়ে নিতে হবে। গরম-গরম আলু ভাজা, টারটার সস ও মল্ট ভিনেগার দিয়ে পরিবেশন করুন। পরিবেশনের অন্তত এক ঘণ্টা আগে টারটার সস তৈরির সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে সসটি তৈরি করে নিতে হবে।

 

 

দই বড়া

উপকরণ: খোসা ছাড়ানো ভেজা মাষকলাইয়ের ডাল ১ কাপ, জিরা ১ চা-চামচ, ফেটানো দই ২ কাপ, শুকনা মরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ, ভাজা জিরা গুঁড়া ১ চা-চামচ, তেঁতুলের চাটনি (মিষ্টি) আধা কাপ, পুদিনাবাটা সিকি কাপ, লবণ স্বাদমতো, তেল ভাজার জন্য, হিং সামান্য পরিমাণ, ধনেপাতা সাজানোর জন্য।

প্রণালি: গোটা মাষকলাইয়ের ডাল ধুয়ে চূর্ণ করে নিয়ে অল্প পানি দিয়ে ঘন, অমসৃণ একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। এটি একটি পাত্রে নিয়ে লবণ, জিরা ও হিং মিশিয়ে ভালোভাবে ফেটিয়ে নিতে হবে। কড়াইয়ে তেল গরম করুন। হাত ভিজিয়ে নিতে হবে। মিশ্রণের সামান্য অংশ গরম তেলে ছেড়ে দিন। সোনালি রং না আসা পর্যন্ত ডিপফ্রাই করুন।

একটি বড় পাত্রে পর্যাপ্ত পানি নিতে হবে। ভাজা বড়াগুলো পানিতে ঢেলে নিয়ে কয়েক মিনিট রেখে দিন। পানি থেকে উঠিয়ে একটু চেপে নিয়ে পরিবেশন পাত্রে রাখুন। এবার এতে ঠান্ডা দই ঢেলে দিন। শুকনা মরিচ গুঁড়া, জিরা গুঁড়া, তেঁতুলের চাটনি, পুদিনাপাতাবাটা ও ধনেপাতা কুচি দিয়ে সাজিয়ে নিন। ঠান্ডা অবস্থায় পরিবেশন করুন।

 

 

ওটস সবজি স্যুপ

উপকরণ: সাদা ওটস ১৫০ গ্রাম, রসুন দেড় টেবিল চামচ, পেঁয়াজ ২ টেবিল চামচ, ধনেপাতা ১০ গ্রাম, লবণ ১০ গ্রাম, মরিচ গুঁড়া ৫ গ্রাম, জলপাই তেল ১০ মিলি লিটার, পানি ৪ কাপ ও সবজি (লম্বা শিম, ফুলকপি, বেবি কর্ন, গাজর, ব্রকলি, বাঁধাকপি—প্রতিটি ২০ গ্রাম করে)।

প্রণালি: একটি গভীর পাত্রে তেল গরম করে রসুন ও পেঁয়াজ দিন। মাঝারি আঁচে ১-২ মিনিট রান্না করুন। সবজি মিশিয়ে ২ মিনিট রান্না করতে হবে। এবার পানি, লবণ ও মরিচ গুঁড়া মিশিয়ে মাঝে মাঝে নেড়ে দিতে হবে। সবশেষে ওটস মিশিয়ে আরও ১ মিনিট রান্না করতে হবে। নামানোর আগে ধনেপাতা দিন। গরম-গরম পরিবেশন করুন।

 

 

কাঁচা ছোলা মাখানো

উপকরণ: কাঁচা ছোলা ১০০ গ্রাম, আদা কুচি ৫ গ্রাম, কাঁচামরিচ কুচি ২ গ্রাম, ধনেপাতা ৫ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি ২ গ্রাম, অলিভ অয়েল ৫ গ্রাম, লেবুর রস (১টি লেবু), লবণ ও সাদা গোলমরিচ গুঁড়া পরিমাণমতো।

প্রণালি: ঠান্ডা পানিতে ছোলা ধুয়ে নিয়ে সারা রাত স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রেখে দিন। পরদিন পানি ঝরিয়ে খানিকক্ষণ রেখে দিতে হবে। পুরোপুরি শুকিয়ে যাওয়ার পর একটি পাত্রে নিয়ে সব উপকরণের সঙ্গে মেশান। এবার একটি মাটির পাত্রে পুদিনাপাতা দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

 

 

ফলের চাট

উপকরণ: সবুজ আপেল ৫০ গ্রাম, বাঙ্গি ৭৫ গ্রাম, আনারস ৭০ গ্রাম, পেঁপে ৫০ গ্রাম, ড্রাগন ফল ৩০ গ্রাম, আঙুর ২৫ গ্রাম, ধনেপাতা ৫ গ্রাম, চাট মসলা ২ গ্রাম, কাঁচামরিচ ২টি, পুদিনাপাতা ১টি, লবণ ও সাদা গোলমরিচ গুঁড়া সামান্য পরিমাণ।

প্রণালি: ফলগুলো ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে ছোট কিউব করে কেটে নিতে হবে। সালাদের পাত্রে ড্রাগন ফল ও আঙুর বাদে বাকি সব ফল নিয়ে চাট মসলা, ধনেপাতা, কাঁচামরিচ মেশাতে হবে। মাখানো ফল একটি মাটির পাত্রে নিন। ড্রাগন ফল, আঙুর ও পুদিনাপাতা দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

 

ঢাকা, ১৬ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।