ফেইসবুক থেকে মডেলিংয়ে, ইডেনের সেই ছাত্রীর বিচ্ছেদ!


Published: 2018-06-23 12:37:45 BdST, Updated: 2018-09-24 22:14:14 BdST

শোবিজ লাইভ : ইডেন কলেজ থেকে ব্যবস্থাপনায় অনার্স করেছেন তিনি। পড়াশোনার ফাঁকে ফাঁকে ফেইসবুকে ছবি দিয়ে আলোচনায় এসেছেন তিনি। বন্ধুমহল তথা কলেজে পরিচিতি পেয়েছেন ফেইসবুকের মাধ্যমেই। আলোচিত ওই ছাত্রীর মিডিয়ায় হাতেখড়ি হয়েছে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে। শুরুতেই তিনি প্রেমে পড়েছিলেন কেমেস্ট্রির টিচারের। তবে সেটা বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে।

হ্যাঁ, একটি ম্যাংগো বারের বিজ্ঞাপনচিত্রের সংলাপ ছিল, ‘জানিস, আমাদের কলেজের কেমিস্ট্রির টিচার দেখতে যা হ্যান্ডসাম! আমি তো পুরাই প্রেমে পড়ে গেছি।’ এটা তার দ্বিতীয় কাজ হলেও আলোচনায় চলে আসেন তিনি। এরপর বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হয়েছেন তিনি। পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে একে একে নাটক ও টেলিফিল্মের মাধ্যমে আলোচনায় আসেন তিনি। বিয়ের পরেও জনপ্রিয় হয়ে উঠেন ওই মডেল অভিনেত্রী। বলছি তাসনুভা তিশার কথা।

মিডিয়া আর সংসার জীবন নিয়ে বেশ কাটছিল তার। তবে সেই সুখ তার সইলো না বেশিদিন। বিয়ের তিন বছরের মাথায় বিচ্ছেদ হয়েছে মডেল ও অভিনেত্রী তাসনুভা তিশার।

ফেইসবুকে এক পোস্টে তিনি জানিয়েছেন, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে স্বামী ফারজানুল হকের সঙ্গে তার আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদ ঘটেছে। ২০১৫ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবেসে ঘর বেঁধেছিলেন ফারজানুল হক ও তাসনুভা তিশা।

তিশা সাংবাদিকদের জানান, সংসার করতে গেলে বোঝাপড়াটাই আসল। মিডিয়ার মানুষ হিসেবে, একজন মা হিসেবে আমি সবসময় চেয়েছি আমার সংসার টিকুক, সেটা যে কোনো মূল্যে হোক। জটিলতার কারণেই তাদের বিচ্ছেদ হয়েছে। তার কাজ নিয়ে নয়। বিষয়টি ব্যক্তিগত, কিছুটা পারিবারিক, যার সমাধান তারা করতে পারেননি। বিচ্ছেদের পর তাদের একমাত্র সন্তান এখন থাকছে বাবার কাছে। তিশার অভিযোগ, জোর করে তার সন্তানকে তার কাছ থেকে আলাদা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি চাইলে, অভিযোগ করলে ছেলেকে পাব। অভিযোগ করলে ওর চাকরি যাবে, কিন্তু আমার সন্তানের ভবিষ্যতের জন্য ভালো হবে না। আমি চাইনা ওর ক্যারিয়ার নষ্ট হোক। খারাপ লাগে আমার বাচ্চাকে দেখতে দেওয়া হয় না। ফলে মানসিকভাবে আমি বিপর্যস্ত।

ঢাকা, ২৩ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।